বুধবার, ১০ অগাস্ট ২০২২, ০৪:৪৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় র‌্যাবের এয়ার উইং পরিচালক মারা গেছেন ঝালকাঠিতে স্ত্রীকে হত্যার দায়ে স্বামী আটক আধিপত্যকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ; নিহত১ টাইগারদের জরিমানা করলো আইসিসি বালিশচাপা দিয়ে স্ত্রীকে হত্যা, স্বামী আটক জাতির জনককে অবমাননার দায়ে প্রধান শিক্ষকের কারাদণ্ড নরসিংদীতে ছিনতাইকারী চক্রের ৫ সদস্য আটক কুমিল্লার সীমান্তে মাদক সেবনের দায়ে ৩ যুবককে জেল ও জরিমানা বঙ্গমাতার জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ডে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি মুসলিম হত্যাকারীদের ঠাঁই আমেরিকায় হবে না: জো বাইডেন বঙ্গমাতার সমাধিতে আওয়ামী লীগের শ্রদ্ধা মাদক কারবারির পায়ুপথ দিয়ে বের হলো ৩৮ প্যাকেট ইয়াবা স্কুলছাত্রের ধর্ষণের শিকার কলেজছাত্রী! বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব পদক পেলেন ৫ নারী লঞ্চভাড়া বাড়ানোর বিষয়ে সিদ্ধান্ত আজ জ্বালানি তেলের দাম বাড়ার সিদ্ধান্ত বাতিল চেয়ে রিট রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ২সন্ত্রাসী গ্রুপের গোলাগুলি,নিহত ১ রাজধানীতে মাদকবিরোধী অভিযানে আটক ৪৭ সৌদি থেকে দেশে ফিরেছেন প্রায় ৫৭৯০৯ হাজি জাতীয় শোক দিবসে সরকারি কর্মসূচি
Uncategorized

সন্দেহভাজন সেনা কর্মকর্তাকে খুঁজছে পুলিশ: ৪টি অভিযোগে পাচারবিরোধী অভিবাসন আইনে মামলা

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ২ জুন, ২০১৫
  • ২৬ দেখা হয়েছে

corrupted shena kormokortaসেনাবাহিনীর জ্যেষ্ঠ উপদেষ্টা লেফটেন্যান্ট জেনারেল মানুস কংপানের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির পর তাঁকে খুঁজছে পুলিশ। তার বিরুদ্ধে দেশের মানব পাচার বিরোধী আইন লঙ্ঘনের চারটি অভিযোগ আনা হয়েছে। মামলা দেয়া হয়েছে দেশের পাচারবিরোধী অভিবাসন আইনে।

সোমবার তার ‍বিরুদ্ধে মানব পাচারে জড়িত থাকার অভিযোগ ওঠার পর প্রশ্ন উঠতে শুরু করে থাই সেনাবাহিনীর ভূমিকা নিয়ে। এর আগে দেশটির সরকারি কর্মকর্তা, পুলিশ ও মাঠপর্যায়ের লোকজনের বিরুদ্ধে ওই অভিযোগ উঠেছিল। অভিযোগের এ ধারাবাহিকতায় রাজকীয় সেনাবাহিনীর জ্যেষ্ঠ উপদেষ্টা লেফটেন্যান্ট জেনারেল মানুস কংপানের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির আবেদন করেছিল পুলিশ। থাইল্যান্ডের দক্ষিণাঞ্চলীয় সংখলা প্রদেশের না থাবি এলাকার প্রাদেশিক আদালত ওই শীর্ষ সেনা কর্মকর্তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির আবেদন অনুমোদন করেন। এর পরপরই তাঁকে সাময়িক বরখাস্ত করেছে সেনাবাহিনী।

উপ-পুলিশপ্রধান অ্যাক আংসানানোন বলেন, ৫৮ বছর বয়সী সেনাবাহিনীর এ কর্মকর্তা আত্মসমর্পণের ব্যবস্থা নিতে এরই মধ্যে পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন। তবে এই সেনা কর্মকর্তা গতকাল গণমাধ্যমকে জানান, পরোয়ানার বিষয়ে তিনি কিছু জানেন না।

এই খবর বের হওয়ার আগে সেনাবাহিনীর কমান্ডার ইউদোমদেজ সিতাবাতরা বলেছিলেন, মানব পাচারের সঙ্গে কোনো সেনাসদস্য জড়িত আছেন কি না, তা তাঁর জানা নেই। তবে সোমবার তিনি বলেন, তাঁর অধস্তন কর্মীকে পুলিশ খুঁজছে বলে তিনি জেনেছেন। আর এ ব্যাপারে সেনাবাহিনী পুলিশকে ঘনিষ্ঠভাবে সহযোগিতা করছে।

সেনা কমান্ডার দাবি করেন, এই গ্রেপ্তারি পরোয়ানা সেনাবাহিনীর জন্য কোনো আঘাত নয়। ওই কর্মকর্তাকে জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশকে স্বাধীনতা দেওয়া হবে। সেনাবাহিনীর এক সূত্র জানিয়েছে, পুলিশের গ্রেপ্তারি পরোয়ানার আবেদনের বিষয়টি অবগত আছেন প্রধানমন্ত্রী প্রায়ুত চান-ওচা ও প্রতিরক্ষামন্ত্রী জেনারেল প্রবিত ওংসুওন। বিষয়টিতে যথাযথ ব্যবস্থা নিতে তদন্তকারীদের প্রতি সবুজ সংকেত দিয়েছেন এই দুজন এবং সেনাবাহিনীর ওই কমান্ডার।

সংখলায় গণকবর ও পাচারকারীদের আস্তানা আবিষ্কৃত হওয়ার পর দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার মানব পাচার কেলেঙ্কারি নিয়ে বিশ্বজুড়ে হইচই শুরু হয়। তীব্র সমালোচনার মুখে থাইল্যান্ডে মানব পাচারকারী চক্রের বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করে সেখানকার সেনা-সমর্থিত সরকার। গত প্রায় এক মাসের অভিযানে গ্রেপ্তার হয়েছে সন্দেহভাজন ৫১ পুলিশ ও সরকারি কর্মকর্তা। গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে মোট ৮২ জনের বিরুদ্ধে। সন্দেহভাজন এসব লোকের মধ্যে এখন পর্যন্ত মানুস কংপানই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি।
তথ্যসূত্রঃ প্রিয়.কম

শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরির আরো খবর

সম্পাদক ও প্রকাশক

মুহম্মদ মিজানুর রহমান চৌধুরী

© All rights reserved by Crimereporter24.com
রি-ডিজাইনঃ Cumilla IT Institute
themesba-lates1749691102