কুমিল্লা অফিস । হোমনা প্রতিনিধি
হোমনা উপজেলার রামকৃষ্ণপুর বাজারে অগ্নিকাণ্ডে ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হয়েছে। অগ্নিকাণ্ডে ২৫টি দোকান সম্পূর্ণ ভস্মিভূত হয়ে তিন কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি করছেন ক্ষতিগ্রস্ত মালিক ও ব্যবসায়ীরা। এছাড়া আগুনের আঁচে আশ-পাশের আরো কয়েকটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ক্ষতির খবর পাওয়া গেছে। খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের।

আজ রবিবার রাত ৯টার দিকে রামকৃষ্ণপুর দুধ বাজারে এ অগ্নিকাণ্ড ঘটে। প্রথমে সাধারণ জনতা আগুন নেভানোর চেষ্টা চালায়। পরে একে একে পার্শ্ববর্তী বাঞ্ছারামপুর, হোমনা ও মুরাদনগর ফায়ার সার্ভিসের তিনটি টিম দুই ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

স্থানীয়দের অভিযোগ, আগুন লাগার অন্তত এক ঘণ্টা পর ফায়ার সার্ভিস ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছায়। ভিড় সামলাতে হোমনা থানার ওসি রসুল আহমেদ নিজামী ও পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) কাজী নাজমুল হকের নেতৃত্বে পুলিশ বাহিনীর সদস্যরা দায়িত্ব পালন করেছেন।

অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ী তারেক এন্টারপ্রাইজের মালিক মো. এনামুল হক ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে বলেন, আমার দুইটি স্যানেটারি, ইলেকট্রিক, গ্যাস সরঞ্জামের দোকান ও গোডাউনের ৭০ লাখ টাকার মালামাল এবং প্রায় ৭৫ লাখ টাকার বকেয়া হিসাবের খাতা, শিবলী এন্টারপ্রাইজের মালিক আবদুল হালিম বলেন, তার সব শেষ হয়ে গেছে। তাদের দুইটি দোকানের প্রায় ৭০ লাখ টাকার টিভি-ফ্রিজ সম্পূর্ণ পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।

এছাড়া বিসমিল্লাহ ইলেকট্রিকের ১০ লাখ টাকা, মোস্তফার ফার্নিচার দোকান প্রায় ১০ লাখ, তানিয়া ক্রোকরিজের ২০ লাখ, আদিবা টেপলিকম ৫ লাখ, মায়ের দোয়া বস্ত বিতান ১০ লাখ, মোল্লা ফ্যাশন ৭ লাখ, হোমিও ফার্মেসি ৫০ হাজার, আমির হোসেনের ক্রোকারিজ ১০ লাখ, পলাশ স্টুডিও ৫ লাখ, জুতার দোকান ২ লাখ, জাহাঙ্গীর আলমের সানমুন টেইলার্স ৩ লাখ, সেন্টু মিয়ার কাপড়ের দোকান ৭ লাখ, দুলাল মিয়ার বস্ত্র বিতান ৫ লাখ, শহিদুল্লাহর সরকার এন্টারপ্রাইজ ৩ লাখ, আমজাদ হোসেনের অ্যারাবিয়ান টেইলার্স ৮ লাখ, রবি মুন্সির কাপড়ের দোকান ৩ লাখ, একটি পাইকারী মুদি দোকান ২০ লাখ, বলাইয়ের কাপড়ের দোকান ৫ লাখ, মোশারফ হোসেনের আলখামিস ইলেকট্রিক ১০ লাখ, ফার্মেসি ৮ লাখ, জয়নাল হার্ডওয়্যার ৪ লাখ টাকার মালাামালসহ প্রায় তিন কোটি টাকার মালামাল সম্পূর্ণ ভস্মিভূত হয়।

উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মো. আজিজুর রহমান মোল্লা ও ইউএনও খান মো. নাজমুস শোয়েব ও উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি অধ্যক্ষ আবদুল মজিদ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

হোমনা ফায়ার সার্ভিস স্টেশন ইনচার্জ মো. আক্তারুজ্জামান ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে বলেন, রাস্তা ভালো না হওয়ায় ঘটনাস্থলে পৌঁছতে দেরি হয়েছে। সঠিক তদন্ত ছাড়া অগ্নিকাণ্ডের কারণ এবং ক্ষতির পরিমান বলা যাচ্ছে না।

ফায়ার সর্ভিস এর কারণ জানাতে না পারলেও স্থানীয়রা মনে করছেন, বৈদ্যুতিক সর্ট সার্কিট অথবা গ্যাসের সিলিন্ডার বিস্ফোরণে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হতে পারে।
খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের।

http://crimereporter24.com/wp-content/uploads/2018/06/101.jpghttp://crimereporter24.com/wp-content/uploads/2018/06/101-300x300.jpgজান্নাতুল ফেরদৌস মেহরিনস্বদেশের খবর
কুমিল্লা অফিস । হোমনা প্রতিনিধি হোমনা উপজেলার রামকৃষ্ণপুর বাজারে অগ্নিকাণ্ডে ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হয়েছে। অগ্নিকাণ্ডে ২৫টি দোকান সম্পূর্ণ ভস্মিভূত হয়ে তিন কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি করছেন ক্ষতিগ্রস্ত মালিক ও ব্যবসায়ীরা। এছাড়া আগুনের আঁচে আশ-পাশের আরো কয়েকটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ক্ষতির খবর পাওয়া গেছে। খবর ক্রাইম...