নিজস্ব প্রতিবেদক ।
মাদারীপুর শিবচরের কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া নৌরুটে ফেরি চলছে খুড়িয়ে খুড়িয়ে। গত ১০ দিনেও কাটেনি অচলাবস্থা। ছোট ছোট কে-টাইপ ফেরি সীমিত আকারে পরিবহন নিয়ে ধীরগতিতে চলায় ঘাটে পরিবহনের দীর্ঘ সারি। খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের।

এ ছাড়া পদ্মার লৌহজং চ্যানেলে নাব্যতা সংকট তীব্র আকার ধারণ করায় গত এক সপ্তাহ ধরে রো-রো ফেরি চলাচল বন্ধ রেখেছে বিআইডাব্লিউটিসি।

কাঁঠালবাড়ি লৌহজং টার্নিং পয়েন্ট ও উজানে নদীভাঙন ও উজান থেকে পলি মিশ্রিত পানি আসার কারণে ওই বিকল্প চ্যানেল ও চ্যানেলের মুখে দ্রুত পলি পড়ে ভরাট হয়ে যাচ্ছে বলে ঘাট সূত্রে জানা গেছে।

কাঁঠালবাড়ি ফেরিঘাট সূত্র জানায়, কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া নৌরুটে ১৭টি ফেরি, ৮৭টি লঞ্চ এবং দুই শতাধিক স্পিডবোট চলাচল করে। নাব্যতা সংকটের কারণে ছয়টি ডাম্প ফেরি ও তিনটি রো-রো ফেরি চলাচল করতে পারছে না। বর্তমানে দুইটি ভিআইপি ফেরিসহ ৫-৬টি ফেরি কোনমতে চলাচল করছে।

বিকল্প চ্যানেলে আট কিলোমিটার দীর্ঘ নৌপথেই নাব্যতা সংকট দেখা দিয়েছে। নৌপথে ফেরি চলাচলে বিঘ্ন ঘটলে ঈদুল আজহা উপলক্ষে ঘরে ফেরা যাত্রীরা নানা সমস্যায় পড়বে।

এদিকে, গত প্রায় ১০ দিন ধরে ফেরি চলাচলে অচলাবস্থার কারণে কাঁঠালবাড়ি ঘাটে পণ্যবাহী ট্রাকের দীর্ঘ সারি রয়েছে।

ঘাটে আটকে থাকা ট্রাকের চালক দেলোয়ার হোসেন, জামাল মিয়া, শহিদুল ইসলামসহ অনেকেই বলেন, ৯ দিন ধরে তারা ঘাটে এসে পদ্মা পাড়ির জন্য অপেক্ষা করছেন। কবে ফেরি চলাচল স্বাভাবিক হবে তা কেউ বলতে পারছেন না।

কাঁঠালবাড়ি ঘাটের ইজারাদার ইয়াকুব বেপারী বলেন, ‘বিআইডাব্লিউটিএ গত প্রায় এক মাস ধরে কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া নৌরুটে নাব্যতা সংকট দূর করতে ড্রেজিং করা হচ্ছে। কিন্ত ড্রেজিংয়ের নামে কিছু হচ্ছে না। তাই আসন্ন পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে কাঁঠালবাড়ী-শিমুলিয়া নৌরুটে ঘাট দিয়ে যাত্রীরা অনায়াসে পার হতে পারবে কিনা বলা যায় না। তাই নদীর ড্রেজিং কাজে সেনাবাহিনীকে দায়িত্ব প্রদানের দাবি জানান। তা নাহলে আর কয়েক দিন পর এ রুটের লঞ্চ ও স্পিডবোট চলাচলও বন্ধ হয়ে যেতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

কাঁঠালবাড়ি ঘাটের সহকারী ব্যবস্থাপক রুহুল আমিন বলেন, সামনে ঈদ। এদিকে, নাব্যতা সংকট প্রকট আকার ধারণ করেছে। এ কারণে ফেরিসহ নৌযান চলাচলে কিছুটা সমস্যা হচ্ছে। এরই মধ্যে রো-রো ফেরিগুলো বন্ধ রয়েছে। তবে যাতে নৌযান চলাচলে কোনও সমস্যায় পড়তে না হয় সে জন্য চ্যানেলটি সচল রাখতে সাতটি ড্রেজার দিয়ে বিকল্প চ্যানেলে ড্রেজিং করা হচ্ছে। নাব্যতা সংকট থাকলেও ড্রেজিংয়ের মাধ্যমে চ্যানেল দিয়ে নৌযান চলাচলে উপযোগী রাখা হবে।

শিবচর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. ইমরান আহমেদ বলেন, নাব্যতা সংকট থাকায় নৌযান চলাচলে কিছুটা সমস্যা হচ্ছে। তবে যাতে নৌযান চলাচলে কোনও সমস্যায় পড়তে না হয় সে জন্য ড্রেজিংয়ের মাধ্যমে চ্যানেলটি সচল রাখা হচ্ছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আরো বলেন, ঈদুল আজহা উপলক্ষে যাত্রীরা যাতে প্রিয়জনের সঙ্গে নির্বিঘ্নে ঈদ উপভোগ করতে পারে সে জন্য জেলা প্রশাসক এবং আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সার্বক্ষণিক তৎপর থাকবে। এ ছাড়া যেকোনও অনাকাঙ্খিত দুর্ঘটনা এড়াতে উদ্ধারকারী জাহাজ এরই মধ্যে ঘাটে আনা হয়েছে।
খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের।

http://crimereporter24.com/wp-content/uploads/2018/08/717.jpghttp://crimereporter24.com/wp-content/uploads/2018/08/717-300x253.jpgহীরা পান্নাস্বদেশের খবর
নিজস্ব প্রতিবেদক । মাদারীপুর শিবচরের কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া নৌরুটে ফেরি চলছে খুড়িয়ে খুড়িয়ে। গত ১০ দিনেও কাটেনি অচলাবস্থা। ছোট ছোট কে-টাইপ ফেরি সীমিত আকারে পরিবহন নিয়ে ধীরগতিতে চলায় ঘাটে পরিবহনের দীর্ঘ সারি। খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের। এ ছাড়া পদ্মার লৌহজং চ্যানেলে নাব্যতা সংকট তীব্র আকার ধারণ করায় গত এক...