untitled-29_168245
ইসরায়েলি ও ফিলিস্তিনিদের মধ্যে দুই সপ্তাহেরও বেশি সময় ধরে চলা প্রাণঘাতী সহিংসতায় ‘গভীর উদ্বেগ’ প্রকাশ করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। উভয়পক্ষকে শান্ত থাকার পাশাপাশি নেতাদের উস্কানিমূলক মন্তব্য পরিহারেরও আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। এদিকে গতকাল শনিবার তিন ফিলিস্তিনিকে গুলি করে হত্যা করেছে ইসরায়েলি সেনাবাহিনী এবং একজন বসতি স্থাপনকারী ইসরায়েলি বাসিন্দা।

জেরুজালেম ও ইসরায়েলে দুই সপ্তাহের সহিংসতায় এ পর্যন্ত ৭ ইসরায়েলি ও ৪০ ফিলিস্তিনি নিহত এবং বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। এ পরিস্থিতিতে শুক্রবার জেরুজালেমে ব্যাপকভাবে ইসরায়েলি নিরাপত্তা বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে।
১৯৮৭-১৯৯৩ ও ২০০০-২০০৫ সালের ফিলিস্তিনি অভ্যুত্থানের সময় প্রায় প্রতিদিনের সংঘর্ষে কয়েক হাজার মানুষ নিহত ও আরও অনেকে আহত হন।
সহিংসতা ক্রমে বৃদ্ধি পাওয়ায় পরিস্থিতি এখন অভ্যুত্থানের মুখে। এ অবস্থায় ওবামা ইসরায়েলি ও ফিলিস্তিনি নেতাদের উস্কানিমূলক বাগাড়ম্বর বন্ধের আহ্বান জানিয়েছেন। ওয়াশিংটনে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ার খবরে আমরা খুবই উদ্বিগ্ন।’ তিনি আরও বলেন, ‘ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু ও ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস এবং নেতৃস্থানীয় প্রভাবশালী ব্যক্তিদের উস্কানিমূলক বাগাড়ম্বর বাদ দিতে হবে। এসব বাগাড়ম্বর সহিংসতা, ক্ষোভ ও ভুল বোঝাবুঝি উস্কে দেবে।’ ছুরিকাঘাতের ঘটনা থেকে নিজের নাগরিকদের রক্ষার অধিকার ইসরায়েলের রয়েছে বলেও মন্তব্য করেন ওবামা। ওবামা বলেন, ‘ইসরায়েল-ফিলিস্তিন যদি শান্তি ও নিরাপদে পাশাপাশি বসবাস করতে চায়, তাহলে ইসরায়েলকে সত্যিকারের নিরাপদ করে গড়ে তুলতে হবে এবং ফিলিস্তিনকে তাদের জনগণের আকাঙ্ক্ষা পূরণ করতে হবে।’ তবে এই মুহূর্তে নিরপরাধ মানুষ যাতে মারা না পড়ে তা নিশ্চিত করার ওপরও জোর দেন তিনি।
এদিকে শুক্রবার মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি সাম্প্রতিক সহিংসতা বন্ধের সর্বোত্তম উপায় নিয়ে আলোচনার জন্য নেতানিয়াহুর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন এবং অবিলম্বে শান্তি প্রতিষ্ঠায় যুক্তরাষ্ট্রের সহায়তার প্রস্তাব দেন। যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরায়েলের কর্মকর্তারা জানান, নেতানিয়াহু ও কেরি আগামী সপ্তাহে বার্লিনে বৈঠকের পরিকল্পনা করছেন। তবে এ ব্যাপারে বিস্তারিত জানানো হয়নি।
গতকাল পশ্চিম তীরের শহর হেবরনে একটি ইহুদি বসতির কাছে এক ইসরায়েলি ইহুদিকে ছুরিকাঘাতের চেষ্টা করছিল অভিযোগে এক ফিলিস্তিনিকে গুলি করে হত্যা করে ওই ব্যক্তি। পশ্চিম তীরের হেবরনের প্রবেশপথেই আরেকজন ফিলিস্তিনি নিহত হন। এদিকে কয়েক মিনিটের মধ্যেই ইসরায়েলের দখলে রাখা পূর্ব জেরুজালেমে সেনাবাহিনীর গুলিতে তৃতীয় এক ফিলিস্তিনির মৃত্যু ঘটে।
আগের দিন শুক্রবার পশ্চিম তীরের নাবলুসে জোসেফের সমাধিতে অগি্নসংযোগ করে বিক্ষুব্ধ ফিলিস্তিনিরা। তবে ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস এ ঘটনার নিন্দা জানিয়েছেন। শুক্রবারও ইসরায়েলিদের গুলিতে দুই ফিলিস্তিনি নিহত ও ৯৮ জন আহত হয়েছেন। অন্যদিকে নাবলুসের কাছে বেইত ফুরিকে সংঘর্ষে আরও এক ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন। এ ছাড়া পশ্চিম তীরে এক ইহুদি স্থাপনার বাইরে এক আলোকচিত্রীর ছদ্মবেশে এক ফিলিস্তিনি ইসরাইলি এক সৈন্যকে ছুরিকাঘাত করে আহত করেন। অবশ্য ওই ফিলিস্তিনি পরে গুলিতে নিহত হন।

http://crimereporter24.com/wp-content/uploads/2015/10/untitled-29_168245.jpghttp://crimereporter24.com/wp-content/uploads/2015/10/untitled-29_168245-300x300.jpgহীরা পান্নাআন্তর্জাতিক
ইসরায়েলি ও ফিলিস্তিনিদের মধ্যে দুই সপ্তাহেরও বেশি সময় ধরে চলা প্রাণঘাতী সহিংসতায় 'গভীর উদ্বেগ' প্রকাশ করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। উভয়পক্ষকে শান্ত থাকার পাশাপাশি নেতাদের উস্কানিমূলক মন্তব্য পরিহারেরও আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। এদিকে গতকাল শনিবার তিন ফিলিস্তিনিকে গুলি করে হত্যা করেছে ইসরায়েলি সেনাবাহিনী এবং একজন বসতি স্থাপনকারী ইসরায়েলি বাসিন্দা। জেরুজালেম ও...