APORADHER DAYRE THEKE
সিলেটে বিনা অপরাধে ২২ বছর কারাবাসের পর অবশেষে মুক্তি পেয়েছেন ফজলু মিয়া নামের এক ব্যক্তি।

বুধবার এক সহপাঠীর জিম্মায় সিলেটের মুখ্য মহানগর হাকিম জহুরুল হক চৌধুরী তার জামিন মঞ্জুর করেন। তিনি সিলেটের দক্ষিণ সুরমার তেতলি এলাকার বাসিন্দা।

জানা যায়, ১৯৯৩ সালের ১১ জুলাই সিলেট মহানগরীর কোর্টপয়েন্ট থেকে মানসিক ভারসাম্যহীন অবস্থায় ফজলু মিয়াকে আটক করে পুলিশ। পরে মানসিক স্বাস্থ্য আইনের ১৩ ধারায় তাকে আটক দেখিয়ে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়। এরপর আদালত একাধিকবার ফজলু মিয়ার জামিন মঞ্জুর করেন। কিন্তু তার কোনো নিকটাত্মীয়ের খোঁজ না পাওয়ায় কারান্তরিণ থাকতে হয় ফজলু মিয়াকে।

এভাবে কারাগারে পেরিয়ে যায় ফজলু মিয়ার দীর্ঘ ২২ বছর। কয়েকদিন আগে ফজলু মিয়ার সহপাঠী সিলেটের দক্ষিণ সুরমার তেতলি ইউনিয়নের সাবেক ইউপি সদস্য কামাল উদ্দিন রাসেল জানতে পারেন ফজলু’র কারাবাসের বিষয়টি। তিনি তাকে জামিনে মুক্ত করার উদ্যোগ নেন।

কামাল উদ্দিন রাসেল ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে বলেন, ‘দক্ষিণ সুরমার তেতলি এলাকার বাসিন্দা ফজলু মিয়া আমার সহপাঠি ছিলেন। তাকে অনেক বছর খুঁজেছি, কিন্তু পাইনি। তিন বছর আগে জানতে পারি তিনি মারা গেছেন। এরপর খোঁজাখুঁজি বন্ধ করে দেই। কয়েকদিন আগে জানতে পারি, তিনি কারাবন্দি রয়েছেন। এরপর খোঁজখবর নিয়ে তার জামিনের ব্যবস্থা করি।’

ফজলু মিয়ার পক্ষে জামিন শুনানীতে অংশ নেয়া এডভোকেট জ্যোৎস্না ইসলাম বলেন, ‘আদালতে ফজলু মিয়াকে আসামি নয় বরং একজন ভিকটিম হিসেবে উপস্থাপন করেছি। আদালত বিষয়টি অনুধাবন করে জামিন মঞ্জুর করেছেন।’
sylhet pic (noble) 13.10.15 (1)_112005

http://crimereporter24.com/wp-content/uploads/2015/10/APORADHER-DAYRE-THEKE1.jpghttp://crimereporter24.com/wp-content/uploads/2015/10/APORADHER-DAYRE-THEKE1-300x300.jpgঅর্ণব ভট্টএক্সক্লুসিভ
সিলেটে বিনা অপরাধে ২২ বছর কারাবাসের পর অবশেষে মুক্তি পেয়েছেন ফজলু মিয়া নামের এক ব্যক্তি। বুধবার এক সহপাঠীর জিম্মায় সিলেটের মুখ্য মহানগর হাকিম জহুরুল হক চৌধুরী তার জামিন মঞ্জুর করেন। তিনি সিলেটের দক্ষিণ সুরমার তেতলি এলাকার বাসিন্দা। জানা যায়, ১৯৯৩ সালের ১১ জুলাই সিলেট মহানগরীর কোর্টপয়েন্ট থেকে মানসিক ভারসাম্যহীন অবস্থায়...