1439285306
শরতে প্রকৃতি সাজে নতুন আবেদনে। রোদে মেঘে লুকোচুরি, হঠাত্ এক পসলা বৃষ্টির পর কাশবনের হাওয়া—প্রকৃতির এই বিচিত্র খেলায় জীবনকে আরও আনন্দময় ও সতেজ করতে আপনার পোশাকেও আনতে হবে ভিন্নতা। আবার মনের মতো সাজের পর বাইরে বেরিয়ে হঠাত্ বৃষ্টির ঝাপটায় যেন পুরোটাই ম্লান হয়ে না যায় সেদিকেও খেয়াল রাখতে হবে। সাজে শরতের ছোঁয়া নিয়ে লিখেছেন আফরোজা মোহনা

শরতের ভোরটা খুব স্নিগ্ধ। শিউলী ফুলের সুবাস মাখা বাতাসে কেমন যেন মায়াময় মনে হয় পৃথিবী। তবে একটু বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে রোদের তপ্ত ছোঁয়ায় এ আবেশ কেটে যায়। তাই শরতের এই দিনগুলোয় আপনাকে নিতে হবে হালকা সাজ। আর এজন্য প্রথমেই বেছে নিন হালকা রঙগুলো। যেমন বেছে নিতে পারেন জরিপাড় দেওয়া ফিকে নীল শাড়ি কিংবা সাদা জমিনে বুটি তোলা জামদানি শাড়ি এবং এর সঙ্গে ম্যাচিং ব্লাউজ। তবে ব্লাউজের কাটছাঁটগুলো যেন শালীনতাপূর্ণ হয় সেদিকে খেয়াল রাখবেন। যারা সালোয়ার-কামিজ পরেন, তারাও এ রকম হালকা রঙগুলোই বেছে নেবেন। তবে সালোয়ার-কামিজ যথাসম্ভব সুতি হওয়াই ভালো। সাজসজ্জার অন্যতম অংশ হলো চুল বাঁধা। আর চুল বাঁধার সময় আপনার চুলের ধরন এবং বয়সের দিকটা অবশ্যই খেয়ালে রাখবেন। আপনার বয়স যদি বাইশের নিচে হয় তাহলে লম্বা বেণি বাঁধুন। এছাড়া ফ্রেঞ্চ রোল, উঁচু চূড়া খোঁপা কিংবা এম খোঁপা বাঁধতে পারেন। আর বাইশের ওপরে যাদের বয়স তারা বাঁধুন এলো খোঁপা, গোল খোঁপা কিংবা বিড়া খোঁপা। মনে রাখবেন, হালকা সাজ ও পোশাকের সঙ্গে ভুলেও জমকালোভাবে চুল বাঁধবেন না। কারণ এতে বেমানান দেখাবে। খোঁপায় মালা না পরে বরং একটা কি দুটো ফুল কিংবা ফুলের কুঁড়ি গুঁজে দেবেন। গোলাপের কলি কিংবা রজনীগন্ধার একটা কি দু’টা ফুল গুঁজে দিলে আরও চমত্কার দেখাবে। হালকা সাজের সঙ্গে কড়া প্রসাধনি আপনাকে করে তুলবে সৌন্দর্যহীন। তাই শুধু স্নো, পাউডার, হালকা লিপস্টিক এবং আইব্রো পেন্সিলের ব্যবহারই যথেষ্ট। আপনি যদি কপালে টিপ পরতে ভালোবাসেন তবে তা অবশ্যই পরবেন। এক্ষেত্রে কিছু নিয়ম মেনে চলা দরকার। যেমন আপনার কপাল যদি ছোট হয়, তাহলে টিপ না পরলেও চলবে। আর যদি পরেনও তাহলে ছোট টিপ বেছে নেবেন। আর আপনার কপাল যদি বড় হয় তাহলে বড় টিপ অপরিহার্য। টিপটি অবশ্যই শাড়ি বা সালোয়ার-কামিজের রঙের সঙ্গে ম্যাচিং করেই পরবেন। ম্যাচিং টিপ না পাওয়া গেলে লাল অথবা মেরুন অথবা কালচে লাল টিপ পরবেন। সাজগোজ পরিবর্তন হয় ঋতুভেদে। শরতের হালকা সাজ-প্রসাধনির সঙ্গে গহনা হিসেবে বেছে নিন হালকা কোনো গহনা। সোনা, রুপা, মুক্তা, অক্সিডাইজ, মেটাল, কাচ, মাটি, পুঁতি, কাঠ কিংবা যেকোনো রকমেরই হোক না কেন হাতে প্লেন বালা, গলায় লকেট, কানে দুটো হালকা গহনা কিংবা পাথর বসানো টব কিংবা মুক্তা বসানো দুল পরলেই সুন্দর লাগবে দেখতে। উচ্চতা যাদের বেশি, তারা পরবেন নিচু স্যান্ডেল বা স্লিপার। আর উচ্চতা কম হলে অবশ্যই হিলওয়ালা জুতো পরবেন। জুতোর বেলায়ও লক্ষ রাখবেন তা যেন জমকালো পুঁতি অথবা জরি বসানো না হয়। সাজ-পোশাকে জমকালো ভাব বর্জন করে রুচিসম্মত পোশাক পরলেই আপনি হয়ে উঠবেন আকর্ষণীয়।

তুনতুন হাসানলাইফ স্টাইল
শরতে প্রকৃতি সাজে নতুন আবেদনে। রোদে মেঘে লুকোচুরি, হঠাত্ এক পসলা বৃষ্টির পর কাশবনের হাওয়া—প্রকৃতির এই বিচিত্র খেলায় জীবনকে আরও আনন্দময় ও সতেজ করতে আপনার পোশাকেও আনতে হবে ভিন্নতা। আবার মনের মতো সাজের পর বাইরে বেরিয়ে হঠাত্ বৃষ্টির ঝাপটায় যেন পুরোটাই ম্লান হয়ে না যায় সেদিকেও খেয়াল রাখতে...