92373_thumb_f2
সিরিয়ায় নিহত বৃটিশ নাগরিক আইএস জঙ্গি রুহুল আমিনই কি রাকিব আমিন- এ নিয়ে জোর গুঞ্জন শুরু হয়েছে মৌলভীবাজার সদর উপজেলার ঘড়ুয়া গ্রামে। রাকিবের মৃত্যুর সংবাদ শুনে তার গ্রামের বাড়ির মসজিদে দোয়াও পড়ানো হয়েছে। তবে এ বিষয়ে মুখ খুলছেন না কেউই। গত বুধবার সরজমিন ওই গ্রামের বিভিন্নজনের সঙ্গে কথা বলে এ তথ্য পাওয়া গেছে। রাকিব আমিনের পিতার নাম আবদুর রউফ। পরিবার-পরিজন নিয়ে থাকেন স্কটল্যান্ডে। রাকিবরা ৫ ভাই-বোন। বড়ভাই আল-আমিন বিবাহিত। প্রায় ৫ বছর আগে পরিবারের সঙ্গে বাড়ি এসেছিলেন রাকিব। তার এক চাচা সপরিবারে বৃটেনে থাকেন। আড়াই বছর আগে পিতা আবদুর রউফ একা বাড়ি ঘুরে যান। আবদুর রউফের বাড়িতে থাকেন কেয়ার টেকার নুরুল ইসলাম পরিবার নিয়ে। কথা হয় নুরুল ইসলামের সঙ্গে। তিনি ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে জানান তার বাড়ি ময়মনসিংহের ইশ্বরগঞ্জের হারিশ্বর গ্রামে। রাকিবের কথা শুনেছেন তবে দেখেননি। একটি পত্রিকায় প্রকাশিত রাকিবের ছবি দেখালে চিনতে পারেন নুরুল ইসলাম। জানান, লোকমুখে শুনেছেন পত্রিকায় লেখা হয়েছে রাকিব সিরিয়ায় মারা গেছেন। তবে রাকিবের পিতা আবদুর রউফ তার ছেলে আবদুল্লাহর কাছে ফোন করলেও এই বিষয় কিছু জানাননি। গ্রাম ঘুরে কথা হয় বিভিন্নজনের সঙ্গে। কেউ মুখ খুলে কিছু বলতে চাননি রাকিব সম্পর্কে। কয়েকজন জানান, রাকিবরা প্রবাসে থাকে, বাড়ির সঙ্গে যোগাযোগ কম। তাই তার ভাগ্যে আসলে কি ঘটেছে কারও কাছে স্পষ্ট নয়। তবে আবদুর রউফ একজন ধার্মিক মানুষ হিসাবে এলাকায় পরিচিত। ঘড়ুয়া গ্রামের নুরুল ইসলাম ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে বলেন, তাকে একজন জ্ঞানী আলেমের সঙ্গে তুলনা করলে ভুল হবে না। এই সময় বিশ্ব রাজনীতি নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন নুরুল ইসলাম। গ্রামের আরেকজন জানান, পত্রিকা ও ইন্টারনেটে ছবি দেখে গ্রামের লোকজন চিনতে পারেন রাকিবকে। সে সম্প্রতি সিরিয়ার যুদ্ধে মারা গেছে। রাকিবের ছোটবেলার সাথী এক তরুণ ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে জানান, পত্রিকায় প্রকাশিত রুহুল আমিনই রাকিব এবং সঙ্গেরজন তারই মামাতো ভাই। রাকিব তাদের সঙ্গে ৬-৭ বছর আগে ক্রিকেট ও ফুটবল খেলেছে। তার মধ্যে তখন কোন উগ্রতা ছিল না। রাকিব আইএস-এ যোগ দিয়ে সিরিয়ায় যুদ্ধ করতে গেছে- এমন খবর ২০১৪ সালে আমাদের গ্রামে আসে। কিন্তু মানুষের বিশ্বাস তেমন হয়নি। এবার বিশ্বাস হওয়ার কারণ- গত শুক্রবার গ্রামের মসজিদে রাকিবের মৃত্যু সংবাদ শুনে দোয়া করা হয়। রাকিবের বাবা নাকি তার এক আত্মীয়কে ফোন করে রাকিবের মৃত্যু সংবাদ জানান এবং মসজিদে দোয়া করাতে বলেন। মৌলভীবাজারের মোস্তফাপুরের ঘড়ুয়া গ্রামে গেলে বাড়ি চিনিয়ে দেন স্থানীয় লোকজন। তবে পরিবারের কেউ এই ব্যাপারে কথা বলতে তেমন আগ্রহ দেখাননি। তাদের বক্তব্য- রাকিবের জঙ্গি হওয়া এবং সিরিয়ায় নিহত হওয়ার খবরে তাদেরকে বিব্রতকর অবস্থায় ফেলেছে। ৯ই সেপ্টেম্বর বিকালে আসরের নামাজের পর কয়েকজন মুসল্লি গল্প করছিলেন স্থানীয় মসজিদের সামনে। রাকিবের সম্পর্কে জানতে চাইলে মুসল্লিদের একজন দুরুদ আহমদ ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে জানান, দীর্ঘদিন তিনি বাইরে থাকায় এই পরিবারের সঙ্গে তেমন যোগাযোগ নেই। তবে সম্প্রতি পত্রিকায় সংবাদ সূত্রে অনেকে তাকে রাকিব সম্পর্কে প্রশ্ন করে। তবে সে কোথায় কিভাবে যোগ দিয়েছে সে সম্পর্কে তার কিছু জানা নেই। মসজিদে দোয়া পড়ানো সম্পর্কে দুরুদ আহমদ বলেন, কারও মৃত্যুর সংবাদ শোনার পর যেভাবে দোয়া করা হয় সেটাই করা হয়েছে। এর বাইরে কিছু না। এদিকে মোস্তফাপুর ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের মেম্বার রোমান আহমদ ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে জানিয়েছেন, রাকিব আমিনই সিরিয়ায় মারা গেছে। তার আইএস-এ যোগ দেয়ার বিষয়টি সবার আজানা। গতকাল একটি জাতীয় দৈনিকে প্রকাশিত ছবি দেখে নিশ্চিত হয়েছেন বলে জানান তিনি।

অর্ণব ভট্টপ্রবাস জীবন
সিরিয়ায় নিহত বৃটিশ নাগরিক আইএস জঙ্গি রুহুল আমিনই কি রাকিব আমিন- এ নিয়ে জোর গুঞ্জন শুরু হয়েছে মৌলভীবাজার সদর উপজেলার ঘড়ুয়া গ্রামে। রাকিবের মৃত্যুর সংবাদ শুনে তার গ্রামের বাড়ির মসজিদে দোয়াও পড়ানো হয়েছে। তবে এ বিষয়ে মুখ খুলছেন না কেউই। গত বুধবার সরজমিন ওই গ্রামের বিভিন্নজনের সঙ্গে ...