Oporadher Dairy Theke
লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার টংভাঙ্গা ইউনিয়নের পশ্চিম বেজগ্রাম এলাকায় আজ বুধবার ভোরে যৌতুকের টাকা না পেয়ে মুন্নি আক্তার (১৯) নামে এক নববধূকে গলাটিপে হত্যা করেছে পাষণ্ড স্বামী।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার পশ্চিম বেজগ্রাম এলাকার পল্লী চিকিত্সক জাদু মিয়ার ছেলে হারুনের সঙ্গে পার্শ্ববর্তী ইউনিয়নের দক্ষিণ সিন্দুর্না গ্রামের মতিয়ার রহমান মন্টুর মেয়ে মুন্নি আক্তারের বিয়ে হয় ৬ মাস আগে। বিয়ের পর থেকে যৌতুক ও স্বর্ণালংকারের জন্য হারুন মুন্নিকে নির্যাতন করে আসছিল।

আজ বুধবার ভোর রাতে এ নিয়ে হারুন-মুন্নির কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে হারুন মুন্নিকে গলাটিপে হত্যা করে। ঘটনার পরপরই হারুন ও তার বাবা পল্লী চিকিত্সক জাদু মিয়া পলাতক।

মুন্নির মা জেসমিন আক্তার অভিযোগ করে বলেন, বিয়ের পর থেকেই যৌতুকের দাবিতে তার মেয়েকে নির্যাতন করে আসছিল হারুন। বুধবার ভোর রাতে বাবার বাড়ি থেকে আরো টাকা আনতে বললে মুন্নি টাকা আনতে অস্বীকৃতি জানায়। এক পর্যায়ে হারুন মুন্নিকে গলাটিপে হত্যা করে।

হাতীবান্ধা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল মতিন সরকার বলেন, ‘মুন্নির গলায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে।

শুভ সমরাটঅপরাধের ডায়েরী থেকে
লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার টংভাঙ্গা ইউনিয়নের পশ্চিম বেজগ্রাম এলাকায় আজ বুধবার ভোরে যৌতুকের টাকা না পেয়ে মুন্নি আক্তার (১৯) নামে এক নববধূকে গলাটিপে হত্যা করেছে পাষণ্ড স্বামী। পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার পশ্চিম বেজগ্রাম এলাকার পল্লী চিকিত্সক জাদু মিয়ার ছেলে হারুনের সঙ্গে পার্শ্ববর্তী ইউনিয়নের দক্ষিণ সিন্দুর্না গ্রামের মতিয়ার রহমান মন্টুর মেয়ে...