cox-290x171
মিয়ানমারের জলসীমা থেকে উদ্ধার হওয়া আরও ১২৫ বাংলাদেশীকে ফেরত আনার প্রক্রিয়া চলছে। পঞ্চম দফায় এ সব বাংলাদেশীকে যাচাই-বাছাই শেষে ২৫ আগস্ট ফেরত আনা হতে পারে।
বিজিবির কক্সবাজার সেক্টরের কমান্ডার কর্নেল এম আনিসুর রহমান ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে জানান, মিয়ানমারের ইমেগ্রেশন বিভাগের সঙ্গে পতাকা বৈঠকের পর ২৫ আগস্ট তাদের ফেরত আনার প্রক্রিয়া চলছে।
তিনি আরও জানান, মিয়ানমারের সম্মতি পাওয়া গেলে বরাবরের মতো বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম সীমান্তবার্তী মিয়ানমারের ঢেঁকিবনিয়ায় এ পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। ওই দিন সকালে বিজিবির নেতৃত্বে একটি পতাকা বৈঠক করে তাদের ফেরত আনা হবে।
তিনি ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে জানান, এর আগে চার দফায় শনাক্ত হওয়া ৫০১ জন বাংলাদেশীকে ফেরত আনা হয়েছে। গত ২১ মে ২০৮ জন ও ২৯ মে ৭২৭ জন অভিবাসীপ্রত্যাশীকে মিয়ানমারের জলসীমা থেকে উদ্ধার করেছিল সে দেশের নৌবাহিনী। এর পর বাংলাদেশী হিসেবে দাবি করা একটি তালিকা নিয়ে উভয় দেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় কাজ করছে। ওই তালিকায় শনাক্ত হওয়া বাংলাদেশীদের পর্যায়ক্রমে ফেরত আনা হচ্ছে।

সুরুজ বাঙালীপ্রথম পাতা
মিয়ানমারের জলসীমা থেকে উদ্ধার হওয়া আরও ১২৫ বাংলাদেশীকে ফেরত আনার প্রক্রিয়া চলছে। পঞ্চম দফায় এ সব বাংলাদেশীকে যাচাই-বাছাই শেষে ২৫ আগস্ট ফেরত আনা হতে পারে। বিজিবির কক্সবাজার সেক্টরের কমান্ডার কর্নেল এম আনিসুর রহমান ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে জানান, মিয়ানমারের ইমেগ্রেশন বিভাগের সঙ্গে পতাকা বৈঠকের পর ২৫ আগস্ট তাদের ফেরত আনার প্রক্রিয়া...