1441212105
বছরে দেড় কোটি ইন্টারনেট গ্রাহক বাড়ানো হবে। এ লক্ষে প্রচারণার কাজ শুরু করেছে সরকারে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়। এরই অংশ হিসেবে দেশে ‘ইন্টারনেট সপ্তাহ’ পালন করা হচ্ছে। বুধবার রাত ১১টা ৫৯ মিনিটে রাজধানীর মানিক মিয়া অ্যাভিনিউতে রং দিয়ে ইন্টারনেট সপ্তাহে প্রচারনার সূচনা করবেন জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী। শনিবার সপ্তাহব্যাপী এ উৎসবের উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের জন সংযোগ কর্মকর্তা আবু নাসের ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে এ কথা জানান।

তিনি আরো জানান, প্রধানমন্ত্রী তার কার্যালয় থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ইন্টারনেট উইকের উদ্বোধন ঘোষণা করবেন।

বুধবারের রাতের ‘স্ট্রিট পেইন্টিং’ কর্মসূচিতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। এ ছাড়া বেসিসের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও বাংলাদেশ ইন্টারনেট উইকের আহ্বায়ক রাসেল টি আহমেদসহ গ্রামীণফোনের কর্মকর্তারাও উপস্থিত থাকবেন।

এদিকে আয়োজনের মাধ্যমে নতুন করে এক কোটি মানুষকে ইন্টারনেট সম্পর্কে ধারণা দিতে চান আয়োজকরা। কিন্তু তাদের মূল লক্ষ্য প্রতি বছরে দেড় কোটি নতুন ইন্টারনেট গ্রহক সৃষ্টি করা।
ইন্টারনেট উইক সম্পর্কে জুনাইদ আহমেদ পলক ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে বলেন, প্রতি বছর লক্ষ্য ছিলো ১ কোটি ইন্টারনেট গ্রাহক বাড়ানো। সম্প্রতি আমরা ইন্টারনেট গ্রাহকদের তথ্য পর্যালোচনা করে দেখেছি, কিছুটা উদ্যোগী হলে ইন্টারনেট গ্রাহকের সংখ্যা আরও বাড়ানো সম্ভব। এ লক্ষ্যে একটি ইভেন্টের প্রয়োজন ছিলো। যার মাধ্যমে ইন্টারনেট সম্পর্কে মানুষের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টি এবং এ বিষয়ে বিস্তারিত সঠিক ধারণা দেয়া সম্ভব। এ কারণেই ইন্টারনেট সপ্তাহের আয়োজন করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, আমাদের প্রত্যাশা ইন্টারনেট সপ্তাহ দিয়ে এক কোটি মানুষে কাছে ইন্টারনেট সম্পর্কিত তথ্য ও জ্ঞান পৌঁছানো।

বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস), তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ এবং গ্রামীণফোনের সহযোগিতায় ‌’বাংলাদেশ ইন্টারনেট সপ্তাহ-২০১৫’ র এর আয়োজন করা হয়েছে।

এবারের আয়োজনে ঢাকা, রাজশাহী ও সিলেটে বড় তিনটি মেলাসহ দেশের ৪৮৭টি উপজেলায় একযোগে অনুষ্ঠিত হবে ইন্টারনেট উৎসব। আগামী ৫ থেকে ৭ সেপ্টেম্বর রাজধানীর বনানী মাঠে, ৯ সেপ্টেম্বর রাজশাহীর নানকিন বাজারে ও ১১ সেপ্টেম্বর সিলেটের সিটি ইনডোর স্টেডিয়ামে বড় পরিসরে বাংলাদেশ ইন্টারনেট উইক আয়োজন করা হবে। এছাড়া ৫ থেকে ১১ সেপ্টেম্বর দেশের ৪৮৭টি উপজেলায় সকল ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের অংশগ্রহণে একযোগে এই উৎসব পালন করা হবে।

এ সম্পর্কে বেসিসের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রাসেল টি আহমেদ ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে জানান, ইন্টারনেট প্রসারের জন্য দরকার ইন্টারনেটের সাশ্রয়ী দাম, ভালো অবকাঠামো ও ভালো কনটেন্ট। আমরা ভালো কনটেন্ট নিয়ে প্রচার-প্রসারে কাজ করছি। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানকে এই উৎসবের সঙ্গে যুক্ত করা হচ্ছে যাতে তারা নিজেদের কনটেন্ট প্রচারের সুযোগ পায়। সাধারণ মানুষকে ইন্টারনেট ও এর সেবাগুলো সম্পর্কে জানানো হবে। এ পাশাপাশি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে শিক্ষার্থীদের ইন্টারনেট নিয়ে উন্নত প্রশিক্ষণ দেয়া হবে।

হীরা পান্নাজাতীয়
বছরে দেড় কোটি ইন্টারনেট গ্রাহক বাড়ানো হবে। এ লক্ষে প্রচারণার কাজ শুরু করেছে সরকারে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়। এরই অংশ হিসেবে দেশে 'ইন্টারনেট সপ্তাহ' পালন করা হচ্ছে। বুধবার রাত ১১টা ৫৯ মিনিটে রাজধানীর মানিক মিয়া অ্যাভিনিউতে রং দিয়ে ইন্টারনেট সপ্তাহে প্রচারনার সূচনা করবেন জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন...