1445006553
মিয়ানমারের বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠন আরাকান আর্মির নেতা রেনিন সো’র সাথে জনসংহতি সমিতির নেতা সন্তু লারমা ও চাকমা রাজা দেবাশীষ রায়ের ছবি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছে। তিন জনের হাস্যোজ্জ্বল ছবিটি এখন মানুষের ফেসবুক ওয়ালে ঘোরাফেরা করছে। এ নিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে তৈরি হয়েছে কৌতুহল।

গত ২৪ আগস্ট বান্দরবানের থানচির সীমান্ত এলাকায় বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ও বিজিবির একটি যৌথ টহল দলের ওপর আরাকান আর্মির হামলা ও গোলাগুলির পর রাজস্থলীতে রেনিন সো’র খোঁজ পায় পুলিশ। ২৬ আগস্ট রাতে রেনিন সো’র বাসায় সেনাবাহিনী ও পুলিশ যৌথ অভিযান চালায়। রেনিনকে আটক করা না গেলেও তার সহযোগী অংনু ইয়াং রাখাইনকে আটক করা হয়।

তার কাছে আরাকান আর্মির তিনটি পোশাক, পোশাক তৈরির ৩০ গজ কাপড়, তিনটি ল্যাপটপ ও তিনটি ক্যামেরাসহ পাওয়া গেছে ২টি ঘোড়া। ওই বাড়ির দুই কেয়ারটেকার মংচু অং মারমা ও চুইস অং মারমাও গ্রেফতার হয়ে বর্তমানে কারাগারে আছেন।

অংনু ইয়াং রাখাইন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে বলেন, তিনি আরাকান আর্মির সহযোগী। তার বাড়ি আরাকানে। রেনিন সো’র বিষয়েও তথ্য দেন তিনি। চিকিত্সা শাস্ত্রের ডিগ্রিধারী রেনিন এক সময় নেদারল্যান্ডসে কাটিয়েছেন।

গত কয়েক বছর ধরে তিনি রাজস্থলীতে বাড়ি বানিয়ে স্থানীয় এক মার্মা তরুণীকে বিয়ে করে রাঙামাটিতেই থাকছিলেন। সেখান থেকেই তিনি আরাকান আর্মির কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছিলেন বলে বাংলাদেশের আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর ধারণা।

http://crimereporter24.com/wp-content/uploads/2015/10/1445006553.jpghttp://crimereporter24.com/wp-content/uploads/2015/10/1445006553-300x300.jpgমিস্টি রহমানপ্রথম পাতা
মিয়ানমারের বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠন আরাকান আর্মির নেতা রেনিন সো'র সাথে জনসংহতি সমিতির নেতা সন্তু লারমা ও চাকমা রাজা দেবাশীষ রায়ের ছবি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছে। তিন জনের হাস্যোজ্জ্বল ছবিটি এখন মানুষের ফেসবুক ওয়ালে ঘোরাফেরা করছে। এ নিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে তৈরি হয়েছে কৌতুহল। গত ২৪...