আশুগঞ্জ (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) সংবাদদাতা ।
আশুগঞ্জে রেললাইনের পাশ থেকে উদ্ধারকৃত অজ্ঞাত গৃহবধূর লাশ শনাক্ত করেছে স্বজনরা। নিহত গৃহবধূর নাম তাহমিনা (৩০)। খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের।
তিনি উপজেলার বড়তল্লা গ্রামের মৃত সাদেক মিয়ার ছেলে জালাল মিয়ার স্ত্রী এবং তারুয়া গ্রামের ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী ফারুক মিয়ার মেয়ে। সোমবার রাতে ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলওয়ে পুলিশ ফাঁড়িতে উপস্থিত হয়ে নিহতের বাবা লাশ শনাক্ত করেন।

এরঅাগে ঢাকা-চট্টগ্রাম রেলরুটের আশুগঞ্জ স্টেশনের পূর্ব পাশে ২৪নং সেতুর কাছ থেকে তাহমিনার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, ২০০৬ সালে উপজেলার বড়তল্লা গ্রামের সাদেক মিয়ার ছেলে জালাল মিয়ার সাথে পারিবারিক বিয়ে হয় তাহমিনার। দীর্ঘ ৯ বছরের দাম্পত্য জীবনে দুই ছেলে ও এক কন্যা সন্তানের মা হন তাহমিনা। দাম্পত্য জীবন কখনো সুখময় ছিল না তার। কারণে-অকারণে স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজন হাতে নির্যাতিত হতেন তিনি। গাড়ি চালক স্বামী জালাল মিয়া কাজকর্ম বাদী দেশের বিভিন্ন জেলায় তাবলিগ করে ঘুরে বেড়াতেন। স্ত্রী সন্তানের ভাত কাপড়ের খবর রাখতেন না কখনোই। এনিয়ে দুজনের মধ্যে প্রায় ঝগড়া হতো।

মামলায় অভিযোগ করা হয়, বিয়ের সময় মোটা অংকের যৌতুক দেওয়া হলেও বিভিন্ন অযুহাতে বাবার বাড়ি থেকে টাকা এনে দিতে তাহমিনার উপর তার স্বামী ও শাশুড়ি চাপ সৃষ্টি করতেন। সম্প্রতি বাবার বাড়ি থেকে তিন লাখ টাকা এনে দেওয়ার জন্য তাকে চাপ দেওয়া হয়। কিন্তু তার বাবা পক্ষে এতো টাকা দেওয়া সম্ভব না হওয়ায় এ নিয়ে বিবাদ সৃষ্টি হয়। এই বিবাদের জের ধরেই তাহমিনাকে পিটিয়ে হত্যা করে লাশ গুম করার জন্য রেললাইনে পাশে ফেলে রেখে আসে শ্বশুর বাড়ির লোকজন।

তাহমিনার বাবা ফারুক মিয়া বাদী হয়ে মঙ্গলবার ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নারী ও শিশু নির্যাতন বিশেষ ট্রাইব্যুনাল আদালতে তার স্বামী জালাল মিয়াসহ ৬জন এবং আরো অজ্ঞাত ৫/৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। আদালত মামলাটি রজ্জু করে আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে আশুগঞ্জ থানাকে নির্দেশ দিয়েছে।

মামলার অন্যান্য আসামিরা হলেন- নিহতের শাশুড়ি রোফিয়া বেগম (৫৫), ভাসুর সাইফুল (৪২), স্বামীর নিকট আত্মীয় শওকত (৫৫), কাউছার (৩৮) ও খোকন (৩৫)। ঘটনার পর থেকে তাহমিনার স্বামী ও অন্যান্য আসামিরা পালাতক রয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মো. সানাউল হক জানান, নিহতের মাথা, গলা ও হাতে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। ময়নাতদন্ত শেষে তাহমিনার লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।
খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের।

http://crimereporter24.com/wp-content/uploads/2017/11/932.jpghttp://crimereporter24.com/wp-content/uploads/2017/11/932-300x300.jpgজান্নাতুল ফেরদৌস মেহরিনস্বদেশের খবর
আশুগঞ্জ (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) সংবাদদাতা । আশুগঞ্জে রেললাইনের পাশ থেকে উদ্ধারকৃত অজ্ঞাত গৃহবধূর লাশ শনাক্ত করেছে স্বজনরা। নিহত গৃহবধূর নাম তাহমিনা (৩০)। খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের। তিনি উপজেলার বড়তল্লা গ্রামের মৃত সাদেক মিয়ার ছেলে জালাল মিয়ার স্ত্রী এবং তারুয়া গ্রামের ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী ফারুক মিয়ার মেয়ে। সোমবার রাতে ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলওয়ে পুলিশ ফাঁড়িতে...