image_241291.sultana_kamal
সুন্দরবন রক্ষা জাতীয় কমিটির আহ্বায়ক ও সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা সুলতানা কামাল বলেছেন, সুন্দরবন শুধু দেশের নয়, বিশ্বেরও সম্পদ। রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্র সুন্দরবনকে ধ্বংস করার প্রায় চূড়ান্ত একটা পদক্ষেপ।
তিনি বলেন, সুন্দরবনকে ক্ষত-বিক্ষত করে বিদ্যুৎ প্রকল্প বাস্তবায়ন করার কোনো প্রয়োজন নেই। অথচ এই প্রকল্পের বিরুদ্ধে কথা বললে তার দেশপ্রেম নিয়ে প্রশ্ন তোলা হচ্ছে।
শনিবার দুপুরে খুলনার উমেশচন্দ্র পাবলিক লাইব্রেরি মিলনায়তনে ‘সুন্দরবন রক্ষায় কনভেনশন’ এ প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।
মানবসৃষ্ট দুর্ভোগ থেকে সুন্দরবনকে রক্ষার জন্য তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটি, সুন্দরবন রক্ষা জাতীয় কমিটি, বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবিদ সমিতি-বেলা, খুলনা নাগরিক সমাজ, সুশাসনের জন্য নাগরিক-সুজন, বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন-বাপা, মংলা নাগরিক সমাজ, ছাপাবৃক্ষ, সিপিডি, মংলা-ঘসিয়াখালী চ্যানেল রক্ষা কমিটি যৌথভাবে এই কনভেনশনের আয়োজন করে।
কনভেনশন উদ্বোধন করেন তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির আহ্বায়ক প্রকৌশলী শেখ মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবেশ বিজ্ঞান ডিসিপ্লিনের অধ্যাপক ড. আবদুল্লাহ হারুন চৌধুরী। এছাড়া পরিবেশ আইনবিদ সমিতির বিভাগীয় সমন্বয়কারী মাহফুজুর রহমান মুকুল ‘সুন্দরবন-উন্নয়ন উদ্যোগ, সম্পদ আহরণে বিধ্বংসী কর্মকাণ্ড এবং প্রভাব বিশ্লেষণ’ শীর্ষক পৃথক আরেকটি প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন।
কনভেনশন শেষে সুন্দরবন রক্ষায় ৪ দফা ঘোষণাপত্র পড়ে শোনান আয়োজক কমিটির সদস্য সচিব অ্যাডভোকেট বাবুল হাওলাদার।
কনভেনশনে আলোচনা করেন সুন্দরবন রক্ষা জাতীয় কমিটির সদস্য সচিব ডা. আবদুল মতিন, পানি বিশেষজ্ঞ প্রকৌশলী ম এনামুক হক, সিডিপির নির্বাহী পরিচালক সৈয়দ জাহাঙ্গীর হাসান মাসুম, তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ রক্ষা জাতীয় কমিটির সংগঠক সরদার রুহিন হোসেন প্রিন্স।

ওয়াজ কুরুনীজাতীয়
সুন্দরবন রক্ষা জাতীয় কমিটির আহ্বায়ক ও সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা সুলতানা কামাল বলেছেন, সুন্দরবন শুধু দেশের নয়, বিশ্বেরও সম্পদ। রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্র সুন্দরবনকে ধ্বংস করার প্রায় চূড়ান্ত একটা পদক্ষেপ। তিনি বলেন, সুন্দরবনকে ক্ষত-বিক্ষত করে বিদ্যুৎ প্রকল্প বাস্তবায়ন করার কোনো প্রয়োজন নেই। অথচ এই প্রকল্পের বিরুদ্ধে কথা বললে তার দেশপ্রেম নিয়ে...