শিরোনাম
সুস্থ মুশতাকের হঠাৎ মৃত্যু অনেক প্রশ্নের জন্ম দিয়েছে : ড. কামালবেসরকারি ব্যবস্থাপনায় বন্ধ পাটকল চালুর নীতিতে প্রধানমন্ত্রীর সম্মতিস্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী আরও এগিয়ে যাওয়ার প্রত্যাশায় এলো স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীবিমান বাহিনীর বার্ষিক শীতকালীন মহড়া ‘উইনটেক্স-২০২১’ শুরুপ্রকল্প পরিচালকদের এলাকায় অবস্থান করতে হবে : শিল্পমন্ত্রীপাহাড়ে খালি সেনাক্যাম্পে পুলিশ মোতায়েন করা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীবীমা পদ্ধতির আধুনিকায়নে প্রযুক্তি ব্যবহারের পরামর্শ প্রধানমন্ত্রীরপ্রেসক্লাবের নিরাপত্তা রক্ষায় আরও সজাগ থাকতে হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীপ্রেসক্লাবের সামনে ছাত্রদলের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ, আহত বেশ কয়েকজনগণফোরামের সভাপতি থেকে ড. কামালকে বাদ দেওয়ার প্রস্তাব

আইনের শাসন না থাকায় বাড়ছে বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ড

14387880897784046_99727
আইন ও সালিশ কেন্দ্রের নির্বাহী পরিচালক সুলতানা কামাল বলেছেন, দেশে আইনের শাসন এবং মানবাধিকারের নিরাপত্তা না থাকায় মানুষ আইন নিজের হাতে তুলে নিচ্ছে। ফলে উদ্বেগজনক হারে বাড়ছে বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ড। একদিকে মানুষের মানবাধিকার বিষয়ে সচেতনতা বাড়ছে অন্যদিকে বাড়ছে মানবাধিকার লঙ্ঘনের মাত্রা। তাই সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে নিশ্চিত করতে হবে মানুষের প্রাপ্য অধিকার।’

তিনি আজ রাজশাহী চেম্বার অব কমার্স মিলনায়তনে বাংলাদেশের বর্তমান মানবাধিকার পরিস্থিতি বিষয়ে আয়োজিত এক কর্মশালায় এসব কথা বলেন।

রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডের সাবেক চেয়ারম্যান নুরুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সমাজসেবা অধিদফতরের সাবেক উপ-পরিচালক মোজাম্মেল হক, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের শিক্ষক আবু নাসের মো. ওয়াহিদ, জাতীয় মহিলা আইনজীবী সমিতির বিভাগীয় প্রধান দিল সেতারা চুনি প্রমুখ।

অনুুষ্ঠানে মুক্ত আলোচনা পর্বে বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে সুলতানা কামাল আরও বলেন, ‘দেশ মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত হয়েছে। এটা গৌরবের কথা, কিন্তু সব মানুষ কি মধ্যম আয়ের দ্বার প্রান্তে পৌঁছাতে পেরেছে? তাই সবাইকে একত্রিত হয়ে নিজের অধিকার বোধকে জাগ্রত করতে হবে। আর এতে অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে তরুণদের। এখন থেকেই তাদের সিদ্ধান্ত এবং কর্মপরিকল্পনা পরিস্কার করতে হবে, নয়তো এই মানবিক বিপর্যয় ঠেকানো সম্ভব হবে না।’