শিরোনাম

মিয়ানমার সেনাবাহিনীকে নিউজিল্যান্ডের ‘কড়া শাস্তি’

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ।

মিয়ানমারের সঙ্গে সব ধরনের উচ্চ পর্যায়ের রাজনৈতিক সম্পর্ক স্থগিত করছে নিউজিল্যান্ড। একই সঙ্গে দেশটি মিয়ানমারের সামরিক নেতাদের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করছে। মঙ্গলবার নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জাসিন্দা আরডার্ন মন্ত্রিসভার বৈঠকে এই ঘোষণা দেন।খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আগামী সপ্তাহে মিয়ানমারের সামরিক নেতাদের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার ঘোষণা আসবে বলে জানিয়েছে নিউজিল্যান্ড। এছাড়া মিয়ানমারের সামরিক সরকারে সমর্থন করে এমন সহায়তা প্রদান বন্ধ করবে নিউজিল্যান্ড।

গত ১ ফেব্রুয়ারি সেনা অভ্যুত্থানের জেরে নিউজিল্যান্ড এমন পদক্ষেপ নিলো।

আরডার্ন বলেছেন, ‘আমাদের কড়া বার্তা হলো আমরা এখান থেকে যা করার করবো, এর মধ্যে একটি বিষয় হচ্ছে আমরা উচ্চ পর্যায়ের সঙ্গে সম্পর্ক স্থগিত করছি। এবং নিশ্চিত করবো নিউজিল্যান্ড থেকে যেসব অনুদান মিয়ানমারে যায় তা যেন সামরিক শাসনে সমর্থন না করে।’

তিনি জানান, ২০১৮ থেকে ২০২১ সাল পর্যন্ত মিয়ানমারকে ৪ কোটি ২০ লাখ ডলারের সহায়তা দিয়েছে নিউজিল্যান্ড।

এদিকে, সেনাবাহিনীর হুঁশিয়ারি উপেক্ষা করে চতুর্থ দিনের মতো মিয়ানমারে অভ্যুত্থানের বিরুদ্ধে বিক্ষোভে রাস্তায় নেমেছে বিক্ষোভকারীরা। গতকাল সোমবার বিক্ষোভকারীদের সতর্ক করে সেনাবাহিনী বলেছে, আপনারা বাড়ি চলে যান, না হলে সেনাবাহিনীর মোকাবিলা করতে হবে। তবে, এসব তোয়াক্কা না করে মঙ্গলবার সকালে দেশটির প্রধান শহর ইয়াঙ্গনে ফের মানুষ জড়ো হচ্ছেন।

গত ১ ফেব্রুয়ারি ভোরে মিয়ানমারের ক্ষমতা দখল করে দেশটির সামরিক বাহিনী। এদিন অভিযান চালিয়ে রাষ্ট্রীয় উপদেষ্টা অং সান সু চি এবং ক্ষমতাসীন দলের শীর্ষস্থানীয় নেতাদের আটক করা হয়। দেশজুড়ে ঘোষণা করা হয় এক বছরের জরুরি অবস্থা।খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *