1441356226
যশোর সেনানিবাসের ব্যারাক থেকে এক সেনাসদস্যের গলাকাটা লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। মৃত শিকার হেলাল উদ্দিন ৫৫ পদাতিক ডিভিশনে কর্মরত ছিলেন। তিনি জামালপুর জেলার জামালগঞ্জ উপজেলার রামপুর গ্রামের নুরুল হকের ছেলে।

শুক্রবার দুপুরে ময়নাতদন্তের জন্য তার লাশ যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে নিয়ে আসা হয়। এর আগে এ ঘটনায় শুক্রবার সকালে যশোর কোতোয়ালি মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ দেন সেনাবাহিনীর ক্যাপ্টেন প্রশান্ত কুমার।

যশোর কোতোয়ালি থানার কর্তব্যরত কর্মকর্তা এসআই মঞ্জুর আলী খান লিখিত অভিযোগের উদ্বৃতি দিয়ে ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে জানান, বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে হেলাল উদ্দিনকে ব্যারাকের রুমে গলা কাটা অবস্থায় পাওয়া যায়। এরপর তাকে উদ্ধার করে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে ভোর সাড়ে ৪টার দিকে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। দুপুরে ময়নাতদন্তের জন্য হেলাল উদ্দিনের লাশ যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে নিয়ে আসা হয়।

যশোরের সহকারী পুলিশ সুপার ভাস্কর সাহা ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে জানান, রাতে হেলাল উদ্দিনের সহকর্মীরা গোঙ্গানির শব্দ শুনে তাকে গলাকাটা অবস্থায় দেখতে পায়। সাথে সাথে তাকে দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে যায়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়েছে। খবর পেয়ে তার লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করা হয়েছে। লাশও ময়নাতদন্তের জন্য নিয়ে আসা হয়েছে।

তিনি উল্লে­খ করেন, প্রাথমিকভাবে এটি আত্মহত্যা বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে সুরক্ষিত একটি এলাকায় এমন ঘটনা ঘটায় এনিয়ে তদন্ত হবে। এর পেছনে অন্য কোনো রহস্য আছে কিনা তাও খতিয়ে দেখা হবে।

হাসন রাজাশেষের পাতা
যশোর সেনানিবাসের ব্যারাক থেকে এক সেনাসদস্যের গলাকাটা লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। মৃত শিকার হেলাল উদ্দিন ৫৫ পদাতিক ডিভিশনে কর্মরত ছিলেন। তিনি জামালপুর জেলার জামালগঞ্জ উপজেলার রামপুর গ্রামের নুরুল হকের ছেলে। শুক্রবার দুপুরে ময়নাতদন্তের জন্য তার লাশ যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে নিয়ে আসা হয়। এর আগে এ ঘটনায় শুক্রবার...