শিরোনাম
সুস্থ মুশতাকের হঠাৎ মৃত্যু অনেক প্রশ্নের জন্ম দিয়েছে : ড. কামালবেসরকারি ব্যবস্থাপনায় বন্ধ পাটকল চালুর নীতিতে প্রধানমন্ত্রীর সম্মতিস্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী আরও এগিয়ে যাওয়ার প্রত্যাশায় এলো স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীবিমান বাহিনীর বার্ষিক শীতকালীন মহড়া ‘উইনটেক্স-২০২১’ শুরুপ্রকল্প পরিচালকদের এলাকায় অবস্থান করতে হবে : শিল্পমন্ত্রীপাহাড়ে খালি সেনাক্যাম্পে পুলিশ মোতায়েন করা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীবীমা পদ্ধতির আধুনিকায়নে প্রযুক্তি ব্যবহারের পরামর্শ প্রধানমন্ত্রীরপ্রেসক্লাবের নিরাপত্তা রক্ষায় আরও সজাগ থাকতে হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীপ্রেসক্লাবের সামনে ছাত্রদলের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ, আহত বেশ কয়েকজনগণফোরামের সভাপতি থেকে ড. কামালকে বাদ দেওয়ার প্রস্তাব

‘বাংলাদেশে একটাই পুরুষ আছে, তিনি হচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’

image_259611.yafes
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিমন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান বলেছেন, বাংলাদেশে একটাই পুরুষ আছে, তিনি হচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রতি সপ্তাহের মন্ত্রিপরিষদের সভায় বসেই তা বুঝতে পারি। মন্ত্রী পরিষদের সভায় বসলে মনে হয় বাকি আমরা সবাই অন্যকিছু।
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪০তম শাহাদৎবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে শনিবার বিকেলে রাজধানীর কাকরাইলের আইডিইবি ভবনের কাউন্সিল হলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।
আইডিইবি (ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স, বাংলাদেশ) এ আলোচনা সভা ও প্রতিনিধি সম্মেলন আয়োজন করে।
তিনি বলেন, আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ওবামা আইটি ক্ষেত্রে বাংলাদেশকে ফলো করার কথা বলেছেন।
তিনি আরও বলেন, শিক্ষাকে সার্বজনীন করতে হবে। দেশের কর্মক্ষেত্রের ভবিষ্যত চিন্তা মাথায় নিয়ে শিক্ষা পরিকল্পনা করতে হবে। হিউম্যান রিসোর্স প্লানিং ধরে শিক্ষাকে সাজাতে হবে। আরও শিক্ষা গ্রহণের সুযোগ সৃষ্টির জন্য সিলেবাস বদলাতে হবে। যে যতখানি পড়তে চায় তাকে সেই সুযোগ করে দিতে হবে। তারা যে জায়গায় যেতে চায় তার দ্বার উন্মুক্ত করতে হবে।
স্থপতি ইয়াফেস ওসমান বলেন, ভারত নলেজ কমিশন করেছে। আগের মতো অস্ত্রভিত্তিক অর্থনীতি গড়ে তুললে চলবেনা। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে আমাদেরকেও বদলাতে হবে। এখন নলেজভিত্তিক অর্থনীতি গড়ে তুলতে হবে।
তিনি বলেন, জাতির জনক যে কাজ করে যেতে পারেননি। আমাদের সৌভাগ্য যে তার কন্যা শেখ হাসিনা সেই কাজ শেষ করছেন। পিতার শুরু করা সীমান্ত চুক্তি বাস্তবায়ন করেছেন। বঙ্গবন্ধুকে হারানোর রেশ আছে, কিন্তু তার কন্যা আছেন আমাদের সামনে। এটাই আমাদের সান্ত্বনা।
সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন, জাতীয় সংসদের সাবেক সদস্য এ বি এম আনোয়ারুল হক, আইডিইবি-এর কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মো. শামসুর রহমান প্রমুখ। মূল বক্তব্য দেন, ব্র্যাক ইন্টারন্যাশনালের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. মুহাম্মদ হারুণ অর রশিদ। সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি এ কে এম এ হামিদ।