f9794c43afcb922cecdc70a8aedf67bc-16

সুতি শাড়ির সঙ্গে হাত কাটা ব্লাউজ, কপালে টিপ—শম্পা রেজার চিরচেনা সাজ। ছবি: সুমন ইউসুফভালোবাসেন নানা ধরনের গয়না পরতে। শাড়ি পরলেই টিপ দেবেন কপালে। প্রতিদিন সকালে রেয়াজ করেন। এই হচ্ছেন অভিনেত্রী শম্পা রেজা। তাঁর ফিট থাকার রহস্য হচ্ছে—ইয়োগা।

সুতি শাড়ির সঙ্গে হাতা কাটা ব্লাউজ আর কপালে আঁকা টিপ। অভিনেত্রী শম্পা রেজার স্টাইলটা এমনই। অভিনয়ের বাইরে সাধারণত শাড়ি পরতেই বেশি পছন্দ করেন। গরম মানেই শাড়ির সঙ্গে মানানসই হাতা কাটা ব্লাউজ। আরও অনেক কাপড়ই পরেন। এই যেমন প্রচুর হাঁটাহাঁটি করেন বলে জিনস প্যান্ট, স্কার্ট, টি-শার্ট, টপ—এগুলো থেকে বেছে নেন ইচ্ছেমতো।
জিনস-টপও তাঁর ভালো লাগেউত্তরায় তাঁর বাসায় কথা শুরু হতেই শম্পা রেজা বলেন, ‘আমাদের দেশের সুতি শাড়ির তুলনা হয় না। বিশেষ করে যাত্রা, দেশাল, আড়ং, রঙ, সাদা-কালো, বিবিয়ানা, স্টুডিও এমদাদ—এদের শাড়ির ভিষণ ভক্ত আমি। এসব শাড়ির সঙ্গে মিলিয়ে নানা ধরনের গয়না পরি।’ তবে সেগুলো সোনার না। নানা ধরনের পুঁতি, কড়ি, পাট, কাপড়, রুপা, তামা দিয়ে বানানো হয় সেসব গয়না।
অনুষ্ঠানের ধরন বুঝেই পোশাক নির্বাচন করেন শম্পা রেজা। জিন্স পরে যেমন রবীন্দ্রসংগীত শুনতে যাবেন না, তেমনি শাড়ি পরে যাবেন না বাজার করতে। বিভিন্ন দেশের আদিবাসীদের গয়না আছে সংগ্রহে। বন্ধুরাও প্রচুর গয়না বানিয়ে দেয়। ‘আমার অনেক বন্ধু আছে, যারা ছবি আঁকে বা ভাষ্কর্য গড়ে। ওরা নানা ধরনের জিনিস দিয়ে আমাকে গয়না বানিয়ে দেয়। আর আমি যেহেতু ছবি আঁকি না, তাই নিজের শরীরকে ক্যানভাস মনে করি। এরপর নানা রং দিয়ে (গয়না, পোশাক) রঙিন করে তুলি সেই ক্যানভাস।’ বলতে বলতেই হাসলেন শম্পা রেজা। পায়ের কাছের পাটিতে তখন গুটিসুটি মেরে বসেছে বাড়ির সবার আদরের পোষা প্রাণী রোদ।
রোদের গায়ে হাত বোলাতে বোলাতেই শম্পা রেজা বলেন, ‘রোদ আমার সারাক্ষণের সঙ্গী।’ প্রতিদিন নিয়ম করে তাকে নিয়ে হাঁটতে যান বাইরে। এরই মধ্যে রোদও তারকা হয়ে উঠেছে। শম্পা রেজা জানালেন, রোদ তো দু-তিনটা ধারাবাহিকে অভিনয় করেছে। মুক্তির তালিকায় আছে সুইটহার্ট নামের একটি চলচ্চিত্র। যেখানে শম্পার সঙ্গেই অভিনয় করেছে রোদ।
প্রতিদিনের রুটিন প্রসঙ্গ আসতেই জানা গেল, এখনো নিয়মিত রেয়াজ করেন শান্তিনিকেতনের সংগীতে পড়াশোনা করা এই অভিনেত্রী। সকালে উঠে কফি খেয়েই রেয়াজে বসেন। এরপর বাসার কী রান্না হবে, তার তদারক করে শুটিং থাকলে বেরিয়ে যান। যেদিন শুটিং থাকে না, সেদিন কাটে ভিন্নভাবে।
শম্পা রেজা বলেন, ‘এক বছর হলো আমার নাতনি স্বরণীয়ার আগমনে রুটিন পাল্টে গেছে। এখন অনেকটা সময় কাটে তার সঙ্গে গান শুনে, বই পড়ে, খেলে, আড্ডা দিয়ে।’ এসবের বাইরে বাজার করা, ঘর গোছানো—এসব কাজও ভালোবেসেই করি। অনেক বছর ধরেই মাংস খান না। সবজি আর মাছ দিয়েই ভাত খেতে ভালোবাসেন। হাঁটা ছাড়াও প্রতিদিন ইয়োগা করেন। ফেসবুকে তাঁর নামে অনেকগুলো আইডি থাকলেও সবগুলোই ভুয়া। ‘আমি ফেসবুকে নাই।’ সাফ জানিয়ে দিলেন।

হীরা পান্নালাইফ স্টাইল
সুতি শাড়ির সঙ্গে হাত কাটা ব্লাউজ, কপালে টিপ—শম্পা রেজার চিরচেনা সাজ। ছবি: সুমন ইউসুফভালোবাসেন নানা ধরনের গয়না পরতে। শাড়ি পরলেই টিপ দেবেন কপালে। প্রতিদিন সকালে রেয়াজ করেন। এই হচ্ছেন অভিনেত্রী শম্পা রেজা। তাঁর ফিট থাকার রহস্য হচ্ছে—ইয়োগা। সুতি শাড়ির সঙ্গে হাতা কাটা ব্লাউজ আর কপালে আঁকা টিপ। অভিনেত্রী শম্পা রেজার...