05_269280
প্ল্যাটফর্মে রাতভর অপেক্ষা করে খুব ভোরে কাউন্টারের সামনে লাইনে দাঁড়ান ট্রেনের টিকিটপ্রত্যাশী ইফতেখারুল ইসলাম। এরপর টানা ছয় ঘণ্টা লাইনে দাঁড়িয়ে ২০ সেপ্টেম্বর রাজশাহী যাওয়ার তিনটি টিকিট পান তিনি। খুশিতে কাউন্টার ত্যাগ করে স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেন তিনি। তবে রাতভর দাঁড়িয়ে থেকেও ইশরাত জাহান নামের এক যাত্রীর অভিজ্ঞতা কিন্তু সুখকর নয়। ইশরাত শেষ পর্যন্ত তাঁর কাঙ্ক্ষিত টিকিট পাননি। এর আগেই টিকিট ‘হাওয়া’। কাউন্টার থেকে তাঁকে বলা হয়েছে, চট্টগ্রাম যেতে এসি শ্রেণির কোনো টিকিট আর নেই।

গতকাল মঙ্গলবার থেকে রাজধানীর কমলাপুর ও বন্দরনগরী চট্টগ্রাম রেলস্টেশনে ঈদের আগাম টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে। কমলাপুর রেলস্টেশনে মধ্যরাত থেকে অপেক্ষা করে আগতদের কেউ টিকিট পেয়েছেন, কেউ পাননি। সকাল ১১টার আগেই কেবিন কিংবা এসি টিকিট শেষ হয়ে গেছে বলে কাউন্টারে কাউন্টারে রব ওঠে। তবে কেবিন বা এসি শ্রেণির টিকিট না পেয়ে অনেকেই শোভন শ্রেণির টিকিট নিয়েছেন। একটি অংশ অপেক্ষা করেও টিকিট পায়নি।

রেলমন্ত্রী মো. মুজিবুল হক গতকাল সকাল ১১টার দিকে কমলাপুর রেলস্টেশনের বিভিন্ন কাউন্টারের সামনে দাঁড়ানো টিকিটপ্রত্যাশীদের সঙ্গে কথা বলেন। অপেক্ষারত নারী টিকিটপ্রত্যাশীরা তখন মন্ত্রীকে টিকিট বিক্রির সময় সকাল ৯টার পরিবর্তে সকাল ৮টায় এগিয়ে আনার দাবি জানান। এ ছাড়া অন্য টিকিটপ্রার্থীরা মন্ত্রীর কাছে অভিযোগ করেন, কালোবাজারিরা টোকাইদের লাইনে দাঁড় করিয়ে টিকিট সংগ্রহ করে নিয়ে যাচ্ছে। এ কারণে প্রকৃত যাত্রীরা অপেক্ষা করেও টিকিট পাচ্ছেন না। রেলমন্ত্রী এ সময় যাত্রী স্বার্থে যা করা দরকার তা করা হবে বলে প্রতিশ্রুতি দেন।

রাজধানীর কমলাপুর রেলস্টেশনে সকাল ৯টা থেকেই ২০টি কাউন্টারে একযোগে টিকিট বিক্রি শুরু হয়। কাউন্টারের সামনে থেকে ভিড় একেবেঁকে ছড়িয়ে পড়েছিল কাউন্টারগুলোর সামনে। তবে ফাঁকে ফাঁকে কম বয়সী ও টোকাইদের দেখা গেছে। এ ছাড়া টিকিট দিতেও দেরি করা হয়েছে কাউন্টার থেকে। সোমবার রাত থেকে ভিড়ের মধ্যে দাঁড়িয়ে থাকা আবীর হাসান ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে বলেন, ‘লাইনে সকাল থেকে টোকাইদের ঢুকিয়ে দেওয়া হয়েছে। এ কারণে সমস্যা হচ্ছে। আমি রংপুর এক্সপ্রেসের এসি টিকিট পাচ্ছি না।’

নিয়ম অনুসারে, একজন সর্বোচ্চ চারটি টিকিট কিনতে পারেন। আবুল নামের এক টোকাইয়ের কাছে ১৯ সেপ্টেম্বরের চারটি টিকিট দেখা যায়। সে বা তার কেউ যাত্রী কি না জানতে চাইলে সে জবাব না দিয়ে দৌড়ে পালিয়ে যায়।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, কমলাপুর রেলস্টেশনের আশপাশের বিভিন্ন হোটেলের কর্মচারী, রেলওয়ে শ্রমিক লীগসহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতাকর্মীরা সোমবার রাতেই টোকাইদের কমলাপুরের বিভিন্ন কাউন্টারের সামনে নিয়ে আসে। বিক্রি শুরুর আগে ফাঁকে ফাঁকে লাইনে তাদের ঢুকিয়ে দেওয়া হয়। চারটি টিকিট দেওয়া হচ্ছে একেকজনকে। চারটি টিকিটে ৩০ থেকে ৫০ টাকা কমিশন দেওয়া হচ্ছে তাদের। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক টোকাইরা জানায়, ৫০-৬০ জনকে এভাবে লাইনে দাঁড় করানো হয়েছে।

রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর পরিদর্শক মুজিবুর রহমান ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে বলেন, রাতে যাঁরা এসেছিলেন তাঁদের বেশির ভাগের হাতে টোকেন দেওয়া হয়েছে। ভোর থেকে লাইন ধরেছেন।

আজ বুধবার বিক্রি হবে ২১ সেপ্টেম্বর যাত্রার টিকিট। ১৭, ১৮ ও ১৯ সেপ্টেম্বর যথাক্রমে ২২, ২৩ ও ২৪ সেপ্টেম্বরের টিকিট পাওয়া যাবে। ঈদের পর রাজশাহী, খুলনা, দিনাজপুর ও লালমনিরহাট রেলস্টেশন থেকে ফিরতি যাত্রার আগাম টিকিট পাওয়া যাবে। ২৩, ২৪, ২৫, ২৬ ও ২৭ সেপ্টেম্বর পাওয়া যাবে যথাক্রমে ২৭, ২৮, ২৯, ৩০ সেপ্টেম্বর ও ১ অক্টোবরের টিকিট।

রাজধানীর কমলাপুরে রেলওয়ে স্টেশনে টিকিট বিক্রি পরিদর্শনের পর রেলমন্ত্রী আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অস্থায়ী ক্যাম্পও পরিদর্শন করেন। মন্ত্রী পরে ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে বলেন, ঈদুল আজহা উপলক্ষে সারা দেশে যাত্রীদের চলাচলের সুবিধার জন্য বিশেষ সার্ভিসের সাতটি অতিরিক্ত ট্রেন চলাচল করবে। ঈদুল আজহার তিন দিন আগে থেকে বিশেষ ট্রেন চলবে। তা ঈদের পরের সাত দিন পর্যন্ত চলবে।

টিকিট কালোবাজারির অভিযোগ বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘টিকিট কালোবাজারিদের প্রতিহত করার জন্য সব ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। টিকিট কালোবাজারির সঙ্গে রেলওয়ের কর্মকর্তা অথবা কর্মচারীরা যুক্ত থাকলে তাদের রেহাই দেওয়া হবে না। অভিযোগ পেলে তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

রেলমন্ত্রী বলেন, ‘সারা দেশে প্রতিদিন ট্রেনের আড়াই লাখ টিকিট বিক্রি হচ্ছে। ঈদ উপলক্ষে ঘরমুখো মানুষ পরিবার নিয়ে শিডিউল বিপর্যয়ের কারণে ঘণ্টার পর ঘণ্টা ট্রেনের জন্য অপেক্ষা করেন- এটি কষ্টদায়ক। তাই শিডিউল বিপর্যয় রোধ করতে আমরা কাজ করে যাচ্ছি।’

রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক জানিয়েছেন, ঈদ উপলক্ষে রেল বহরে নিয়মিত ৮৮৬টি কোচের সঙ্গে ১৩৮টি যাত্রীবাহী কোচ যোগ হবে। নিয়মিত চলাচলকারী ১৯৯টি ইঞ্জিনের সঙ্গে আরো ২৫টি ইঞ্জিন যোগ হবে।

রেল মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, ঈদে যাত্রীদের যাওয়া-আসা নির্বিঘ্ন করতে ২০ সেপ্টেম্বর থেকে ঈদের আগের দিন পর্যন্ত আন্তনগর ট্রেনের সাপ্তাহিক ছুটি বাতিল করা হয়েছে। প্রতিদিন ট্রেনে আড়াই লাখ ঈদযাত্রী পরিবহন করা হবে। এ ছাড়া আন্তনগর ট্রেনে কোনো সেলুন সংযোজন করা হবে না।

অর্ণব ভট্টপ্রথম পাতা
প্ল্যাটফর্মে রাতভর অপেক্ষা করে খুব ভোরে কাউন্টারের সামনে লাইনে দাঁড়ান ট্রেনের টিকিটপ্রত্যাশী ইফতেখারুল ইসলাম। এরপর টানা ছয় ঘণ্টা লাইনে দাঁড়িয়ে ২০ সেপ্টেম্বর রাজশাহী যাওয়ার তিনটি টিকিট পান তিনি। খুশিতে কাউন্টার ত্যাগ করে স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেন তিনি। তবে রাতভর দাঁড়িয়ে থেকেও ইশরাত জাহান নামের এক যাত্রীর অভিজ্ঞতা কিন্তু সুখকর নয়।...