বুধবার, ২৯ জুন ২০২২, ০৯:২১ অপরাহ্ন

কম দামে স্মার্টফোন কেনার আগে যা জানা জরুরি

বিশেষ প্রতিবেদক।
  • আপডেট সময় : শুক্রবার, ১০ জুন, ২০২২
  • ৭৬ দেখা হয়েছে

প্রকাশ : ১০ জুন২০২২(শুক্রবার) ১২:০৪ এএম

বর্তমানে দেশের বাজারে কেনার জন্য কমদামি মোবাইলের অভাব নেই। কম দামে অসংখ্য স্মার্ট ফোন রয়েছে মোবাইলের দোকানগুলোতে, যা অধিকাংশ মানুষ তাদের বাজেট বিবেচনা করে কিনে থাকেন। খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের।

স্মার্ট ফোন কম দামে কেনার ফলে গ্রাহক বেড়েছে অধিক। কিন্তু কম দামে নতুন বা পুরোনো এসব স্মার্টফোন কিনে আপনি ঠকছেন না তো?

কোথা থেকে কিনছেন

নতুন ফোন হোক বা পুরাতন, ফোন তার উপর ঐ জিনিসের অনেক কিছু নির্ভর করে। যেমন : আপনি একটি অফিসিয়াল শপ থেকে যেকোনো কিছু কেনার ক্ষেত্রে নিশ্চিত থাকতে পারেন। কেননা অফিসিয়াল কোম্পানি তাদের ভাবমূর্তি নষ্ট হয় এমন কিছু করবেনা। এ বিষয়টি একজন গ্রাহক হিসেবে আপনাকে লাভবান করতে সাহায্য করবে।

মোবাইল তো যেকোনো দোকান থেকে কেনা যায়। কিন্তু যে দোকান থেকে ফোন কিনছেন, ঐ দোকানের বিশ্বাসযোগ্যতা কতটুকু তা আগে যাচাইবাছাই করতে কখনো ভুলবেন না। সবচেয়ে ভালো হয় পরিবারের সদস্য বা বন্ধুদের পরিচিত কোনো বিশ্বস্ত দোকান থেকে ডিভাইস কেনা।

কারো ব্যবহৃত ফোন নয় তো?

কম দামে অনেক নতুন ফোন পাওয়া যায় বর্তমানে । বিশেষ করে আগের মডেলের ফোনগুলো বেশ কম দামে বিভিন্ন দোকানে বিক্রি করা হয়ে থাকে। এছাড়া বিভিন্ন অনলাইন শপও এসব ফোনের বিজ্ঞাপন দিয়ে থাকে৷ মূলত সেকেন্ডহ্যান্ড ফোন গুলো বিক্রি হয়ে থাকে কম দামে।

স্মার্টফোন পুরোনো হওয়া কোনো অপরাধ নয়, কিন্তু কোনো বিক্রেতা উক্ত ফোনকে নতুন বলে চালিয়ে দেওয়ার বিষয়টি হলো সন্দেহজনক। তাই কম দামে নতুন ফোন কেনার আগে উক্ত বিষয়টি যাচাই বাছাই করে দেখুন।

রিটার্ন পলিসি

কোনো বিশ্বস্ত দোকান থেকে কম দামে নতুন ফোন কিনলে অবশ্যই ওয়ারেন্টি পাবেন। ফোনের দাম কম হলেও যেনো অন্তত ৭দিনের রিটার্ন ওয়ারেন্টি থাকে, সে বিষয়টি দেখে কিনুন। অধিকাংশ ক্ষেত্রে ব্যবহৃত ফোনের ক্ষেত্রে কোনো ধরনের রিটার্ন পলিসি থাকেনা। তবে আপনি যদি কম দামে নতুন ফোন কিনে থাকেন, সেক্ষেত্রে অবশ্যই কিছুদিনের ও
ওয়ারেন্টি পাবেন।

হার্ডওয়্যার

কম দামে কোনো স্মার্টফোন কেনার আগে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো ফোনের হার্ডওয়্যার চেক করা। এছাড়া যে ফোনটি নিতে যাচ্ছেন, সে ফোনে আপনার ব্যবহৃত হার্ডওয়্যার অর্থাৎ র‍্যাম, স্টোরেজ, চিপসেট, ইত্যাদি আপনার প্রয়োজন মেটাতে পারবে কিনা তা নিশ্চিত করুন।

