অনলাইন ডেস্ক।

স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দিন আহমদ ও সৈয়দা জোহরা তাজউদ্দিনের পুত্র সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী সোহেল তাজ। ১৯৭৫ সালের ৩ নভেম্বর সোহেল তাজ তাঁর পিতাকে হারিয়েছেন। পিতার মুত্যুর পর মা সৈয়দা জোহরা তাজউদ্দিন তাদের সংসারের হাল ধরেন। সন্তানদের নিয়ে জোহরা তাজউদ্দিনের জীবনযুদ্ধ, সংগ্রামের খণ্ডচিত্র পাওয়া গেল একটি পুরনো চিঠিতে।

নববর্ষ উপলক্ষে সৈয়দা জোহরা তাজউদ্দিন সোহেল তাজকে চিঠিটি লিখেছিলেন। বহু বছর আগে লেখা মায়ের চিঠিটি সোহেল তাজ রবিবার তাঁর ভেরিফায়েড ফেসবুক পাতায় প্রকাশ করেছেন। সোহেল তাজ লেখেন, ‘শুভ নববর্ষ ২০১৮! আমার আম্মা বহু বছর আগে এই চিঠি নববর্ষ উপলক্ষে আমাকে লেখেন।’

সোহেল তাজকে পাঠানো সৈয়দা জোহরা তাজউদ্দিনের চিঠিটি তুলে ধরা হল:

‘প্রিয় সোহেল,

নববর্ষের শুভেচ্ছা ভালোবাসা নিও। আবার একটি নুতন বৎসর আমরা উপহার পেলাম। বাবা সোহেল, এই বৎসর তোমার জন্য বয়ে আনুক অনেক সাফল্য, জীবনের দরজা তোমার প্রতিষ্ঠিত হবার পথকে উন্মুক্ত করুক। সময়কে অনেক সাবধানে অনেক মূল্য দিয়ে ব্যবহার করবে।’

বাবার অসম্পূর্ণ কাজ শেষ করার তাগিদ দিয়ে ছেলেকে তিনি লেখেন, ‘বাবার অনেক আরাধ্য কাজ পড়ে আছে। নিজেকে যোগ্য করে তৈরি হতে হবে। আমি তুমি আমরা সবাই কাজের মধ্যে বেঁচে থাকব, এই আশার বাণী এবং শুভেচ্ছা ভালোবাসা জানালাম।’
খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের।

http://crimereporter24.com/wp-content/uploads/2018/01/31.jpghttp://crimereporter24.com/wp-content/uploads/2018/01/31-300x300.jpgশিশির সমরাটশেষের পাতা
অনলাইন ডেস্ক। স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দিন আহমদ ও সৈয়দা জোহরা তাজউদ্দিনের পুত্র সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী সোহেল তাজ। ১৯৭৫ সালের ৩ নভেম্বর সোহেল তাজ তাঁর পিতাকে হারিয়েছেন। পিতার মুত্যুর পর মা সৈয়দা জোহরা তাজউদ্দিন তাদের সংসারের হাল ধরেন। সন্তানদের নিয়ে জোহরা তাজউদ্দিনের জীবনযুদ্ধ, সংগ্রামের খণ্ডচিত্র পাওয়া গেল একটি পুরনো চিঠিতে। ...