88888
ইসলামিক স্টেটের (আইএস) বিরুদ্ধে লড়াইয়ে যুক্তরাষ্ট্র প্রতিদিন ৯০ লাখেরও বেশি মার্কিন ডলার ব্যয় করছে। বিবিসি বলছে, সন্ত্রাসী এই গোষ্ঠীটির বিরুদ্ধে বিমান হামলা শুরুর পর থেকে এ পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রের ব্যয় হয়েছে ২৭০ কোটি মার্কিন ডলার। ২০১৪ সালের অগাস্ট থেকে আন্তর্জাতিক জোট ইরাক ও সিরিয়ায় ইসলামিক স্টেটের বিরুদ্ধে বিমান হামলা চালিয়ে যাচ্ছে। পেন্টাগন প্রকাশিত যুক্তরাষ্ট্রের ব্যয়ের এই খতিয়ানে দেখা যায়, বিমান বাহিনীর পেছনেই দুই-তৃতীয়াংশ অর্থ ব্যয় হয়েছে। মার্কিন কংগ্রেসে আরো ব্যয়ের বিরুদ্ধে আইন প্রণয়ন প্রত্যাখ্যাত হওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে এটি প্রকাশ করা হয়। যুক্তরাষ্ট্রের হাউজ অব রিপ্রেজেন্টেটিভ ৫৭৯ বিলিয়ন মার্কিন ডলার প্রতিরক্ষা ব্যয় অনুমোদন করেছে। শক্তি ব্যবহারে কংগ্রেস নতুন করে অনুমোদন দেয়ার আগে আইএসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ব্যয় বন্ধ করতে একটি আইনের আহ্বান প্রত্যাখ্যান করে হাউজ অব রিপ্রেজেন্টেটিভ। ইরাকে গেল অগাস্ট থেকে অভিযান শুরুর পর থেকে যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক ব্যয় স্পষ্টতই বেড়ে গেছে।

চলতি সপ্তায় হোয়াইট হাউজ ইরাকে আরো ৪৫০ জন সামরিক উপদেষ্টা পাঠানোর ঘোষণা দেয়। এরমধ্যদিয়ে দেশটিতে ৩,৫০০ সেনা পাঠালো যুক্তরাষ্ট্র। কিন্তু কর্মকর্তারা জোর দিচ্ছেন, যুক্তরাষ্ট্র লড়াইয়ের জন্য কোনো সেনা পাঠাবে না, শুধু স্থানীয় বাহিনীকে লড়াইয়ের ব্যাপারে প্রশিক্ষণ দেবেন। বৃহস্পতিবার শীর্ষ একজন মার্কিন জেনারেল বলেন, ইরাকে যুক্তরাষ্ট্রের অভিযানের মেয়াদ ভবিষ্যতে আরো বাড়তে পারে।

শুভ সমরাটআন্তর্জাতিক
ইসলামিক স্টেটের (আইএস) বিরুদ্ধে লড়াইয়ে যুক্তরাষ্ট্র প্রতিদিন ৯০ লাখেরও বেশি মার্কিন ডলার ব্যয় করছে। বিবিসি বলছে, সন্ত্রাসী এই গোষ্ঠীটির বিরুদ্ধে বিমান হামলা শুরুর পর থেকে এ পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রের ব্যয় হয়েছে ২৭০ কোটি মার্কিন ডলার। ২০১৪ সালের অগাস্ট থেকে আন্তর্জাতিক জোট ইরাক ও সিরিয়ায় ইসলামিক স্টেটের বিরুদ্ধে বিমান হামলা চালিয়ে...