sb-290x179
কোরবানির ঈদ উপলক্ষে আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে লঞ্চের টিকিট বিক্রি শুরু হবে। রাজধানীর সদরঘাটের নৌ-টার্মিনালের পশ্চিমপাশে নির্মাণাধীন নতুন ভবন থেকে এ টিকিট বিক্রি করা হবে। টিকিট ছাড়া যাত্রীদের কোনোভাবেই লঞ্চে উঠতে দেওয়া হবে না। অতিরিক্ত যাত্রী পরিবহন করলে লঞ্চ মালিকের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মঙ্গলবার দুপুরে নৌপরিবহণ মন্ত্রণালয় আয়োজিত বিআইডব্লিইউটিএর মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতি মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত আসন্ন ঈদে সুষ্ঠু ও নিরাপদ চলাচল নিশ্চিতকরণ বিষয়ক এক বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন নৌপরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান।

বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়, ঈদে সব যাত্রীকে টিকিট কিনে লঞ্চে উঠতে হবে। অতিরিক্ত যাত্রীর চাপ থাকলে ফেরির মাধ্যমে নিরাপদে যাত্রী পারাপার করা হবে। ঈদ উপলক্ষে ঈদের আগে তিন দিন ও পরের তিন দিন নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য ছাড়া সব ধরনের ট্রাক, কাভার্ড ভ্যান ফেরি পারাপার বন্ধ থাকবে। শুধু গরুবাহী ও পেঁয়াজের ট্রাক পারাপারে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দেওয়া হবে।

বৈঠক শেষে নৌমন্ত্রী শাজাহান খান বলেন, ‘এবার ঈদুল আজহায় যাত্রী নিরাপদে পৌছে দেওয়া আমাদের অন্যতম লক্ষ্য। যাত্রী পরিবহনের বিষয়ে আমাদের কড়া নজরদারি থাকবে, যেন কোনো প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে।’

তিনি বলেন, কোনো অবস্থায় লঞ্চের ছাদে যাত্রী উঠতে দেওয়া হবে না। কড়াকড়ির কারণে ঈদুল ফিতরে নির্বিঘ্নে যাত্রী পরিবহন সম্ভব হয়েছে বলে দাবি করেন তিনি।

নৃপেন পোদ্দারজাতীয়
কোরবানির ঈদ উপলক্ষে আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে লঞ্চের টিকিট বিক্রি শুরু হবে। রাজধানীর সদরঘাটের নৌ-টার্মিনালের পশ্চিমপাশে নির্মাণাধীন নতুন ভবন থেকে এ টিকিট বিক্রি করা হবে। টিকিট ছাড়া যাত্রীদের কোনোভাবেই লঞ্চে উঠতে দেওয়া হবে না। অতিরিক্ত যাত্রী পরিবহন করলে লঞ্চ মালিকের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। মঙ্গলবার দুপুরে নৌপরিবহণ মন্ত্রণালয় আয়োজিত...