বিশেষ প্রতিবেদক ।
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণ যারা নিষিদ্ধ করেছিল তারা ইতিহাসের আস্তাকুড়ে নিক্ষিপ্ত হয়েছে।খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের।

তিনি বলেন, ঐতিহাসিক ৭ মার্চ ও মুক্তিযুদ্ধ একই সূত্রে গাঁথা। কারণ বঙ্গবন্ধুর এ ভাষণের মাধ্যমে পুরো জাতি অনুপ্রাণিত হয়ে মুক্তির সংগ্রামে ঝাঁপিয়ে পড়েছিল।

কাদের আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুর এ ভাষণই ছিল কার্যত স্বাধীনতার ঘোষণা। ২৫ মার্চ বঙ্গবন্ধু পাকিস্তান হানাদার বাহিনীর গণহত্যা শুরুর পর আনুষ্ঠানিকভাবে স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়েছিলেন।

ওবায়দুল কাদের আজ সকালে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উপলক্ষে রাজধানীর ধানমন্ডির বঙ্গবন্ধু ভবনের সামনে রক্ষিত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে এ কথা বলেন।

তিনি কাদের বলেন, বঙ্গবন্ধুর এ ভাষণ আগে শুধুমাত্র আমাদের সম্পদ ছিল। এ ভাষণ জাতিসংঘের ইউনেস্কোর বিশ্ব ঐতিহ্যের প্রামাণ্য দলিল হিসেবে নিবন্ধিত হওয়ার পর তা সারাবিশ্বের সম্পদে পরিণত হয়েছে।

তিনি বলেন, এ ভাষণকে দেশের তৃণমূলের তরুণ প্রজন্মের মধ্যে ছড়িয়ে দিতে হবে। তাহলেই দেশের তৃণমূলে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা পৌঁছে যাবে।
খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের।

http://crimereporter24.com/wp-content/uploads/2018/03/46.jpghttp://crimereporter24.com/wp-content/uploads/2018/03/46-300x300.jpgশিশির সমরাটজাতীয়
বিশেষ প্রতিবেদক । আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণ যারা নিষিদ্ধ করেছিল তারা ইতিহাসের আস্তাকুড়ে নিক্ষিপ্ত হয়েছে।খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের। তিনি বলেন, ঐতিহাসিক ৭ মার্চ ও মুক্তিযুদ্ধ একই সূত্রে গাঁথা। কারণ বঙ্গবন্ধুর এ ভাষণের মাধ্যমে পুরো জাতি অনুপ্রাণিত...