1443452660
ভৌগলিক অবস্থানের কারণে বাংলাদেশ সুবিধাজনক অবস্থায় রয়েছে যা অর্থনৈতিক উন্নতির গতিকে বাড়িয়ে দিতে পারে বলে মনে করছেন বিশ্বব্যাংকের বিশ্বষজ্ঞরা। সংস্থাটির দক্ষিণ এশিয়া বিষয়ক প্রধান অ্যানেট ডিক্সন ও সংস্থাটির দক্ষিণ এশিয়া বিষয়ক প্রধান অর্থনীতিবিদ সঞ্জয় কাঠুরিয়া ভারতের দিল্লিতে তিন দিন ব্যাপী ‘সাউথ এশিয়ান ইকোনমিক কনক্লেভ’এ এমনটাই বলেছেন।

অ্যানেট ডিক্সন বলেন, ‘ভৌগলিকভাবে বাংলাদেশের অবস্থান দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার মাঝামাঝি। এই সুবিধাকে কাজে লাগিয়ে বাংলাদেশ বাণিজ্য, যোগাযোগ ও অবকাঠামো উন্নয়ন করতে পারে।’

বাংলাদেশের এই সম্ভাবনার কথা বলে তিনি বলেন, বাংলাদেশের নেতারা এই ব্যপারে সচেতন এবং উন্নয়নের জন্য একে কাজে লাগাতেও আগ্রহী। সোমবার দুপুরে সাংবাদিকদেরকে ডিক্সন বলেন, ‘বাংলাদেশ তার বৃহৎ প্রতিবেশী ভারতের সঙ্গে অধিকাংশ সমস্যা মিটিয়ে ফেলেছে, যা পাকিস্তান পারেনি। পাশাপাশি বাংলাদেশ সরকার নিজস্ব অর্থনীতি ও মানবসম্পদ উন্নয়নে মনোযোগ কেন্দ্রীভূত করেছে। সারা বিশ্বে এটি প্রশংসা পেয়েছে।’

বিশ্বব্যাংকের দক্ষিণ এশিয়া বিষয়ক প্রধান অর্থনীতিবিদ সঞ্জয় কাঠুরিয়া বলেন, ভারত বর্তমান বিশ্বের দ্রুততম বর্ধনশীল অর্থনীতির দেশ। দেশটি ‘লুক-ইস্ট’ বা পূর্ব মুখী নীতি গ্রহণ করে দক্ষিণ পূর্ব এশিয়া এবং পূর্ব এশিয়ার দেশগুলোকে সংযুক্ত করার চেষ্টা করছে। আর বাংলাদেশকে ছাড়া তা সম্ভব নয় বলে মনে করেন কাঠুরিয়া।

এ কারণে আঞ্চলিক যোগাযোগের উন্নয়নে বিনিয়োগ বাড়া উচিৎ মন্তব্য করে কাঠুরিয়া বলেন, ‘এতে বাংলাদেশের উপর দিয়ে যে বাণিজ্য হবে, তা থেকে কোটি কোটি টাকা আয় করা সম্ভব। বাংলাদেশের উপর দিয়ে ভারতের মূল ভূখণ্ড ও উত্তর-পশ্চিম অংশের মধ্যে পণ্য ও যাত্রী পরিবহন থেকেও কম টাকা আসবে না।’

http://crimereporter24.com/wp-content/uploads/2015/09/1443452660.jpghttp://crimereporter24.com/wp-content/uploads/2015/09/1443452660.jpgহাসন রাজাজাতীয়
ভৌগলিক অবস্থানের কারণে বাংলাদেশ সুবিধাজনক অবস্থায় রয়েছে যা অর্থনৈতিক উন্নতির গতিকে বাড়িয়ে দিতে পারে বলে মনে করছেন বিশ্বব্যাংকের বিশ্বষজ্ঞরা। সংস্থাটির দক্ষিণ এশিয়া বিষয়ক প্রধান অ্যানেট ডিক্সন ও সংস্থাটির দক্ষিণ এশিয়া বিষয়ক প্রধান অর্থনীতিবিদ সঞ্জয় কাঠুরিয়া ভারতের দিল্লিতে তিন দিন ব্যাপী 'সাউথ এশিয়ান ইকোনমিক কনক্লেভ'এ এমনটাই বলেছেন। অ্যানেট ডিক্সন বলেন,...