যুক্তরাষ্ট্রে ১ হাজার অভিবাসী শিশু পিতামাতা থেকে আলাদা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মেক্সিকো সীমান্তে গত বছর থেকে প্রায় এক হাজার অভিবাসী শিশুকে তাদের পিতামাতার কাছ থেকে আলাদা করে রাখা হয়েছে। যদিও প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রশাসনকে এ প্রক্রিয়া বন্ধের নির্দেশ দিয়েছিল বিচারক। মঙ্গলবার একটি শীর্ষস্থানীয় মানবাধিকার গ্রুপ এই তথ্য জানায়।খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের।


দ্য আমেরিকান সিভিল লিবার্টিজ ইউনিয়ন (এসিএলইউ) সান ডিয়াগোয় মামলা দায়ের করতে গিয়ে বলছে, ট্রাফিক আইন লঙ্ঘনসহ ছোটখাট অপরাধের কারণে শিশুদের পিতামাতাকে অভিযুক্ত করা হচ্ছে এবং বিচারকের নির্দেশ সত্ত্বেও সীমান্তে শিশুদের আলাদাকরণ অব্যাহত রয়েছে।

এ প্রেক্ষিতে একটি উদাহরণ তুলে ধরে সংস্থাটি বলছে. ডায়পার পরিবর্তন করতে ব্যর্থ হওয়ায় এক-বছরের কন্যা শিশুকে তার বাবার কাছ থেকে নিয়ে নেওয়া হয়েছে।

অন্য আরেকটি ঘটনায় তিন বছরের কন্যা শিশুকে তার পিতার কাছ থেকে আলাদা করা হয়। কারন তিনি প্রমান করতে পারেননি যে তিনি মেয়েটির পিতা। পরে পরিবার ডিএনএ টেস্টের মাধ্যমে পরিচয় নিশ্চিত করে। এরমধ্যে আটক অবস্থায় শিশুটিকে যৌন নির্যাতন করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

এসিএলইউর এক এটর্নি লী জিল্যার্ন্ট বলেন, ‘এটা দু:খজনক যে ট্রাম্প প্রশাসন শিশুদের তার পিতামাতার কাছ থেকে আলাদাকরণ অব্যাহত রেখেছে।’

তিনি আরো বলেন, ‘এই নিষ্ঠুর ও অবৈধ নীতিমালার শিকার হাজার হাজার পরিবারের সাথে আরো নয়শ’ও বেশি পরিবার যোগ হয়েছে। ট্রাম্প প্রশাসন এ ধরনের বিভিন্ন বিষয়ে আদালতের আদেশও অগ্রাহ্য করছে। খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের। সূত্র : এএফপি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *