নিজস্ব প্রতিবেদক ।
বিকল্পধারা বাংলাদেশ থেকে দলটির প্রেসিডেন্ট প্রফেসর এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী, মহাসচিব মেজর (অব.) আব্দুল মান্নান ও সিনিয়র যুগ্ম- মহাসচিব মাহি বি চৌধুরী‌কে বহিষ্কার করে ৭১ সদস্যের নতুন বিকল্পধারার একটি কমিটির ঘোষণা করা হয়েছে।খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের।

শুক্রবার সকালে প্রেসক্লা‌বের সামনে নতুন এই কমিটির ঘোষণা দেন দলটির নতুন সভাপতি অধ্যাপক ড.নূরুল আমীন বেপারী এবং মহাসচিব এডভোকেট শাহ আহম্মেদ বাদল।

বহিষ্কারের ফলে মূল বিকল্পধারা তিনজন নেতা সর্বস্ব হয়ে পড়লো। অধিকাংশ নেতা নতুন বিকল্পধারায় যোগ দিয়েছেন বলে নেতারা জানান।

শাহ আহম্মেদ বাদল বলেন, সংবাদ সম্মেলনের জন্য আমরা প্রেস ক্লাবের কনফারেন্স রুমে বুকিং দিয়েছিলাম। কিন্তু আমাদের বুকিং বাতিল করা হয়েছে। এজন্য প্রেস ক্লাবের সামনেই আমাদের নতুন কমিটি ঘোষণা করতে হলো। এছাড়া সংবাদ সম্মেলন না করার জন্য আমাকে মোবাইলে হুমকি দেওয়া হয়েছে।

সম্প্রতি, জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট গঠিত হলে সেখানে যোগ দেয়নি বিকল্পধারা। এই ঐক্য প্রক্রিয়ার শুরু থেকেই ছিল দলটি। দলটির একটি বৃহৎ অংশ দলের এই সিদ্ধান্ত মেনে নিতে পারেন নি। তাদের ইচ্ছা জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে থাকা। আর এই দোলাচল থেকেই দলটিতে ভাঙন দেখা দিল।

বিকল্পধারার নতুন কমিটির মহাসচিব আহম্মেদ বাদল ব‌লেন, সাবেক রাষ্ট্রপতি একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরীর নেতৃত্বাধীন বিকল্পধারা ভেঙে নতুন করে গড়া এ দলটির সভাপতি হচ্ছেন দলটির সিনিয়র প্রেসিডিয়াম সদস্য নূরুল আমীন বেপারী, আহমেদ বাদল হবেন মহাসচিব, আর জানে আলম থাকবেন যুগ্ম মহাসচিব হয়ে।

তিনি বলেন, ‘প্রেসক্লাবে আমাদের হল বুকিং দেওয়া থাকলেও হঠাৎ করে তা বাতিল করে দেওয়া হয়। তাই আজ এখানে (প্রেস ক্লাব চত্বরে) ঘোষণা দিতে হচ্ছে।’

জা্তীয় ঐক্যফ্রন্টে তারা থাকতে চাইলেও কেন থাকতে পারেন নাই সেকথা বলতে গিয়ে বাদল বলেন, ‘বি. চৌধুরী অত্যন্ত ভাল মানুষ। কিন্ত তার ছেলে মাহী বি চৌধুরীর কূটচালে তিনি শেষ পর্যন্ত জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে যোগ দিতে পারেন নি।’

নূরুল আমীন বেপারী বলেন, আমরা বিশ্বাস করি দেশের মানুষের ভোটের অধিকার ফিরিয়ে দিতে ও সকল রাজনৈতিক দলের অংশগ্রহণে নিরপেক্ষ নির্বাচনী পরিবেশ সৃষ্টি করতে একটি সফল নিয়মতান্ত্রিক আন্দোলন গড়ে তুলতে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট সফলভাবে নেতৃত্ব প্রদানে সক্ষম। কিন্তু রাজনৈতিক দল হিসেবে বিকল্পধারার জন্য কিছুটা অস্বস্তি ও গভীর হতাশার বিষয় হচ্ছে, রাজনৈতিক আন্দোলনের সূত্রপাত বিকল্পধারার হাত ধরে শুরু, অথচ তার চূড়ান্ত রূপায়ণ দল হিসেবে সময়মত আমাদের উপস্থিত থাকতে না পারা। বিকল্পধারা জাতীয় ঐক্যফ্রণ্টের সঙ্গেই থাকবে। সারাদেশে দলটির নেতাকর্মীরা নতুন নেতৃত্বের বিকল্পধারার জন্য অপেক্ষা করছে।

