Chora
সাতক্ষীরার ভোমরা সড়কের নবাদকাটিতে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ আজহারুল ইসলাম নামের নামের এক ব্যক্তিকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় গ্রেফতার করা হয়েছে। পুলিশ বলছে, গুলিবিদ্ধ আজহার একজন মাদক ও অস্ত্র চোরাকারবারী।
পুলিশের দাবি, ‘বন্দুকযুদ্ধে’ তাদের দুই সদস্য আহত হয়েছেন। এছাড়া ঘটনাস্থল থেকে একটি ওয়ান শ্যুটার গান, দুই রাউন্ড গুলি ও ২০ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়েছে। সোমবার রাত ১০ টায় বন্দুকযুদ্ধের এ ঘটনা ঘটে ।
সাতক্ষীরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এমদাদ শেখ ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে জানান ‘ভারত থেকে চোরাচালানিরা অস্ত্র ও মাদক পাচার করছে গোপন সূত্রে পাওয়া এমন খবরের ভিত্তিতে গোয়েন্দা পুলিশের সহায়তায় এসআই অহিদুজ্জামান ও এসআই লিটন বিশ্বাসের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে অবস্থান নেয়’। পুলিশের দলটি সেখানে পৌঁছাতেই চোরচালানিরা তাদের লক্ষ করে এলোপাতাড়ি গুলি করা ছাড়াও কয়েকটি হাত বোমার বিস্ফোরণ ঘটায়। পুলিশও পাল্টা জবাবে সাত রাউন্ড গুলি ছোড়ে।
তিনি জানান, ১০/১২ মিনিট ধরে ‘বন্দুকযুদ্ধের’ পর এক ব্যক্তিকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় গ্রেফতার করা হয়। গুলিবিদ্ধ ব্যক্তি আজহারুল ইসলাম (৩২) সদর উপজেলার হাড়দ্দহা গ্রামের রহিম বকসের ছেলে বলে ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে জানিয়েছে পুলিশ।
ওসি জানান, আজহারুল একজন পেশাদার অস্ত্র ও মাদক চোরাকারবারী। তার বিরুদ্ধে সদর থানায় ছয়টি চোরাচালান মামলা রয়েছে।
এ ঘটনায় আহত দুই পুলিশ কন্সটেবল শরিফুল ইসলাম ও রফিকুল ইসলামকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে এবং গুলিবিদ্ধ আজহারুল ইসলামকে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে পুলিশ পাহারায় ভর্তি করা হয়েছে বলে জানায় পুলিশ।

তুনতুন হাসানচোরাচালানের খবর
সাতক্ষীরার ভোমরা সড়কের নবাদকাটিতে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ আজহারুল ইসলাম নামের নামের এক ব্যক্তিকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় গ্রেফতার করা হয়েছে। পুলিশ বলছে, গুলিবিদ্ধ আজহার একজন মাদক ও অস্ত্র চোরাকারবারী। পুলিশের দাবি, ‘বন্দুকযুদ্ধে’ তাদের দুই সদস্য আহত হয়েছেন। এছাড়া ঘটনাস্থল থেকে একটি ওয়ান শ্যুটার গান, দুই রাউন্ড গুলি ও ২০ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার...