রংপুর অফিস । মহানগর প্রতিনিধি
বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, সত্য কথা বলায় প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহাকে পদত্যাগে বাধ্য করা হয়েছে।খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের।
তিনিও হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষ। ষড়যন্ত্রের কারণে তাকে দেশ ছাড়তেও বাধ্য হতে হয়েছে। গণমাধ্যম, বিচার বিভাগ সবই এখন সরকারের নিয়ন্ত্রণে।

ফেসবুকে ধর্মীয় অবমাননার কর স্ট্যাটাস দেয়ার অভিযোগে রংপুরে হিন্দু সম্প্রদায়ের উপর হামলা, ভাংচুর ও বাড়ি-ঘরে আগুন দেওয়ার ঘটনায় সোমবার ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শনকালে তিনি সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।

রংপুরের সহিংস ঘটনায় বিচার বিভাগীয় তদন্তের দাবি জানিয়ে তিনি বলেন, ওই তদন্তের কাজে এমন কাউকে নিয়োগ করা যাবে না, যারা সরকার প্রভাবিত। কারণ বর্তমানে বিচার বিভাগ সরকারের প্রভাবমুক্ত নয়। প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার বিদায় তারই প্রমাণ। বিএনপির পক্ষ থেকেও তদন্ত দল গঠন করা হবে। দেশের মানুষ শান্তিতে থাকুক এটাই বিএনপি চায়।

রবিবার ঠাকুরপাড়া গ্রামে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলো দেখতে গিয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের ভারতের সঙ্গে সুসম্পর্ক বিনষ্ট করতে অশুভ শক্তি বর্বরোচিত হামলা করেছে বলে অভিযোগ করেন।

কাদেরের এই বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে ফখরুল বলেন, আওয়ামী লীগের আমলে সংখ্যালঘুরা বেশি নির্যাতিত হয়েছে। চট্টগ্রামের রামু, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরসহ বিভিন্ন স্থানে সংখ্যালঘুদের উপর হামলায় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের জড়িত থাকার প্রমাণ মিলেছে। রাজনৈতিক কারণেই আমাদের সুনাম বিনষ্ট করার জন্য আমাদের ওপর এ দোষ চাপানো হয়েছে।

বিভিন্ন স্থানের সহিংসতা ঘটনায় বিএনপিকে জড়িয়ে মিথ্যাচার করছে সরকার। বাংলাদেশ সম্প্রীতির দেশ উল্লেখ করে তিনি বলেন, বছরের পর বছর ধরে হিন্দু-মুসলমানেরা পাশাপাশি বসবাস করে আসছে। যেন একই বৃন্তে দুটি ফুল। কিন্তু এই সম্প্রীতিকে বারবার বিনষ্ট করছে একটি অপশক্তি। সেটা খুঁজে বের করার চেষ্টা করা হচ্ছে না। রাজনীতি, নির্বাচন ও ভোটের কারণে হিন্দু সম্প্রদায়ের বাড়ি-ঘরে বারবার অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটছে বলেও অভিযোগ করেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘নির্বাচন কমিশন যদি সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের আয়োজন করে তবে বিএনপি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে।

এ সময় সেখানে দলের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক ও রংপুর বিভাগের দায়িত্বে নিয়োজিত আসাদুল হাবিব, জেলা বিএনপির সভাপতি সাইফুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক রইচ আহমেদ, মহানগর বিএনপির সভাপতি মোজাফফার হোসেন, সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম মিজুসহ বিএনপির স্থানীয় একাধিক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

পরে ক্ষতিগ্রস্ত ১১ পরিবারকে ১০ হাজার করে টাকা, শাড়ি, লুঙ্গি, এবং সংঘর্ষে নিহত হাবিবুর রহমানের পরিবারকে ২০ হাজার টাকা দেওয়া হয়।
খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের।

http://crimereporter24.com/wp-content/uploads/2017/11/1-copy9.jpghttp://crimereporter24.com/wp-content/uploads/2017/11/1-copy9-300x300.jpgজান্নাতুল ফেরদৌস মেহরিনজাতীয়
রংপুর অফিস । মহানগর প্রতিনিধি বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, সত্য কথা বলায় প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহাকে পদত্যাগে বাধ্য করা হয়েছে।খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের। তিনিও হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষ। ষড়যন্ত্রের কারণে তাকে দেশ ছাড়তেও বাধ্য হতে হয়েছে। গণমাধ্যম, বিচার বিভাগ সবই এখন সরকারের নিয়ন্ত্রণে।...