416634-01-02_164118
সৌদি আরবে মক্কার বাইরে মিনায় পদদলিত হয়ে নিহত হাজির সংখ্যা বেড়ে ৭১৭ জন হয়েছে। এছাড়া আহত হয়েছেন অন্তত ৮৬৩ জন।

বৃহস্পতিবার মিনায় এ ঘটনা ঘটে বলে সৌদি সিভিল ডিফেন্সের বরাত দিয়ে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা এএফপি, রয়টার্স ও বিবিসি।

সৌদি কর্মকর্তারা বলছেন, ভিড়ের চাপ এবং হুড়োহুড়ির কারণে অনেক হাজি পদদলিত হয়ে মারা গেছেন।

হতাহতদের মধ্যে কোনো বাংলাদেশি রয়েছেন কিনা তা এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। উদ্ধার অভিযান চলছে বলে সৌদি সিভিল ডিফেন্স সার্ভিস টুইটার বার্তায় জানিয়েছে।

আল আরাবিয়া টেলিভিশন জানিয়েছে, মিনায় শয়তানের (প্রতীকী) উদ্দেশে পাথর নিক্ষেপের সময় ওই দুর্ঘটনা ঘটে।

দুর্ঘটনার পর সেখানে ৪ হাজার নিরাপত্তাকর্মী পাঠানোর কথা জানিয়েছে সৌদি সরকারের বেসামরিক নিরাপত্তা বিভাগ। ওইসব নিরাপত্তাকর্মীর মধ্যে জরুরি উদ্ধারকর্মী রয়েছেন।

আল জাজিরার এক প্রতিবেদনে বলা হয়, মিনায় শয়তানকে লক্ষ্য করে পাথর নিক্ষেপের সময় ‘স্ট্রিট ২০৪’ এ পদদলিত হওয়ার ওই ঘটনা ঘটে।

বাংলাদেশসহ বিশ্বের ১৫০টি দেশের ২০ লাখের বেশি ধর্মপ্রাণ মুসলমান এবার হজ করছেন। বুধবার তারা আরাফাতের ময়দানে সমবেত হয়ে ইবাদত করেন এবং হজের খুতবা শোনেন। এরপর সেখান থেকে মিনায় ফেরার পথে হাজিরা পাথর সংগ্রহ করেন, যা আজ বৃহস্পতিবার মিনার জামারায় শয়তানকে উদ্দেশ করে ছোড়া হয়।

পাথর নিক্ষেপের ওই আনুষ্ঠানিকতার সময়ই ভিড়ে পদদলিত হয়ে হতাহতের ঘটনা ঘটে।

এর আগে গত ১২ সেপ্টেম্বর জুমার দিনে সন্ধ্যায় মুসলমানদের পবিত্রতম স্থান সৌদি আরবের মক্কায় মসজিদ আল-হারামে বিরাট একটি ক্রেইন ভেঙ্গে পড়ে ১১৭ জন নিহত হন।

প্রসঙ্গত, ২০০৬ সালেও মিনায় শয়তানকে পাথর নিক্ষেপের সময় পদদলিত হয়ে ৩৬৪ জন হাজির মৃত্যু হয়েছিল।

http://crimereporter24.com/wp-content/uploads/2015/09/416634-01-02_164118.jpghttp://crimereporter24.com/wp-content/uploads/2015/09/416634-01-02_164118-300x300.jpgহীরা পান্নাআন্তর্জাতিক
সৌদি আরবে মক্কার বাইরে মিনায় পদদলিত হয়ে নিহত হাজির সংখ্যা বেড়ে ৭১৭ জন হয়েছে। এছাড়া আহত হয়েছেন অন্তত ৮৬৩ জন। বৃহস্পতিবার মিনায় এ ঘটনা ঘটে বলে সৌদি সিভিল ডিফেন্সের বরাত দিয়ে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা এএফপি, রয়টার্স ও বিবিসি। সৌদি কর্মকর্তারা বলছেন, ভিড়ের চাপ এবং হুড়োহুড়ির কারণে অনেক হাজি...