আন্তর্জাতিক ডেস্ক ।
২০০৮ সালে ভয়াবহ ভূমিকম্পে প্রাণ গিয়েছিল ৮৭ হাজার মানুষের। সেই তথ্য সম্পূর্ণ লুকিয়ে গিয়েছিল চীন। এমনই দাবি করলেন জার্মানির বার্লিনের এক সমাজকর্মী তথা অ্যাক্টিভিস্ট আই ওয়েইওয়েই।খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের।

তাঁর বক্তব্য চিনে সেই ভূমিকম্পে যতজন মারা গিয়েছিলেন, তার তুলনায় মৃত্যুর সংখ্যা অনেক কম দেখানো হয়েছিল। ৮৭ হাজার মানুষ প্রাণ হারিয়েছিলেন। একটা গোটা গ্রাম নিশ্চিহ্ন হয়ে গিয়েছিল। সর্বোপরি ধ্বংস্ব হয়ে গিয়েছিল প্রায় ৭০০০ স্কুল।

কিন্তু এই সংক্রান্ত বিশেষ কোনও তথ্য চীন প্রকাশ করতে দেয়নি বলে অভিযোগ করেছেন ওয়েইওয়েই। শুধু তাই নয়, যেখানে ৮৭ হাজার মানুষ মারা গিয়েছিলেন, সেখানে সরকারিভাবে যে রিপোর্ট চীন প্রকাশ করে, তাতে দেখানো হয় অনেক কম মানুষ মারা গিয়েছিলেন।

সবথেকে বড় বিষয় স্কুল ধসে মারা যায় ৫৩৩৫ জন শিশু। চীনের প্রকাশিত তথ্যে দেখা যায় মারা গিয়েছে এক হাজার জন শিশু।

২০০৮ সালে ভয়াবহ ভূমিকম্পে কেঁপে ওঠে চীন। রিখটার স্কেলে এর তীব্রতা ছিল ৭.৯। উদ্ধারকারী দলে ছিলেন আই ওয়েইওয়েই। সেই সময় তাঁর মুখ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল বলে অভিযোগ করেছেন তিনি।

প্রায় এক দশক পরে তিনি বলার সুযোগ পেয়েছেন, তাই এই তথ্যগুলো বিশ্বের সামনে নিয়ে আসার কথা ভেবেছেন তিনি বলে জানান ওয়েইওয়েই।
খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের। সূত্র: এনডিটিভি, এএফপি

http://crimereporter24.com/wp-content/uploads/2018/05/105.jpghttp://crimereporter24.com/wp-content/uploads/2018/05/105-300x254.jpgজান্নাতুল ফেরদৌস মেহরিনআন্তর্জাতিক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক । ২০০৮ সালে ভয়াবহ ভূমিকম্পে প্রাণ গিয়েছিল ৮৭ হাজার মানুষের। সেই তথ্য সম্পূর্ণ লুকিয়ে গিয়েছিল চীন। এমনই দাবি করলেন জার্মানির বার্লিনের এক সমাজকর্মী তথা অ্যাক্টিভিস্ট আই ওয়েইওয়েই।খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের। তাঁর বক্তব্য চিনে সেই ভূমিকম্পে যতজন মারা গিয়েছিলেন, তার তুলনায় মৃত্যুর সংখ্যা অনেক কম দেখানো হয়েছিল।...