bd_111817
গত মাসে ভারতের উত্তরপ্রদেশের দাদরিতে গরুর মাংস খাওয়ার গুজব ছড়িয়ে মোহম্মদ আকলাখকে (৫০) পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় ভারত জুড়ে বিতর্কের মধ্যেই নিজের গায়ে আগুন লাগিয়ে আত্মহত্যা করার চেষ্টা করলেন গরুর খাদ্য বিক্রেতা এক মুসলিম ব্যক্তি। মর্মান্তিক এই ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের পাঞ্জাবের ভাতিন্ডায়।

সূত্রে খবর ভাতিন্ডা-দাবওয়ালি সড়কের ওপর অবস্থিত ‘বাল গোপাল গোশালা’-র ভিতরে একটি ছোট্ট দোকানে দীর্ঘদিন ধরেই গরুর খাদ্য বিক্রি করতেন ঈদ মোহম্মদ (৪০)। কিন্তু একজন মুসলিম হওয়ায় গত কয়েকদিন ধরেই তাঁকে গরুর খাদ্য বিক্রিতে বাধা দেওয়া হচ্ছিল বলে অভিযোগ। এমনকি তাঁর ওই দোকানটিকে ওই গোশালার বাইরে সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্যও বিভিন্নভাবে চাপ সৃস্টি করা হতো।এনিয়ে গতকাল সোমবার ওই গোশালার (কাউ শেড) কর্মচারী মনু (৩২)-এর সঙ্গে ঈদ মোহম্মদের বিতর্ক বাধে। এসময় মোহম্মদকে খারাপ ভাষাও অপমানও করা হয়। এরপর সেই অপমান সহ্য করতে না পেরে বিকেলেই দোকানের বাইরে এসে গায়ে পেট্রোল ঢেলে আগুন লাগিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন মোহম্মদ।

অগ্নিদগ্ধ অবস্থায় তাঁকে দেখতে পেয়ে স্থানীয় পথচারীরা এবং একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা (এনজিও)-এর চেষ্টায় তাঁকে নিয়ে যাওয়া হয় ফরিদকোটের গুরু গোবিন্দা সিং মেডিকেল কলেজ এন্ড হাসপাতালে। অগ্নিকাণ্ডে তাঁর শরীরের ৬০ শতাংশ পুড়ে যায়। হাসপাতাল সূত্রে খবর মোহম্মদের শারীরিক অবস্থা অত্যন্ত সঙ্কটজনক।

ভাতিন্ডা সিভিল হাসপাতালে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের সামনে বয়ান দিতে গিয়ে মোহম্মদ জানান ‘ভিন্ন ধর্মের মানুষ হওয়ায় ওই গোশালায় কর্মচারীরা তাঁকে গবাদি পশুর খাদ্য বিক্রি করতে দিতো না। উল্টে তাঁকে অপমানও করা হয়’। মোহম্মদের বয়ানের ভিত্তিতে পুলিশ মনুর বিরুদ্ধে ভারতীয় দন্ডবিধির ৩০৬ (আত্মহত্যায় প্ররোচনা) ধারায় অভিযোগ দায়ের করেছে।

তদন্তকারী অফিসার করম সিং জানিয়েছেন, ‘ঈদ মোহম্মদ আমাদেরকে জানান গবাদি পশুর খাদ্য বিক্রি করা নিয়ে অভিযুক্ত ব্যক্তি মনু তাঁর ওপর নির্যাতন চালায়। প্রথমে ওই গোশালার মধ্যেই গরুর খাদ্য বিক্রি করতেন মোহম্মদ। কিন্তু মনু সেখানে নিয়োগ পাওয়ার পরই অবস্থা পাল্টাতে থাকে। দোকানটিকে বন্ধ করে দেওয়ার জন্য মনু তাঁর ওপর চাপ সৃষ্টি করত বলে অভিযোগ। এমনকি এক মাস আগে তাঁর ওই দোকানটি অন্য জায়গায় স্থানান্তরিত করে নেওয়ার কথাও বলা হয়েছিল। এ নিয়ে গত সোমবার মোহম্মদের স্ত্রী এবং শালার সঙ্গে মনু’র জোর বির্তক বাধে। মোহম্মদের দাবি গরুর খাদ্য বিক্রি করার জন্য মনু তাঁর কাছ থেকে কমিশন চাইত। যদিও ওই গোশালার (কাউ শেড) ম্যানেজার হিন্দ রাজ সিংলা সেই কথা অস্বীকার করেছেন। স্থানীয় বিধায়ক স্বরূপ চাঁদ সিংলা জানিয়েছে এই ঘটনার সঙ্গে সাম্প্রদায়িক রঙ লাগানো উচিত নয়।

http://crimereporter24.com/wp-content/uploads/2015/10/bd_111817.jpghttp://crimereporter24.com/wp-content/uploads/2015/10/bd_111817-300x300.jpgনৃপেন পোদ্দারআন্তর্জাতিক
গত মাসে ভারতের উত্তরপ্রদেশের দাদরিতে গরুর মাংস খাওয়ার গুজব ছড়িয়ে মোহম্মদ আকলাখকে (৫০) পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় ভারত জুড়ে বিতর্কের মধ্যেই নিজের গায়ে আগুন লাগিয়ে আত্মহত্যা করার চেষ্টা করলেন গরুর খাদ্য বিক্রেতা এক মুসলিম ব্যক্তি। মর্মান্তিক এই ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের পাঞ্জাবের ভাতিন্ডায়। সূত্রে খবর ভাতিন্ডা-দাবওয়ালি সড়কের ওপর অবস্থিত ‘বাল গোপাল গোশালা’-র...