NIRJATON
পিরোজপুরের ভাণ্ডারিয়া উপজেলায় স্বামীর নির্যাতনে শাহানাজ (৪০) নামে এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে।

জানা গেছে, উপজেলার ধাওয়া-নলকাটা গ্রামের মৃত জব্বার হাওলাদারের কন্যা শাহানাজ ঝালকাঠি জেলার কাঠাঁলীয়া উপজেলার পশ্চিম চেঁচরী গ্রামের মাহাবুব মল্লিকের সঙ্গে দুই বছর আগে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন। এটি উভয়ের দ্বিতীয় বিয়ে। বিয়ের পর থেকে মাহাবুব যৌতুকের জন্য স্ত্রীকে চাপ দিতে থাকে। শাহানাজ দাবিকৃত যৌতুকের এক লাখ টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে প্রায়ই তার উপর নির্যাতন চালায় মাহাবুব। এক পর্যায়ে শাহানাজ স্বামীর সংসার ছেড়ে পিত্রালয় এসে ভাইদের কাছে আশ্রয় নেয়। ২৫ অগাস্ট ভাণ্ডারিয়া ব্রাক অফিসের মানবাধিকার ও আইন সহায়তা কেন্দ্রে স্বামীর বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করে। বিষয়টি মীমাংসার জন্য মানবাধিকার ও আইন সহায়তা কেন্দ্রের কর্মকর্তা মোস্তাফিজুর রহমানের নোটিশের ভিত্তিতে মঙ্গলবার বেলা ১০টার দিকে তারা ব্রাক অফিসে উপস্থিত হন। শাহানাজের স্বামী মাহাবুব মল্লিক স্ত্রীকে ব্রাক অফিসের সামনের রাস্তায় দেখে জোর করে একটি রিকশায় তুলে ধাওয়া গ্রামের ফুলতলা নামক স্থানে নিয়ে গিয়ে তার উপর অমানবিক নির্যাতন চালিয়ে রাস্তায় ফেলে রেখে যায়। স্বজনরা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে ভাণ্ডারিয়া হাসপাতালে ও পরে বরিশাল শের ই বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে দুপুর একটার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

ভাণ্ডারিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. কামরুজ্জামান তালুকদার ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

ওয়াজ কুরুনীস্বদেশের খবর
পিরোজপুরের ভাণ্ডারিয়া উপজেলায় স্বামীর নির্যাতনে শাহানাজ (৪০) নামে এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে। জানা গেছে, উপজেলার ধাওয়া-নলকাটা গ্রামের মৃত জব্বার হাওলাদারের কন্যা শাহানাজ ঝালকাঠি জেলার কাঠাঁলীয়া উপজেলার পশ্চিম চেঁচরী গ্রামের মাহাবুব মল্লিকের সঙ্গে দুই বছর আগে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন। এটি উভয়ের দ্বিতীয় বিয়ে। বিয়ের পর থেকে মাহাবুব যৌতুকের জন্য...