শিরোনাম
সুস্থ মুশতাকের হঠাৎ মৃত্যু অনেক প্রশ্নের জন্ম দিয়েছে : ড. কামালবেসরকারি ব্যবস্থাপনায় বন্ধ পাটকল চালুর নীতিতে প্রধানমন্ত্রীর সম্মতিস্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী আরও এগিয়ে যাওয়ার প্রত্যাশায় এলো স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীবিমান বাহিনীর বার্ষিক শীতকালীন মহড়া ‘উইনটেক্স-২০২১’ শুরুপ্রকল্প পরিচালকদের এলাকায় অবস্থান করতে হবে : শিল্পমন্ত্রীপাহাড়ে খালি সেনাক্যাম্পে পুলিশ মোতায়েন করা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীবীমা পদ্ধতির আধুনিকায়নে প্রযুক্তি ব্যবহারের পরামর্শ প্রধানমন্ত্রীরপ্রেসক্লাবের নিরাপত্তা রক্ষায় আরও সজাগ থাকতে হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীপ্রেসক্লাবের সামনে ছাত্রদলের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ, আহত বেশ কয়েকজনগণফোরামের সভাপতি থেকে ড. কামালকে বাদ দেওয়ার প্রস্তাব

ভারতের জন্য খোঁড়া গর্তে বাংলাদেশ

79613_s3
৮ ব্যাটসম্যান নিয়েও ফলোঅন এড়াতে পারলো না বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। গতকাল ফতুল্লা টেস্টের শেষ দিন ফলোঅন এড়াতে প্রয়োজন ছিল ১৫২ রান। কিন্তু ফলোঅন থেকে মাত্র ৭ রান দূরে থাকতেই অলআউট হয়ে যায় মুশফিকুর রহীম বাহিনী। ভারতের প্রথম ইনিংসে করা ৪৬২/৬ রানের জবাবে বাংলাদেশের ফলোঅন এড়াতে প্রয়োজন মোট ২৬৩ রান। কিন্তু চতুর্থ দিন বাংলাদেশ ৩০.১ ওভারে ১১১ রান করে ৩ উইকেট হারিয়ে। গতকাল আরও ৩৫.৫ ওভার খেলে ১৪৫ রান তুলতে হারায় ৭টি উইকেট। স্কোর বোর্ডে ২৫৬ রান ওঠে ৬৫.৫ ওভারে। এর মধ্যে সর্বোচ্চ ৭২ রান আসে ওপেনার ইমরুল কায়েসের ব্যাট থেকে। এ ছাড়া দলের পক্ষে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৪৪ রান করেন অভিষিক্ত ব্যাটসম্যান লিটন কুমার দাস। মূলত যে ব্যাটিং এর উপর ভরসা করে একাদশ সাজানো হয়েছিল এর মধ্যে মাত্র একজন ৫০ পেরোতে পেরেছেন। মূলত ব্যাটিং ও স্পিন সহায়ক উইকেট বানিয়ে ভারতের জন্য যে গর্ত খুঁড়ে ছিল সেই গর্তেই পড়েছে টাইগাররা। টসে জিতে বৃষ্টির বাধার পরও বিরাটের দল ৪’শর বেশি রান করে ইনিংস ঘোষণা করে। অন্যদিকে বল হাতে নিয়ে ভারতের দুই স্পিনার রবিচন্দ্রন অশ্বিন ৫ ও হরভজন সিং ৩টি উইকেট তুলে নিয়ে বাংলাদেশের ইনিংসে ধস নামায়। ফলে ২০৬ রান পিছিয়ে থেকে শেষ হয় বাংলাদেশের ইনিংস।
আগেই ধারণা করা হচ্ছিল, যে উইকেট বানানো হয়েছে তাতে প্রথম তিন দিন ব্যাটসম্যানরা সুবিধা পাবে। ভারতের দুই ওপেনার সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে সেটি প্রমাণও করেছেন। শিখর ধাওয়ান ১৭৩ ও মুরালি বিজয় করেন ১৫০ রান। আর যত দিন গড়াবে সফলতা পাবে স্পিনাররা। সেই ভরসাতেই বাংলাদেশ দল একাদশ সাজায় ১ পেসার ৪ স্পিনার নিয়ে। এর মধ্যে অবশ্য শুভাগত হোম ও সাকিব আল হাসানকে অলরাউন্ডার হিসেবেই বিবেচনা করতে হবে। ইমরুল কায়েস, তামিম ইকবাল, মুমিনুল হক, মুশফিকুর রহীম, সাকিব আল হাসান, সৌম্য সরকার, লিটন কুমার ও শুভাগত হোম এই ৮ ব্যাটসম্যান নিয়ে স্কোর বোর্ডে ওঠে মাত্র ২৫৬ রান। মূলত দলের ব্যাটিং ভরসা তামিম, মুমিনুল, মুশফিক, সাকিব ব্যাট হাতে ছিলেন ব্যর্থ। আর বোলিং শক্তি বাড়াতে যে শুভাগত হোমকে দলে টেনে বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছিল তার ব্যাট থেকে আসে ৯ রান আর বল হাতে কোন উইকেটই নিতে পারেননি। তবে তরুণ সৌম্য সরকার ৩৭, অভিষিক্ত লিটন দলের মান বাঁচিয়েছেন।