1_88136
আগামী ১ সেপ্টেম্বর থেকে ভোটারদের নির্ধারিত ফি জমা দিয়েই জাতীয় পরিচয়পত্র সংক্রান্ত সেবা নিতে হবে। এক্ষেত্রে ১০০ থেকে এক হাজার টাকা পর্যন্ত ফি নির্ধারণ করেছে নির্বাচন কমিশন।

নির্বাচন কমিশন সচিব মো. সিরাজুল ইসলাম বৃহস্পতিবার দুপুরে ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে বলেন, ‘জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন ও নবায়নের জন্য ১ সেপ্টেম্বর থেকে নাগরিকদের নির্ধারিত ফি জমা দিতে হবে। এ সংক্রান্ত গেজেট আজ প্রকাশ করা হতে পারে। তবে ৩১ জুলাই পর্যন্ত নাগরিকদের কোনো ফি দিতে হবে না’

তিনি বলেন, ‘এখনো নথি বিজি প্রেসে পাঠানো হয়নি। আশা করছি আজই পাঠানো হবে।’

ইসি জানায়, পরিচয়পত্র নষ্ট বা হারিয়ে ফেললে নতুন পরিচয়পত্র সংগ্রহের ক্ষেত্রে ইসির জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগ বরাবর আবেদন করতে হবে। তবে ফি ইসি সচিব বরাবর পে অর্ডার বা অনলাইন ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে জমা দিতে হবে।

ইসি সূত্রে জানা গেছে, জাতীয় পরিচয়পত্র নবায়নে সাধারণ ১০০ টাকা ও জরুরি ভিত্তিতে হলে ১৫০ টাকা ফি দিতে হবে। নষ্ট ও হারিয়ে ফেলে নতুন পরিচয়পত্র সংগ্রহ করার ক্ষেত্রে সাধারণ সময়ে প্রথমবার ২০০ টাকা, জরুরি ভিত্তিতে ৩০০ টাকা।

এ ছাড়া দ্বিতীয়বার সাধারণ সময়ে ৩০০ টাকা, জরুরি সময়ে ৫০০ টাকা এবং পরবর্তী যে কোনো সাধারণ সময়ে ৫০০ টাকা ও জরুরি ভিত্তিতে এক হাজার টাকা ফি দিতে হবে।

২০০৭ সালে সেনা সমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় জাতীয় পরিচয়পত্র প্রদানের প্রকল্প শুরু করে ইসি। বর্তমানে ইসির সার্ভারে প্রায় ৯ কোটি ৬২ লাখ ভোটারের তথ্য সংরক্ষিত আছে। প্রতিদিনই এটা বাড়ছে। এছাড়া অসংখ্য ভোটারের জাতীয় পরিচয়পত্রে ভুল রয়েছে। যা ঠিক করতে নির্বাচন কমিশনের সংশ্লিষ্ট দপ্তরে প্রতিদিনই জমা পড়ছে শত শত আবেদন।

তুনতুন হাসানশেষের পাতা
আগামী ১ সেপ্টেম্বর থেকে ভোটারদের নির্ধারিত ফি জমা দিয়েই জাতীয় পরিচয়পত্র সংক্রান্ত সেবা নিতে হবে। এক্ষেত্রে ১০০ থেকে এক হাজার টাকা পর্যন্ত ফি নির্ধারণ করেছে নির্বাচন কমিশন। নির্বাচন কমিশন সচিব মো. সিরাজুল ইসলাম বৃহস্পতিবার দুপুরে ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে বলেন, 'জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন ও নবায়নের জন্য ১ সেপ্টেম্বর থেকে নাগরিকদের নির্ধারিত...