image_265845.2015-09-07_6_243298
জামায়াত নেতা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদী ও আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদ এবং বিএনপি নেতা সালাউদ্দিন কাদের (সাকা) চৌধুরীর বিরুদ্ধে মুক্তিযুদ্ধকালীন মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় ট্রাইব্যুনালের রায়ের বিরুদ্ধে আনা আপিলের পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশের অপেক্ষায় রয়েছে।
সাঈদীকে ট্রাইব্যুনালের মৃত্যুদণ্ড রায়ের বিষয়ে আনা আপিলের রায়ে আমৃত্যু কারাদণ্ড, মুজাহিদ এবং সাকা চৌধুরীকে ট্রাইব্যুনালে দেয়া মৃত্যুদণ্ড আপিলেও বহাল রেখে রায় ঘোষণাা করে সুপ্রিমকোর্টের আপিল বিভাগ।
এটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে বলেছেন, “দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর আপিল মামলার পূর্ণাঙ্গ রায় পেলে তার মৃত্যুদণ্ডের রায় পুনর্বহালের আরজি জানিয়ে রিভিউ আবেদন করা হবে।” তিনি বলেন, আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের দেয়া রায়ের বিরুদ্ধে আপিল বিভাগে এ পর্যন্ত পাঁচটি মামলার নিষ্পত্তি হলেও এখন পর্যন্ত তিনটি মামলার পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ হয়নি। এর মধ্যে অচিরেই দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদী, মুজাহিদের মামলার পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ হতে পারে বলে আশা প্রকাশ করেন মাহবুবে আলম।
ট্রাইব্যুনালের রায়ের বিরুদ্ধে আনা ৫টি মামলা এ পর্যন্ত সুপ্রিমকোর্টে আপিলে নিস্পত্তি হয়েছে। আপিলের প্রথম রায়ে জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল আব্দুল কাদের মোল্লার আপিল নিষ্পত্তির পর ২০১৩ সালের ১৭ সেপ্টেম্বর যাবজ্জীবন সাজা বাড়িয়ে মৃত্যুদণ্ডাদেশ দেয় আপিল বিভাগ। এর রায় রিভিউ’র আবেদনও খারিজ করে দেয় আপিল বিভাগ। এরপর ওই বছর ১২ডিসেম্বর কাদের মোল্লার মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়। গত বছর ১৭ সেপ্টেম্বর আপিলের দ্বিতীয় রায়ে জামায়াতের নায়েবে আমীর দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর ট্রাইব্যুনালে দেয়া সাজা মৃত্যুদণ্ড থেকে কমিয়ে তাকে আমৃত্যু কারাদণ্ড দেয় আপিল বিভাগ। এ রায়ের পূর্ণাঙ্গ কপি এখনো প্রকাশিত হয়নি।
আপিলের তৃতীয় রায়ে জামায়াতের আরেক সহকারী সেক্রেটারী জেনারেল মুহাম্মদ কামারুজ্জামানকে ট্রাইব্যুনালে দেয়া ফাসিঁর দণ্ডাদেশ বহাল রাখা হয়। ফাসিঁর দণ্ড বহাল রাখার রায়ের বিরুদ্ধে কামারুজ্জামানের রিভিউ (পুর্নবিবেচনা) আবেদনও খারিজ করে রায় দেয় সুপ্রিমকোর্টের আপিল বিভাগ। গত ১১ এপ্রিল শনিবার রাতে এ ফাঁসি কার্যকর করা হয়। ট্রাইব্যুনালে দণ্ডিতদের মধ্যে কামারুজ্জামান হলেন দ্বিতীয় ব্যক্তি যার ফাসিঁর রায় কার্যকর করা হলো।
গত ১৬ জুন জামায়াতের সেক্রেটারি জেনারেল সাবেক মন্ত্রী আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদের আপিলের চূড়ান্ত রায়েও মৃত্যুদণ্ড বহাল রেখে রায় দেয় আপিল বিভাগ। এখন মুজাহিদের মামলায় আপিলের পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশের অপেক্ষায় রয়েছে। গত ২৯ জুলাই বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সালাউদ্দিন (সাকা) কাদের চৌধুরীর মৃত্যুদণ্ডাদেশ বহাল রেখে রায় ঘোষণা করেছে আপিল বিভাগ। এ মামলায়ও আপিলের পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশের অপেক্ষায় রয়েছে। সাঈদী, মুজাহিদ ও সাকা চৌধুরীর আইনজীবীরা ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে জানান, পূর্নাঙ্গ রায় পেলে তারা রায় রিভিউর আবেদন করবেন।
আপিলে আরো ৮টি মামলা শুনানির অপেক্ষায় রয়েছে। এসব মামলার আসামিরা হলেন-জামায়াতের আমীর মতিউর রহমান নিজামী, জামায়াত নেতা মীর কাশেম আলী, ব্রাম্মনবাড়িয়ার মোবারক হোসেন, জাতীয় পার্টি নেতা সৈয়দ মোহাম্মদ কায়সার, জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারী জেনারেল এটিএম আজহারুল ইসলাম, জামায়াতের নায়েবে আমীর আব্দুস সুবহান, সাবেক এমপি পলাতক ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল জব্বার, মাহিদুর রহমান।

শুভ সমরাটজাতীয়
জামায়াত নেতা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদী ও আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদ এবং বিএনপি নেতা সালাউদ্দিন কাদের (সাকা) চৌধুরীর বিরুদ্ধে মুক্তিযুদ্ধকালীন মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় ট্রাইব্যুনালের রায়ের বিরুদ্ধে আনা আপিলের পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশের অপেক্ষায় রয়েছে। সাঈদীকে ট্রাইব্যুনালের মৃত্যুদণ্ড রায়ের বিষয়ে আনা আপিলের রায়ে আমৃত্যু কারাদণ্ড, মুজাহিদ এবং সাকা চৌধুরীকে ট্রাইব্যুনালে দেয়া মৃত্যুদণ্ড আপিলেও...