শিরোনাম

নারীকে বিবস্ত্র করে নির্যাতনের মূলহোতা এবার হত্যা মামলায় রিমান্ডে


নোয়াখালী প্রতিনিধি ।

বেগমগঞ্জ উপজেলার একলাশপুরের এক নারীকে (৩৫) বিবস্ত্র করে নির্যাতন এবং ভিডিওচিত্র ধারণ ও প্রকাশের ঘটনার মুলহোতা দোলোয়ার বাহিনীর প্রধান দেলোয়ারকে এবার একটি হত্যা মামলায় তিন দিনের রিমান্ড দিয়েছে আদালত।খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের।

বুধবার বেগমগঞ্জ থানার পুলিশ জেলার ৩নং আমলী আদালতে দেলোয়ার হাজির করে। এ সময় গত ১৬ ফেব্রুয়ারি সংগঠিত শরিফপুর ইউনিয়নের হাসান হত্যা মামলার এজাহারভুক্ত ৭ নম্বর আসামি দেলোয়ারকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৫ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা বেগমগঞ্জ থানার এস আই মোস্তাক আহম্মেদ। আদালতের বিচারক সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মাশফিকুল হক শুনানি শেষে তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এর আগে আদালত বিবস্ত্র করে নির্যাতনের শিকার ওই নারীর দায়ের করা ধর্ষণ মামলায় দোলোয়ারকে পিবিআই’র নেয়া পাঁচ দিন রিমান্ড শেষে মঙ্গলবার পুনরায় জেল হাজতে প্রেরণ করেন। এর আগেও বেগমগঞ্জের পুলিশের দায়ের করা অস্ত্র ও রিস্ফোরক আইনের দুইটি মামলায় দুই দিন রিমান্ডে নিয়েছিল। এ পর্যন্ত দেলোয়ারের বিরুদ্ধে দায়ের করা ৬টি মামলার মধ্যে ৪ টিতে রিমান্ড নেয়া হলেও একটিতেও সে স্বীকারোমূলক জবানবন্দি দেয়নি। নির্যাতিতা ওই নারীর প্রথম দায়ের করা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ও পর্ণোগ্রাফী নিয়ন্ত্রণ আইনের মামলায় পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের(পিবিআই) তাকে শ্যোন এরেস্ট করেছে। এ দুই মামলায় দেলোয়ারকে এখনো রিমান্ড নেয়া হয়নি। তবে পিবিআই’এর নোয়াখালীর পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান মুন্সি বলে এটিও প্রক্রিয়াধীন ।

একই আদালতে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে নির্যাতনের শিকার ওই নারীর দায়ের করা প্রথম মামলার ৪ নম্বর আসামি ইসরাফিল হোসেনকে চার দিনের রিমান্ডে দিয়েছেন আদালত। ইসরাফিলকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পিবিআই নোয়াখালী জেলা কার্যালয়ের পরিদর্শক মামুনুর রশিদ পাটোয়ারী। পরে শুনানি শেষে আদালতের বিচারক ইসরাফিলের চার দিন রিমান্ড মঞ্জুর করেন বিচারক। দুপুরে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের(পিবিআই) তদন্তকারী কর্মকর্তা তাকে জেলার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মাশফিকুল হকের আদালতে হাজির করে।

এছাড়া সুবর্ণচর উপজেলার চরজব্বার ইউনিয়নের উত্তর জাহাজমারা গ্রামের গত ৭ অক্টোবর দিবাগত রাতে নুর জাহান বেগম (৫৮) নামের এক বিধবাকে তার ছেলেসহ পাঁচ টুকরো করে হত্যার ঘটনায় দায়ের করা মামলার এজাহারভুক্ত তিন আসামি কালাম ওরফে মামুন, ইসমাইল ও হামিদকে ৩ দিনের রিমান্ড শেষে গতকাল বিকালে জেলার ২নং আমলী আদালতে হাজির করে জেলা ডিবি পুলিশ। এ সময় কালাম ওরফে মামুন জেলার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট এএসএম মোসলেহ উদ্দিন মিজানের কাছে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোমূলক জবানবন্দি প্রদান করে। পরে আদালত আসামিদের কারাগারে প্রেরণ করে। এ নিয়ে ৭ আসামির মধ্যে ৫ আসামি আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করে। বিষয়টি নিশ্চিত করেন জেলার পুলিশ সুপার মো. আলমগীর হোসেন।খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *