নরসিংদী সংবাদদাতা ।
নরসিংদীতে মনি আক্তার (১২) নামে এক গৃহকর্মীকে গরম পানিতে ঝলসে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে শিক্ষিকার বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় ওই গৃহকর্মীর বাবা আবদুল আজিজ বাদী হয়ে বুধবার রাতে মামলা করেছেন। খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের।

মামলায় অভিযুক্ত শিক্ষিকা মাহমুদা ইয়াছমিন ওরফে নাজমা ও তার স্বামী ব্যাংক কর্মকর্তা মো. হাসান সারোয়ার ওরফে সোহেলকে আসামি করা হয়েছে। নাজমা নরসিংদী সরকারি কলেজের সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক।

গত ১৭ জানুয়ারি নরসিংদী শহরের পশ্চিম ব্রাহ্মন্দী মহল্লার মালাকার মোড় এলাকায় এ নির্যাতনের ঘটনা ঘটে। মনি বর্তমানে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

মনির বাবা আবদুল আজিজ বলেন, ‘গরম পানি নিক্ষেপ করায় আমার মেয়ের মুখের কিছু অংশ, ডান কাঁধ ও বুকের পুরো অংশ পুড়ে গেছে। আমি নির্যাতনকারীদের বিচার চাই। এ ঘটনায় মামলা করলে মেরে ফেলার ভয়ভীতি দেখানো হয়। তাই মামলা করতে দেরি হয়েছে।’

নাজমার স্বামী হাসান সারোয়ার বলেন, ‘ঘটনাটি আসলে দুর্ঘটনা। সকালে কাজ করার সময় চুলা থেকে মনির জামায় আগুন ধরে যায়। চিৎকার শুনে আমরা তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাই। চিকিৎসার যাবতীয় খরচ পরিশোধ করি। একপর্যায়ে মেয়েটির পরিবার চিকিৎসা করাতে অনীহা দেখায়। এখন হঠাৎ করে আমার ও আমার স্ত্রীর বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ কেন তোলা হচ্ছে বুঝতে পারছি না।’

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা নরসিংদী সদর মডেল থানার উপপরিদর্শক (এসআই) বিল্লাল হোসেন বলেন, ‘বিষয়টি আমরা তদন্ত করে দেখছি। তদন্ত শেষ না করে কিছু বলা যাচ্ছে না।’

নরসিংদী সদর মডেল থানার ওসি গোলাম মোস্তফা বলেন, শিশুটির বাবা বাদী হয়ে দুইজনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন। জড়িতদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনা হবে।
খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের।

http://crimereporter24.com/wp-content/uploads/2018/02/927.jpghttp://crimereporter24.com/wp-content/uploads/2018/02/927-300x300.jpgজান্নাতুল ফেরদৌস মেহরিনস্বদেশের খবর
নরসিংদী সংবাদদাতা । নরসিংদীতে মনি আক্তার (১২) নামে এক গৃহকর্মীকে গরম পানিতে ঝলসে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে শিক্ষিকার বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় ওই গৃহকর্মীর বাবা আবদুল আজিজ বাদী হয়ে বুধবার রাতে মামলা করেছেন। খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের। মামলায় অভিযুক্ত শিক্ষিকা মাহমুদা ইয়াছমিন ওরফে নাজমা ও তার স্বামী ব্যাংক কর্মকর্তা...