‘জামায়াত প্রশ্নে বি চৌধূরীর জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে যায়নি আপনারা কী করবেন?’ এমন প্রশ্নে নুরুল আমিন বলেন, ‘আমাদের দলের কেউ জামায়াতকে সমর্থন করে না। এগুলো মাহী বি চৌধুরীর কূটচাল।

তিনি আরও বলেন, আজ মেজর মান্নানের দুর্নীতির খবর বের হয়েছে। কোনো দুর্নীতিবাজ বিকল্পধারায় থাকতে পারে না। পরিবেশ-পরিস্থিতি বুঝে নির্বাচনের আগেই দলটি কাউন্সিল করবে জানিয়ে দলটির সিনিয়র কয়েকজন নেতা বলছেন, নতুন উদ্যমে শুরু হওয়া বিকল্পধারা জাতীয় নির্বাচনের আগেই কাউন্সিল করে কমিটি দিবে। তবে যদি কোনো কারণে তা সম্ভব না হয় তবে নির্বাচনের পরে কাউন্সিল হবে।

উল্লেখ্য, বিএনপির প্রতিষ্ঠাকালীন মহাসচিব বি. চৌধুরী চার দলীয় ঐক্যজোটের সময় বিএনপি থেকে বেরিয়ে এসে বিকল্পধারা বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা করেন। তিনি বিএনপি ২০০১ সালে ক্ষমতায় এলে রাষ্ট্রপতি হন। এরপর পদত্যাগ করেই এই রাজনৈতিক দল প্রতিষ্ঠা করেন।

বিকল্প ধারার বহিষ্কৃত মহাসচিব আবদুল মান্নান সাংবাদিকদের বলেন, শাহ আহম্মেদ বাদলকে আমরা দল থেকে বহিষ্কার করেছি। আর নুরুল আলম ব্যাপারী কিছুদিন দলে নিষ্ক্রীয় ছিলেন। সুতরাং তাদের এই কমিটিকে আমরা গুরুত্ব দিচ্ছি না। তার কোনও প্রতিবাদও করবো না।

প্রসঙ্গত, অধ্যাপক নুরুল আলম ব্যাপারী বিকল্পধারার প্রেসিডিয়াম সদস্য ছিলেন। অ্যাডভোকেট শাহ আহমেদ বাদল সিনিয়র সহসভাপতি ছিলেন। জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের বিভিন্ন কর্মসূচিতে অংশ নেওয়ার কারনে গত ১৩ অক্টোবর বাদলকে দল থেকে বহিষ্কার করেন বি. চৌধুরী।
খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের।

http://crimereporter24.com/wp-content/uploads/2018/10/118.jpghttp://crimereporter24.com/wp-content/uploads/2018/10/118-300x300.jpgজান্নাতুল ফেরদৌস মেহরিনজাতীয়
নিজস্ব প্রতিবেদক । বিকল্পধারা বাংলাদেশ থেকে দলটির প্রেসিডেন্ট প্রফেসর এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী, মহাসচিব মেজর (অব.) আব্দুল মান্নান ও সিনিয়র যুগ্ম- মহাসচিব মাহি বি চৌধুরী‌কে বহিষ্কার করে ৭১ সদস্যের নতুন বিকল্পধারার একটি কমিটির ঘোষণা করা হয়েছে।খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের। শুক্রবার সকালে প্রেসক্লা‌বের সামনে নতুন এই কমিটির ঘোষণা দেন...