82807_x6
চট্টগ্রাম নগরীর সদরঘাট সড়কের একটি বাসা থেকে প্রায় ১১০০ কেজি বিস্ফোরফসহ দুই ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ। শনিবার গভীর রাত থেকে রোববার ভোর পর্যন্ত ঢাকার ডিবি পুলিশ চট্টগ্রাম নগর পুলিশের সহায়তায় এ অভিযান পরিচালনা করে। সূত্র জানায়, সম্প্রতি ঢাকার ডিবি পুলিশ সন্ত্রাসীদের কাছ থেকে দুই কেজি বিস্ফোরক উদ্ধার করে। এ ঘটনায় গ্রেপ্তার হওয়া ব্যক্তিরা জিজ্ঞাসাবাদে জানান, চট্টগ্রামের সদরঘাট এলাকার ব্যবসায়ী ছায়েদুল হকের কাছ থেকে তারা এসব বিস্ফোরক কিনেছেন। তাদের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে শনিবার রাতে চট্টগ্রামে তার বাসায় অভিযান চালানো হয়। ঢাকা নগর গোয়েন্দা পুলিশের সহকারী কমিশনার নূরে আলম সিদ্দিকী অভিযানের নেতৃত্ব দেন। জানতে চাইলে চট্টগ্রামের সদরঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাঈনুল ইসলাম ভূঁইয়া ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে বলেন, ‘ঢাকার গোয়েন্দা পুলিশ আমাদের সহযোগিতা নিয়ে সদরঘাট এলাকার একটি বাড়ি থেকে বিস্ফোরকজাতীয় দাহ্য পদার্থ উদ্ধার করেছে। সূত্র জানায়, চট্টগ্রামের সদরঘাট সড়কের ৪৩৫/ই হোল্ডিং নম্বরের রিজিয়া মঞ্জিলের দ্বিতীয় ও চতুর্থ তলায় এই বিপুল পরিমাণ বিস্ফোরক মজুত ছিল। সেখান থেকেই সন্ত্রাসীদের কাছে এসব বিস্ফোরক বিক্রি করা হতো। এই চক্রের অন্য সদস্যদের ধরতে অভিযান চলছে বলে পুলিশের একজন কর্মকর্তা জানান। অভিযানে অংশ নেয়া চট্টগ্রাম নগর পুলিশের এক কর্মকর্তা নাম না প্রকাশের শর্তে জানান, হলুদ রঙের ২০টি ব্যাগে এসব বিস্ফোরক ভরা ছিল। রিজিয়া মঞ্জিলের দোতলায় ১১টি এবং চতুর্থতলায় নয়টি ব্যাগের মধ্যে এসব বিস্ফোরক পাওয়া যায়। প্রতিটি ব্যাগে প্রায় ৬০ কেজি বিস্ফোরক ছিল। এসব বিস্ফোরকের মধ্যে সালফারজাতীয় পদার্থ রয়েছে। তিনি জানান, আটকের সময় ছায়েদুল হক দাবি করেন, তিনি বিদেশ থেকে বিস্ফোরক আমদানি করেন। তার কাছে বৈধ কাগজপত্র আছে। বিস্ফোরক উদ্ধারের পর তা পিকআপে করে ঢাকার নিয়ে আসার উদ্দেশে গতকাল সকালেই চট্টগ্রাম ছাড়ে অভিযানে অংশ নেয়া ডিবির দলটি।

সুরুজ বাঙালীএক্সক্লুসিভ
চট্টগ্রাম নগরীর সদরঘাট সড়কের একটি বাসা থেকে প্রায় ১১০০ কেজি বিস্ফোরফসহ দুই ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ। শনিবার গভীর রাত থেকে রোববার ভোর পর্যন্ত ঢাকার ডিবি পুলিশ চট্টগ্রাম নগর পুলিশের সহায়তায় এ অভিযান পরিচালনা করে। সূত্র জানায়, সম্প্রতি ঢাকার ডিবি পুলিশ সন্ত্রাসীদের কাছ থেকে দুই কেজি বিস্ফোরক উদ্ধার করে। এ...