1439620462
১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট ভয়াল রাতে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্ব-পরিবারে হত্যার ৪০ বছরেও অধরাই রয়ে গেল ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত পলাতক আসামি কর্নেল আব্দুর রশিদ।

কুমিল্ল­ার চান্দিনা উপজেলার ছয়ঘড়িয়া গ্রামের মরহুম আব্দুল করিম খন্দকার এর ছেলে কর্নেল আব্দুল রশিদ দেশ ত্যাগ করার ১৯ বছরও দেশে ফিরিয়ে এনে রায় কার্যকর করা যায়নি।

বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলার ১৭ আসামির মধ্যে ২০১০ সালের ২৮ জানুয়ারি পাঁচ খুনির রায় কার্যকর করা সম্ভব হলেও অন্যতম খুনি রশিেদের ঠিকানা এখনও নিশ্চিত করতে পারেনি সংশ্লিষ্ট মন্ত্রনালয়। এতে ক্ষুব্ধ চান্দিনাবাসী। তারা খুনি রশিদ এর ফাঁসি কার্যকরের মধ্যে দিয়ে চান্দিনাকে কলঙ্ক মুক্ত করতে চায়।

এ ব্যাপারে চান্দিনা উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা তপন বক্সী জানান, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারের সদস্যদের হত্যাকারীদের মধ্যে পাঁচ জনের ফাঁসি কার্যকরে করে জাতি কিছুটা কলঙ্গ মুক্ত হলেও আমরা চান্দিনাবাসী ৪০ বছরেও কলঙ্ক মুক্ত হয়নি। ওই খুনি যেখানে যে অবস্থায়ই থাকুক না কেন তাকে দ্রুত দেশে ফিরিয়ে এনে রায় কার্যকরের মাধ্যমে চান্দিনাবাসীকে ইতিহাসের কলঙ্কের গ্লানি থেকে মুক্ত করতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট আহ্বান জানাই।

এদিকে, আদালতের নির্দেশে চলতি বছরের ১৪ জুন খুনি রশিদ এর চান্দিনার ছয়ঘড়িয়ার নিজ বাড়িসহ সকল স্থাবর সকল সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করে সরকার। বর্তমানে ওই বাড়িটি ভুতুরে বাড়িতে পরিণত হয়েছে।

হাসন রাজাঅন্যান্য
১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট ভয়াল রাতে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্ব-পরিবারে হত্যার ৪০ বছরেও অধরাই রয়ে গেল ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত পলাতক আসামি কর্নেল আব্দুর রশিদ। কুমিল্ল­ার চান্দিনা উপজেলার ছয়ঘড়িয়া গ্রামের মরহুম আব্দুল করিম খন্দকার এর ছেলে কর্নেল আব্দুল রশিদ দেশ ত্যাগ করার ১৯ বছরও দেশে ফিরিয়ে এনে রায়...