95702_x5
সংযুক্ত আরব আমিরাত থেকে দেশে ১০৩৯ দিরহাম পাঠানোর কিছুক্ষণ পরই ১০ লাখ দিরহামের বিশাল পুরস্কার জিতে নিয়েছেন এক ভাগ্যবান বাংলাদেশী গ্রাহক। মুহূর্তেই তিনি হয়ে গেলেন লাখপতি আর বাংলাদেশী অর্থে হিসাব করলে কোটিপতি! বাংলাদেশী মুদ্রায় ওই পুরস্কারের মূল্যমাণ প্রায় ২ কোটি ১১ লাখ টাকা! মিজানুর রহমান আবদুল ওয়াহাব নামে ওই বাংলাদেশী আবুধাবীর একটি খামারে ২০ বছর ধরে কাজ করেন। এ খবর দিয়েছে আরব আমিরাতের পত্রিকা দ্য ন্যাশনাল। সংযুক্ত আরব আমিরাতভিত্তিক বিশ্বব্যাপী অর্থ আদান-প্রদানের প্রতিষ্ঠান আল আনসারীর একটি বিশেষ ক্যাম্পেইনের অধীনে ওই পুরস্কার পান মিজানুর। এ অর্থে নিজের বাড়ি বানানো ও নিজস্ব ব্যবসা শুরুর স্বপ্নপূরণ হবে তার। প্রায় ২০ বছর ধরে প্রতি মাসে ৬০০ দিরহামের বিনিময়ে আবুধাবীতে কাজ করতেন তিনি। মিজানুর বলেন, আমার স্বপ্ন ছিল একটি বাড়ি বানানো আর আমার বাবার পুরনো বাড়িটি নতুন মেরামত করা। এখন তার পরিকল্পনা নিজ দেশে পৌঁছে নিজ পরিবারকে সহায়তা করা। বিশেষ করে নিজের ৬ বোনকে। তিনি বলেন, আমি আমার ছেলেমেয়েদের ভালভাবে পড়াশোনা করাতে পারবো। নিজের একটি ব্যবসা দাঁড় করাতে পারবো। এতে আমার গ্রামের অনেক তরুণের জীবনে ইতিবাচক পরিবর্তন আসবে। মিজানুর নিজে প্রাথমিক স্কুলের পর আর পড়াশোনা চালিয়ে যেতে পারেননি। তিনি বলেন, আমি এ টাকায় একটি গাড়ি কিনার কথা ভাবছি। যাতে করে দেশজুড়ে ভ্রমণ করা যায়। ১৯৯৬ সালে আবুধাবীতে গিয়েছিলেন মিজানুর। তার পিতাও সেখানে ৮ বছর কাজ করেন। মিজানুরের হাতে ১০ লাখ দিরহামের চেক তুলে দেয়ার পর তিনি বলেন, যে জীবন তিনি চিনতেন, তা পরিবর্তিত হতে যাচ্ছে।

http://crimereporter24.com/wp-content/uploads/2015/10/95702_x5.jpghttp://crimereporter24.com/wp-content/uploads/2015/10/95702_x5-300x207.jpgহীরা পান্নাএক্সক্লুসিভ
সংযুক্ত আরব আমিরাত থেকে দেশে ১০৩৯ দিরহাম পাঠানোর কিছুক্ষণ পরই ১০ লাখ দিরহামের বিশাল পুরস্কার জিতে নিয়েছেন এক ভাগ্যবান বাংলাদেশী গ্রাহক। মুহূর্তেই তিনি হয়ে গেলেন লাখপতি আর বাংলাদেশী অর্থে হিসাব করলে কোটিপতি! বাংলাদেশী মুদ্রায় ওই পুরস্কারের মূল্যমাণ প্রায় ২ কোটি ১১ লাখ টাকা! মিজানুর রহমান আবদুল ওয়াহাব নামে ওই...