85128_102
মৃত্যুপুরীতে পরিণত হয়েছে সিলেটের পর্যটন এলাকা জাফলং। অদেখা, অচেনা জায়গায় এসেই প্রকৃতির ভেতরে ডুবে যেতে চান পর্যটকরা। আর এতেই ঘটে বিপত্তি। হারিয়ে যায় চোরাবালিতে। নতুবা ভেসে যায় পিয়াইনের প্রবল স্রোতে। আর ঈদ এলেই ঘটে এসব ঘটনা। এবারের ঈদে জাফলংয়ে ঝরে গেলো দুটি প্রাণ। এক দশকে পিয়াইন নদীর বুকে লাশ হয়েছেন ৩১ জন পর্যটক। বুধবার জিরো পয়েন্টে সাঁতার কাটতে গিয়ে ঢাকার কবি নজরুল কলেজের শিক্ষার্থী সোহাগ ঘোষ ও আবদুল্লাহ অন্তরের সলিল সমাধি ঘটে। পরিসংখ্যান বলছে, ২০০৩ সাল থেকে এ বছরের ২২শে জুলাই পর্যন্ত পিয়াইন নদীতে লাশ হয়েছেন ৩১ পর্যটক। ২০০৩ সালের ১৫ই আগস্ট পিয়াইন নদীতে সাঁতার কাটতে গিয়ে সলিল সমাধি ঘটে সিলেট শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী রেজাউর রহমান ফয়সাল ও রাজন আহমদের। ২০০৬ সালের ১৬ই ফেব্রুয়ারি পিয়াইনের বুকে লাশ হন গোয়াইনঘাট উপজেলার মুসা মিয়া, একই বছরের ১৬ই আগস্ট উপজেলার ফখরুল ইসলাম, ২০০৮ সালের ৯ই নভেম্বর ঢাকার পল্লবীর দিলশাদ আহমেদ, ২০০৯ সালের ২৬শে জানুয়ারি হবিগঞ্জের বানিপুরের ইউনুস মিয়া, ৮ই মে ঢাকার মিরপুরের ফারুক আহমদ, ২১শে জুন নরসিংদীর সদর এলাকার সজীব মিয়া। ২০১০ সালের ২৩শে মার্চ ঢাকার খিলগাঁওয়ের তারেক আহমদ, একই বছরের ২০শে মে গোয়াইনঘাট উপজেলার রফিকুল ইসলাম ও গৌরাঙ্গ কর্মকার, ২২শে মে জামালপুর জেলার মাদারগঞ্জের মুস্তাকিন তালুকদার ও ঢাকার শাহরিয়ার আহমদ রাব্বি, ১২ই সেপ্টেম্বর ঝালকাঠির রুহুল আমিন খান রুমি পিয়াইনের বুকে লাশ হন। ২০১২ সালের ২২শে আগস্ট ঢাকার ফাহাদ উদ্দিন, ৩০শে আগস্ট মৌলভীবাজারের কুলাউড়ার হিমেল রাজ, ২০১৩ সালের ১৭ই আগস্ট ঢাকার শনির আখড়ার শুভ আহমদ, ২৫শে অক্টোবর ঢাকার যাত্রাবাড়ীর ইমরান হোসেন সাঁতার কাটতে গিয়ে পিয়াইনে লাশ হন। ২০১৪ সালের ৩০শে মে মাদারীপুর জেলার সদর উপজেলার চলকিপুরের মোহাম্মদ ইব্রাহিম, আগস্টে মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল উপজেলার শাকিল মিয়া, মামুন হোসেন, সাদেক হোসেন এবং সিলেটের কামরুল ইসলাম পিয়াইনের বুকে লাশ হন। ওই মাসে অজ্ঞাতনামা আরেকজনের লাশ উদ্ধার করা হয়।

গোয়াইনঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সালেহউদ্দিন ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে জানিয়েছেন, পর্যটকদের সতর্ক করতে এলাকায় মাইকিং করা হয়। এছাড়া, তদারকির দায়িত্বে বিজিবির পাশাপাশি পুলিশও থাকে। কিন্তু সাঁতার না জানার কারণে এরকম দুর্ঘটনা ঘটে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

বাহাদুর বেপারীএক্সক্লুসিভ
মৃত্যুপুরীতে পরিণত হয়েছে সিলেটের পর্যটন এলাকা জাফলং। অদেখা, অচেনা জায়গায় এসেই প্রকৃতির ভেতরে ডুবে যেতে চান পর্যটকরা। আর এতেই ঘটে বিপত্তি। হারিয়ে যায় চোরাবালিতে। নতুবা ভেসে যায় পিয়াইনের প্রবল স্রোতে। আর ঈদ এলেই ঘটে এসব ঘটনা। এবারের ঈদে জাফলংয়ে ঝরে গেলো দুটি প্রাণ। এক দশকে পিয়াইন নদীর বুকে লাশ...