কম দামের ফোনগুলোতে দুর্বল হার্ডওয়্যার এর কারণে আপনার প্রত্যাশিত কাজের সাথে মানানসই না ও হতে পারে। তাই যেকোনো ফোন কেনার আগে অবশ্যই হার্ডওয়্যার আপনার ব্যবহারের উপযোগী কিনা তা যাচাই করে নিন। মনে রাখবেন, যেসব ফোনের দাম কম সেগুলো তৈরি করা হয়েছে এমন গ্রাহকদের জন্য যাদের চাহিদা কম।

মুক্তির তারিখ

বর্তমান স্মার্টফোন বাজার বেশ জমজমাট, যার ফলে প্রায় প্রতি সপ্তাহে আমরা নতুন স্মার্টফোন বাজারে দেখতে পাই। স্মার্টফোন কোম্পানিরা নতুন ফোন বাজারে আনার পর সাপ্লাই বজায় রাখতে আগের কোনো প্রোডাক্ট নতুন করে বানানো বন্ধ করে দেয় । যেহেতু অফিসিয়ালি ফোনগুলো ডিসকন্টিনিউ করা হয়, তাই ফোনগুলো অফিসিয়ালি সেল না করে বাল্ক আকারে কোনো থার্ড পার্টির কাছে বিক্রি করা হতে পারে। মূলত এসব ফোনই কম দামে পরবর্তীতে নতুন ফোন হিসেবে বাজারে আসে। এই ধরনের ফোন কেনার ক্ষেত্রে কোনো ঝুঁকি থাকেনা। এগুলো অনেক সময় কম দামে ভাল ফোন হিসেবে বিবেচিত হয়।

স্মার্টফোন কেনার সময় খেয়াল করবেন যে বিষয়গুলো

তবে কোনো ফোনের মুক্তির তারিখ যদি বেশি পুরোনো হয়, তবে ফোনের প্রোডাকশন ও বেশ আগে পুরাতন। তার মানে সময়ের সাথে সাথে এই ফোনের হার্ডওয়্যার পুরোনো হয়েছে ও পার্টসমূহে কিছুটা কম্প্যাটিবিলিটি ইস্যু দেখা দিতে পারে। তাই যেকোনো কম দামের ফোনের মুক্তির তারিখ হিসাব করে ফোনের কন্ডিশন যাচাই করতে পারেন।

আসল একসেসরিজ
বাজেট ফোনের সাথে অরিজিনাল একসেসরিজ, যেমনঃ চার্জার, কেস, ইত্যাদি থাকলে অনেকাংশে ফোনটি যে নতুন করে তা কিছুটা নিশ্চিত করা যায়। নতুন বাজেট ফোনের ক্ষেত্রে অবশ্যই ফোনের সাথে উল্লেখিত একসেসরিজ দেওয়া হবে।

দাম

কম দামে স্মার্টফোন নিয়ে কথা হচ্ছে আর দাম নিয়ে কথা হবেনা, তা কি হতে পারে? সাধারণের চেয়ে যেকোনো ফোনের দাম মাত্রাতিরিক্ত কম হওয়া একটি সন্দেহজনক বিষয় হতে পারে। তবে ফোন যে সবসময় দাম বেশি হলেই আসল হবে, তা না। অনেক আগে রিলিজ করা ফোনগুলো স্টকে থেকে যাওয়ার কারণেও এখন কম দামে বিক্রি হয়ে থাকে, যা সম্পূর্ণ স্বাভাবিক।

একটি উদাহরণ দেখা যাক। গুগল এর পিক্সেল ৩ এক্সএল বাজারে এসেছে বেশ অনেক বছর হলো। তখন ফোনটির দাম অনেক হলেও বর্তমানে দেশের বাজারে মাত্র ১৫ হাজার টাকা। মধ্যেও এই ফোনটি পাওয়া যায়। এর মানে কিন্তু এই নয় যে এই ফোনটি আসল নয়। এগুলো আসলে অবিক্রিত ইউনিট যা এখন বিক্রি হচ্ছে।
তবে অবিক্রিত ইউনিটের নাম দিয়ে অনেক অসাধু ব্যবসায়ী ব্যবহৃত পুরাতন ফোন ধরিয়ে দেয়। বিশেষ করে সম্প্রতি আইফোন নিয়ে এই প্রতারণা বেশি ঘটছে। তাই ফোন কেনার সময় দাম কম হলেই তার দিকে ঝুঁকে পড়বেন না।

তাই কমদামে স্মার্ট ফোন কেনার আগে অবশ্যই উপরিউক্ত বিষয়গুলো জানা জরুরি।খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের।

শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরির আরো খবর

সম্পাদক ও প্রকাশক

মুহাম্মদ মিজানুর রহমান চৌধুরী

© All rights reserved by Crimereporter24.com
themesba-lates1749691102