DHASON
সিরাজগঞ্জের তাড়াশে ধর্ষণ মামলা তুলে না নেয়ায় গ্রাম্য শালিসে ওই ধর্ষিতা কলেজ ছাত্রীর পরিবারকে সমাজচ্যুত করা হয়েছে। বিষয়টির সমাধাকল্পে শালিসে ডাকার পরও ওই পরিবাবের কেউ সেখানে উপস্থিত না হওয়ায় শুক্রবার রাতে তাদের সমাজচ্যুত করা হয় বলে গ্রাম্য মাতব্বর আব্দুল বারিক মাষ্টার জানিয়েছেন।

উপজেলার মাঝদক্ষিণা গ্রামের ওই শালিসে গ্রামের ডাঃ শহিদুল ইসলাম, হেলাল উদ্দিন, আব্দুল মালেক তালুকদার, এশারত আলী বাবুসহ অনেক মাতব্বরই উপস্থিত ছিলেন বলে জানান তিনি।

তাড়াশ উপজেলার দেশীগ্রাম ইউনিয়নের মাঝদক্ষিণা পশ্চিমপাড়ার বাসিন্দা ও সিরাজগঞ্জ সরকারী কলেজের ইসলামী ইতিহাসের শেষ বর্ষের ছাত্রী ওই ধর্ষিতা আজ শনিবার রাত ৮ টার দিকে মুঠো ফোনে ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে জানান, ১ আগষ্ট রাত ১১টার দিকে নিজ বাড়ির মাটির ঘরে ঘুমিয়ে থাকা অবস্থায় দরজা ভেঙ্গে ঘরে প্রবেশ করে পূর্বপাড়ার কলিম মাষ্টারের ছেলে অবিবাহিত আবুল বাশার (৩৭) তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। এ ঘটনার পর বিষয়টি গ্রাম্য শালিসে আপসের প্রস্তাব উপেক্ষা করে তিনি নিজে বাদী হয়ে থানায় মামলা করলেও পুলিশ এখনও তাকে গ্রেপ্তার করেনি। উপরোন্ত মামলা তুলে না নেয়ায় গ্রাম্য শালিসে তাদের পরিবারকে সমাজচ্যুত করা হয়েছে।

ধর্ষিতার ভাবী অভিযোগ করে ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে বলেন, শালিসী বৈঠকের সমাজচ্যুত করার পর আশপাশের সকলকে আমাদের সাথে কথা বলতে ও বাড়িতে যাতায়াত করতে বারং করা হয়েছে। দোকানদাররা সদাই বিক্রি করছে না। বিষয়টি জেনে শনিবার সকালে এনজিও’র ২ নারী বাড়িতে আশায় তাদের অপদস্ত করে তাড়িয়ে দেয়া হয়েছে। ননদ ধর্ষণ মামলা করায় ২৩ আগষ্ট বাড়ির অদুরে বোমা রেখে আবুল বাশার পরিকল্পিত ভাবে আমার স্বামীকে র‌্যাব দিয়ে ধরিয়ে দেয়ায় সে এখনও জেলহাজতে রয়েছে। বাশারের নামে রায়গঞ্জ থানায় দায়ের হওয়া আরও একটি ধর্ষণ মামলা আদালতে বিচারাধীন রয়েছে।

তাড়াশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এটিএম আমিনুল ইসলাম ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে জানান, আবুল বাশারের অনেক দাপটে। সব সময় প্রচুর পরিমানে লোকজন নিয়ে ঘোরাফেরা করে। ধর্ষণ মামলার তদন্ত চলছে। প্রমান পাওয়া গেলেই তাকে গ্রেপ্তার করা হবে। ধর্ষিতা কলেজ ছাত্রীর পরিবারকে সমাজচ্যুত করার বিষয়টি আমাকে কেউ অবগত করেনি।

মামলার আসামী আবুল বাশার শনিবার সন্ধ্যায় মোবাইলে ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে জানান, “তাড়াশ ও রায়গঞ্জ থানায় আমার নামে দায়ের হওয়া ২টি ধর্ষণ মামলাই মিথ্যা। গ্রামের উন্নয়ন করি তাই লোকজন আমাকে ভালবাসে এবং ডাকলে শত শত লোকজন ছুটে আসে। মামলায় অভিযুক্ত হলে পুলিশ আমাকে ধরবে তাতে কোন আপত্তি নাই”। ধর্ষিতার ভাইকে র‌্যাব দিয়ে ধরিয়ে দেয়ার কথাও অস্বীকার করেন বাশার।

– See more at: http://www.bd-pratidin.com/country-village/2015/09/12/106137#sthash.SQbreGlK.dpuf

নৃপেন পোদ্দারএক্সক্লুসিভ
সিরাজগঞ্জের তাড়াশে ধর্ষণ মামলা তুলে না নেয়ায় গ্রাম্য শালিসে ওই ধর্ষিতা কলেজ ছাত্রীর পরিবারকে সমাজচ্যুত করা হয়েছে। বিষয়টির সমাধাকল্পে শালিসে ডাকার পরও ওই পরিবাবের কেউ সেখানে উপস্থিত না হওয়ায় শুক্রবার রাতে তাদের সমাজচ্যুত করা হয় বলে গ্রাম্য মাতব্বর আব্দুল বারিক মাষ্টার জানিয়েছেন। উপজেলার মাঝদক্ষিণা গ্রামের ওই শালিসে গ্রামের ডাঃ শহিদুল...