শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৮:৫৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
যশোর বোর্ডের এসএসসি বাংলা ২য় পত্রের এমসিকিউ পরীক্ষা স্থগিত জুমা’র দিনে গোসল ও সুগন্ধির ব্যবহার সম্পর্কে যা বলেছেন বিশ্বনবি ইলিশ মাছের গড় আয়ু কত? নবজাতক শিশুর যত্নে, জন্মের পর করনীয় চুল এবং ত্বকের যত্নে থাকুক টক দই লন্ডনে পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী বাবার লাশ উঠানে, রুমাল হাতে ছেলে পরীক্ষা কেন্দ্রে ঘুমধুম সীমান্তে আবারও গোলাগুলির শব্দ পা দিয়ে লিখে এসএসসি পরীক্ষা দিলেন মানিক সাবেক উপ প্রধানমন্ত্রী প্রয়াত মোয়াজ্জেম হোসেনকে গার্ড অব অনার প্রদান গুয়েতেমালায় কনসার্টে পদদলিত হয়ে নিহত ৯, আহত ২০ কারাগারে বসে এসএসসি পরীক্ষা দিলেন ৩ আসামি পরীক্ষাকেন্দ্রে দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগে ৫ শিক্ষককে অব্যাহতি করোনায় আক্রান্ত সিইসি হাবিবুল আউয়াল বেনাপোল সীমান্তে মাদকসহ আটক ১ সরকার সব দলের অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনে বিশ্বাসী : সেতুমন্ত্রী রাঙ্গাকে অব্যাহতির কারণ জানালেন জাপা মহাসচিব নড়াইলে বাংলা প্রথম পত্র পরীক্ষায় দেয়া হলো দ্বিতীয় পত্রের প্রশ্ন! সারাদেশে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু রানির শেষকৃত্যে অংশ নিতে লন্ডনের পথে প্রধানমন্ত্রী
Uncategorized

এসআই আনোয়ারের বিষপানে আত্মহত্যার চেষ্টা

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট সময় : বুধবার, ৮ জুলাই, ২০১৫
  • ২৭ দেখা হয়েছে

suiside_92309
ঝালকাঠী সদর থানার সাবেক এসআই আনোয়ার হোসেন (বর্তমানে গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ থানায় কর্মরত) বিষপানে আত্মহত্যার চেষ্টা চালিয়েছে।

আজ বিকেলে বরিশাল নগরীর রূপাতলীর নিজ বাসায় আত্মহত্যার চেষ্টা চালানোর পর তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আনোয়ারের স্ত্রী নাজমা সুলতানা ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে জানান, মঙ্গলবার বিভাগীয় মামলায় ঝালকাঠীতে হাজির দিয়ে নগরীর হাউজিং এলাকায় নিজ বাসায় আসার পরপরই এসআই আনোয়ার পরিবারের সকলের অগোচরে বিষপান করে ছটফট করতে থাকেন। এরপর স্থানীয়দের সহায়তায় তাকে শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ৪র্থ তলায় ভর্তি করা হয়।

তার পকেটে একটি চিরকুট পাওয়া গেছে তাতে লেখা রয়েছে ‘আমার মৃত্যুর জন্য পুলিশ সুপার মজিদ আলী দায়ী’। এছাড়া ওই চিরকুটে তার লাশের ময়ন তদন্ত না করার অনুরোধ জানানো হয়।

শেরেবাংলা মেডিকেলের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক ডা. মাসুম মোল্লা ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে জানান, এসআই আনোয়ারের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

নাজমা সুলতানা আরো জানান, ২০১২ সালের ডিসেম্বর থেকে ২০১৪ সালের মে মাস পর্যন্ত তার স্বামী ঝালকাঠী সদর থানায় কর্মরত থাকাকালে জেলা পুলিশ সুপার মজিদ আলী এবং তৎকালীন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মহিদুল ইসলাম তার স্বামীর ওপর বিভিন্ন রকম অন্যায় আচরণ করেন। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মহিদুল ইসলাম তার স্বামীর কাছ থেকে নানাভাবে অবৈধপন্থায় অর্থ আদায় করতেন। এছাড়া শহরের পূর্ব চাঁদকাঠী এলাকায় এক নারীর সাথে অবৈধ সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মহিদুল। এক পর্যায়ে এলাকাবাসী এর প্রতিবাদ করে। তখন প্রতিবাদকারীদের মামলা দিয়ে হয়রানীর নির্দেশ দেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মহিদুল। কিন্তু উর্ধতন কর্মকর্তার এ অনৈতিক আদেশ মেনে না নেয়ায় এসআই আনোয়ারকে জামায়াতের সমর্থক উল্লেখ করে বিভাগীয় মামলা রুজু করা হয় এবং বন্ধ করে রাখা হয় তার বেতন-ভাতা ও রেশন।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মহিদুল ইসলাম তার দেশের বাড়ি রংপুর রেঞ্জে আনোয়ারকে বদলী করে নিজে সুদানে মিশনে চলে যান। দীর্ঘদিন ধরে বেতন ভাতা বন্ধ থাকায় দ্ইু ছেলে সন্তান নিয়ে তিনি মানবেতর জীবনযাপন করছিলেন। এ অবস্থার পরিবর্তন চেয়ে নাজমা ইতিপূর্বে বরিশালে সাংবাদিক সম্মেলনও করেছেন। কিন্তু কোনভাবেই এসআই আনোয়ারের বেতন ভাতা চালু না হয়নি।

শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরির আরো খবর

সম্পাদক ও প্রকাশক

মুহম্মদ মিজানুর রহমান চৌধুরী

© All rights reserved by Crimereporter24.com
রি-ডিজাইনঃ Cumilla IT Institute
themesba-lates1749691102