1438426485
দেখা এক খোয়াবো মে যো সিলসিলে হুয়ে… দুর তাক নিগাহো মে গুল খিলে হুয়ে… এই গানটি শুনলেই ‘সিলসিলা’ কেন আজও নাড়া দেয় মনের ভেতরে? এর উত্তর হয়ত অমিতাভ জানেন, জানেন রেখাও। আর পাশাপাশি থেকে এর উত্তর জেনেছেন অমিতাভ-পত্নী জয়া বচ্চনও। নীরবে-নিভৃতে কিছু স্মৃতি মনকে নাড়া দিয়ে যায়। এই ৭৬ বছর বয়সে এসে বলিউড অভিনেতা অমিতাভ বচ্চন কিছুটা যেন স্মৃতিকাতরই হয়ে পড়েছেন। নইলে, কেনইবা ‘সিলসিলা’র ৩৪ বছর পরে এসে পোস্ট করবেন সিলসিলা ছবির সে সময়কার স্মৃতিমধুর ছবিগুলো!

সিলসিলা ছবির কথা বললেই সেই বিখ্যাত ত্রিভুজ প্রেমের কাহিনি যেন চোখের সামনে ভেসে ওঠে। অমিতাভ, জয়া ভাদুড়ি আর রেখাকে নিয়ে এ ছবি নির্মাণ করেছিলেন যশ চোপড়া। বলা হয়, অমিতাভ-রেখা-জয়ার ব্যক্তিজীবনের গল্পই যেন ফুটে উঠেছে এ ছবিতে। ১৯৮১ সালের ২৯ জুলাই মুক্তি পেয়েছিল ছবিটি। ৩৪ বছর পরে এসে নিজের ব্লগে অমিতাভ বচ্চন সিলসিলা নিয়ে তাঁর স্মৃতিকথা লিখলেন, টুইটারে পোস্ট করলেন সিলসিলার কিছু ছবিও। এমন একটি ছবি পোস্ট করলেন যেখানে সিলসিলার সেই তুমুল জনপ্রিয়তা পাওয়া ‘ইয়ে কাহা আ গ্যায়ে হাম’ গানটির একটি অন্তরঙ্গ দৃশ্যে দেখা যাচ্ছে রেখা-অমিতাভকে।

‘সিলসিলা’ ছবিতে অভিনয় করার পর আর কখনোই একসঙ্গে কোনো ছবিতে দেখা যায়নি অমিতাভ-রেখাকে। যদিও সাম্প্রতিকালের শামিতাভ ছবিতে দুজন ছিলেন, কিন্তু তাঁদের দুজনকে এক দৃশ্যে আর দেখা যায়নি!

তবে কী সিলসিলা’র সেই রেখাকে আজ মনে পড়ছে অমিতাভের? স্মৃতিকাতর অমিতাভের মনের কোণে নিশ্চয়ই সেই তরুণ বয়সের রোমান্টিক দিনগুলোর ছবি ভেসে উঠছে আর এখনকার সোশ্যাল মিডিয়ার যুগে তাই শেয়ার করে ভক্তদের জানিয়ে দিচ্ছেন তিন দশক আগের সেই ‘সিলসিলা’র কথা। যা তাঁর জীবনে একবারই ঘটেছিল। কিন্তু যা আজও পরম্পরায় ঘটে চলেছে। সিলসিলার অর্থও যে তাই- পরম্পরা।

তাহসিনা সুলতানাবিনোদন
দেখা এক খোয়াবো মে যো সিলসিলে হুয়ে... দুর তাক নিগাহো মে গুল খিলে হুয়ে... এই গানটি শুনলেই ‘সিলসিলা’ কেন আজও নাড়া দেয় মনের ভেতরে? এর উত্তর হয়ত অমিতাভ জানেন, জানেন রেখাও। আর পাশাপাশি থেকে এর উত্তর জেনেছেন অমিতাভ-পত্নী জয়া বচ্চনও। নীরবে-নিভৃতে কিছু স্মৃতি মনকে নাড়া দিয়ে যায়। এই ৭৬...