শিরোনাম

চারুকলায় ‘সীমিত পরিসরে’ হবে পহেলা বৈশাখ উদযাপন

অনলাইন ডেস্ক।

বাংলা নববর্ষ ১৪২৮ করোনাভাইরাস মহামারীর বিরূপ পরিস্থিতির কারণে সীমিত পরিসরে পালন করা হবে এবারের বাংলা নববর্ষ। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদ চত্বরে একশ জন নিয়ে সীমিত আকারের এ উদযাপন করবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামানের সভাপতিত্বে অধ্যাপক আব্দুল মতিন চৌধুরী ভার্চুয়াল ক্লাসরুমে অনুষ্ঠিত এক ভার্চুয়াল সভায় এসব সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দফতর থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব নির্দেশনা দেওয়া হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, কোভিড-১৯ উদ্ভূত পরিস্থিতিতে এবছর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে অত্যন্ত সীমিত পরিসরে বাংলা নববর্ষ ১৪২৮ উদযাপন করা হবে। এ উপলক্ষে চারুকলা অনুষদ চত্বরে ১০০ জনের একটি বর্ণাঢ্য মঙ্গল শোভাযাত্রা আয়োজন করা হবে।শোভাযাত্রাটি চারুকলা অনুষদ চত্বরেই সীমাবদ্ধ থাকবে। এক্ষেত্রে যথাযথভাবে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে।

মঙ্গল শোভাযাত্রা আয়োজকদের সূত্রে জানা গেছে, ফেস শিল্ড করোনাকে মাথায় রেখে মূলত এবারের থিম ‘কাল ভয়ংকরের বেশে এবার ওই আসে সুন্দর’। এ ছাড়া রাজা-রানি, বর্ম এসব বিষয়গুলোকে এবার তুলে ধরা হবে। এ ছাড়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ১০০ বছর পূর্তি উপলক্ষে থাকবে ১০০টি ডিজাইন।

১৯৮৬ সালে যশোরে চারুপীঠ নামের একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান প্রথমবারের মতো নববর্ষ উপলক্ষে আনন্দ শোভাযাত্রার আয়োজন করে। সেই শোভাযাত্রায় ছিল বিভিন্ন পাপেট, বাঘের প্রতিকৃতি, পুরনো বাদ্যযন্ত্রসহ আরো অনেক শিল্পকর্ম স্থান পায়। শুরুর বছরেই যশোরে শোভাযাত্রা আলোড়ন তৈরি করে। পরবর্তীতে ১৯৮৯ সাল থেকে যশোরের সেই শোভাযাত্রার আদলেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদ থেকে বর্ষবরণে মঙ্গল শোভাযাত্রা শুরু হয়। এরপর ২০১৬ সালের ৩০ নভেম্বর বিশ্ব ঐতিহ্যের স্বীকৃতি দেয় ইউনেসকো।খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *