6d4ba91ec1a7e2a4de2480ab20668d9c-PM
ছাত্রলীগের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয়, এমন কাজ থেকে বিরত থাকতে সংগঠনটির নেতা-কর্মীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, ‘এই উপমহাদেশের সবচেয়ে প্রাচীন ও ঐতিহ্যবাহী সংগঠন হলো ছাত্রলীগ। এই সংগঠনের ভাবমূর্তি যেন কোনোভাবেই ক্ষুণ্ন না হয়।’
গতকাল শনিবার রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ২৮তম জাতীয় সম্মেলনের উদ্বোধনী পর্বে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন। ২০১১ সালে দুই বছরের জন্য গঠিত হয়ে ছাত্রলীগের বর্তমান কমিটি চার বছর পার করেছে। আজ রোববার ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে নেতা-কর্মীদের ভোটের মাধ্যমে পরবর্তী সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হবেন।
সম্মেলন দুই বছর দেরি হওয়ার কারণ হিসেবে প্রধানমন্ত্রী ২০১৩ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচন ও ২০১৪ সালে ওই নির্বাচনের বর্ষপূর্তিতে রাজনৈতিক অস্থিরতাকে দায়ী করেন। তিনি বলেন, ‘একমাত্র এই সংগঠনই সঠিকভাবে একটি সংগঠন হিসেবে পরিচালিত হয়। যদিও অনেক বাধার সম্মুখীন হতে হয়। তিনি ছাত্রলীগের মূলমন্ত্র—শিক্ষা, শান্তি ও প্রগতির আদর্শ নিয়ে সংগঠনের প্রতিটি নেতা-কর্মীকে এগিয়ে যাওয়ার আহ্বান জানান।
প্রধানমন্ত্রী তাঁর ৪৩ মিনিটের ভাষণে ছাত্রলীগের গৌরবোজ্জ্বল ইতিহাস স্মরণ করেন। তিনি বলেন, ‘আমি নিজেও ছাত্রলীগের একজন কর্মী ছিলাম। নেতা হওয়ার সুযোগ আমার হয়নি কখনো। ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে আমাকে কখনো সদস্য পদ দেওয়া হয়নি। এটা আমার একটা দুঃখ।’ এ ছাড়া পঁচাত্তরের ১৫ আগস্টের কথা স্মরণ করে আবেগাক্রান্ত হন প্রধানমন্ত্রী।
প্রধানমন্ত্রী ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের পড়ালেখায় মনোযোগী হওয়ার ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বজায় রাখার উপদেশ দেন।
সম্মেলনে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম বলেন, পৃথিবীর অনেক দেশে ছাত্র সংগঠন বিলুপ্তির পথে। কিন্তু বাংলাদেশে ছাত্র সংগঠনের প্রয়োজন আছে, থাকবে। ছাত্রলীগ আরও সংগঠিত হয়ে আগামী দিনে অতীত ঐতিহ্যের মতোই ভূমিকা রাখবে।
সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এবং ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ওবায়দুল কাদের বলেন, দেশকে বদলাতে হলে ছাত্রলীগকেও বদলাতে হবে। আজকের দিনের স্লোগান হোক, রাজনীতি পরবর্তী নির্বাচনের জন্য নয় বরং পরবর্তী প্রজন্মের জন্য।
সাংগঠনিক প্রতিবেদন উপস্থাপনের সময় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিকী নাজমুল আলম বলেন, কিছু কিছু ক্ষেত্রে ছাত্রলীগ কলম-সন্ত্রাসের শিকার হয়েছে। সম্মেলনকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগে ‘অনুপ্রবেশকারীরা’ গণমাধ্যমে নেতিবাচক খবর সরবরাহ করে বলে তাঁর দাবি।
সংগঠনের সভাপতি এইচ এম বদিউজ্জামান সোহাগের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে সম্মেলনের প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক জয়দেব নন্দী এবং অভ্যর্থনা কমিটির আহ্বায়ক আবদুল কাদের মহিউদ্দিন মাহী প্রমুখ বক্তব্য দেন। বেলা ১১টা ১০ মিনিটের দিকে জাতীয় সংগীতের সঙ্গে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করে অনুষ্ঠান শুরু হয়। পরে পায়রা ও বেলুন উড়ান প্রধানমন্ত্রী।

বাহাদুর বেপারীজাতীয়
ছাত্রলীগের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয়, এমন কাজ থেকে বিরত থাকতে সংগঠনটির নেতা-কর্মীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, ‘এই উপমহাদেশের সবচেয়ে প্রাচীন ও ঐতিহ্যবাহী সংগঠন হলো ছাত্রলীগ। এই সংগঠনের ভাবমূর্তি যেন কোনোভাবেই ক্ষুণ্ন না হয়।’ গতকাল শনিবার রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ২৮তম জাতীয় সম্মেলনের উদ্বোধনী পর্বে প্রধান অতিথির...