1440877806
লিবীয় উপকূলে নৌকাডুবিতে ২৪ বাংলাদেশি মারা গেছেন। এদের মধ্যে তিন জন শিশু রয়েছে। কূটনৈতিক সূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার লিবিয়ার যোওয়ারা এলাকা দিয়ে ইটালি যাওয়ার সময় ডুবে যাওয়া নৌকা দুটিতে মোট ৭৮ জন বাংলাদেশি ছিলেন। এ ঘটনায় ৫৪ জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। জীবিত উদ্ধার হওয়া বাংলাদেশিদের দ্রুত দেশে ফিরিয়ে আনা হবে।

তিউনিসিয়ায় স্থানান্তরিত বাংলাদেশের লিবিয়া দূতাবাসের শ্রম বিষয়ক কর্মকর্তা আশরাফুল ইসলাম বিবিসি বাংলাকে জানান, জীবিত উদ্ধার বাংলাদেশি নারী ও পুরুষদেরকে দ্রুত দেশে ফেরত আনা হবে। তবে শিশুসহ নিহত বাংলাদেশির মৃতদেহ দূতাবাসের কর্মকর্তাদের দেখতে দেয়া হয়নি। কারণ মৃতদেহ দেখার জন্য এখনো কোন বিদেশি কূটনীতিককে সুযোগ দেয়া হচ্ছে না।

ঐ কর্মকর্তা জানান, জীবিত উদ্ধার হওয়া বাংলাদেশিদের মধ্যে মহিলাদের বাংলাদেশ দূতাবাসের হেফাজতে নেয়া সম্ভব হয়েছে। বাকিরা ত্রিপোলি কর্তৃপক্ষের ডিটেনশন সেন্টারে রয়েছেন। এখন এই বাংলাদেশিদের দেশে ফেরত আনতে আইওএম’র সহায়তা নেয়া হবে। আশরাফুল ইসলাম জানান, লিবিয়ার বর্তমান নিরাপত্তাহীন পরিস্থিতির কারণে এই বাংলাদেশিরা ইউরোপে অভিবাসী হওয়ার চেষ্টা করছিলেন। নিরাপদ ও উন্নত জীবনের আশায় লিবিয়ায় বসবাসরত বিদেশিরা আগে থেকেই ওই দেশ ছাড়ছিলেন, তবে পরিবারসহ বাংলাদেশিরা লিবিয়া ছাড়ার চেষ্টা করছেন এমনটা প্রথমবারের মতো ঘটেছে।

এদিকে জাতিসংঘ সম্প্রতি ইউরোপ যাবার পথে শত শত অভিবাসী প্রত্যাশীর মৃত্যুর ঘটনা এবং পরিস্থিতিকে সংকট হিসেবে উল্লেখ করেছে। জাতিসংঘের মহাসচিব বান কি মুন বলেছেন, অভিবাসী প্রত্যাশীদের মৃত্যু ঠেকাতে ইউরোপের দেশগুলোকে সতর্কতার সাথে যৌথভাবে একটা রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত নিতে হবে। তিনি অভিবাসী প্রত্যাশীদের জন্য নিরাপদ এবং আইনগত পথ বের করার জন্য সংশ্লিষ্ট দেশগুলোর প্রতি আহবান জানিয়েছেন।

বাহাদুর বেপারীপ্রবাস জীবন
লিবীয় উপকূলে নৌকাডুবিতে ২৪ বাংলাদেশি মারা গেছেন। এদের মধ্যে তিন জন শিশু রয়েছে। কূটনৈতিক সূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার লিবিয়ার যোওয়ারা এলাকা দিয়ে ইটালি যাওয়ার সময় ডুবে যাওয়া নৌকা দুটিতে মোট ৭৮ জন বাংলাদেশি ছিলেন। এ ঘটনায় ৫৪ জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। জীবিত উদ্ধার হওয়া বাংলাদেশিদের দ্রুত দেশে...