Untitled-61-290x160
বাংলাদেশি কিশোরী ফেলানী হত্যার পুনর্বিচারের রায়েও আসামি অমিয় ঘোষ খালাস পাওয়ায় অসন্তুষ্ট ও মর্মাহত হয়েছেন বর্ডার গার্ড অব বাংলাদেশের (বিজিবি) মহাপরিচালক (ডিজি) মেজর জেনারেল আজিজ আহমেদ। তবে, এ রায়ের পর ফেলানীর বাবা আরও কোনো আইনি পদক্ষেপ নিতে চাইলে বিজিবি তাকে সম্ভাব্য সব সহযোগিতা দেবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

বৃহস্পতিবার (২ জুলাই) দিনগত রাতে ভারতের কোচবিহারে বিএসএফের নিজস্ব আদালতে রায় ঘোষণার পর শুক্রবার (৩ জুলাই) রাতে এ প্রতিক্রিয়া দেন বিজিবির ডিজি।

মেজর জেনারেল আজিজ আহমেদ বলেন, সংবাদমাধ্যমে জেনেছি, ফেলানী হত্যা মামলার আসামি বিএসএফ সদস্য অমিয় ঘোষ খালাস পেয়েছেন। এই রায় শুনে সবার মতো আমিও মর্মাহত। তবে, বিএসএফের পক্ষ থেকে আমরা এখনও আনুষ্ঠানিকভাবে রায় জানতে পারিনি, জানার চেষ্টা করছি। আইন অনুযায়ী বিএসএফের মহাপরিচালকের কাছে রায়ের কপিটি যাবে। তিনি অনুমোদন না দেওয়া পর্যন্ত এ রায় স্বীকৃত হবে না।

বিজিবি মহাপরিচালক বলেন, আইনগত দিক থেকে ফেলানী হত্যার ব্যাপারে আমাদের কিছু করণীয় নেই। তবে, ফেলানীর বাবাকে সব রকমের সহযোগিতা দিতে প্রস্তুত আমরা। এর আগে তিনি বিএসএফের আদালতে সাক্ষ্য দিতে গিয়েছিলেন। তখন বিজিবির পক্ষ থেকে তাকে সব ধরনের সহযোগিতা দেওয়া হয়েছিল। আগামীতেও আমরা তার পাশে থাকবো।

ফেলানীর বাবা কিংবা তার পরিবার যদি আরও কোনো আইনি পদক্ষেপ নিতে চায়, বিজিবি তাদের পাশে থাকবে এবং সম্ভাব্য সব ধরনের সহযোগিতা করবে বলেও জানান মেজর জেনারেল আজিজ আহমেদ।

২০১১ সালের ৭ জানুয়ারি কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার অনন্তপুর সীমান্তে কাঁটাতারের বেড়া পার হওয়ার সময় বিএসএফ সদস্য অমিয় ঘোষের গুলিতে নিহত হয় কিশোরী ফেলানী। এ হত্যাকাণ্ডে সমালোচনার ঝড় উঠলে অমিয় ঘোষকে বিচারের মুখোমুখি করা হয়। কিন্তু গত ২০১৩ সালের ৬ সেপ্টেম্বর বিএসএফের আদালত তাকে নির্দোষ বলে রায় দেয়। এরপর আবেদনের প্রেক্ষিতে পুনর্বিচার হলেও শেষ পর্যন্ত বৃহস্পতিবারের রায়েও খালাস পেলেন অমিয় ঘোষ।

তুনতুন হাসানঅন্যান্য
বাংলাদেশি কিশোরী ফেলানী হত্যার পুনর্বিচারের রায়েও আসামি অমিয় ঘোষ খালাস পাওয়ায় অসন্তুষ্ট ও মর্মাহত হয়েছেন বর্ডার গার্ড অব বাংলাদেশের (বিজিবি) মহাপরিচালক (ডিজি) মেজর জেনারেল আজিজ আহমেদ। তবে, এ রায়ের পর ফেলানীর বাবা আরও কোনো আইনি পদক্ষেপ নিতে চাইলে বিজিবি তাকে সম্ভাব্য সব সহযোগিতা দেবে বলে জানিয়েছেন তিনি। বৃহস্পতিবার (২ জুলাই)...