image_262434.nazrul islam khan
বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেছেন, টিপাইমুখ বাঁধ হলে সিলেটসহ উত্তর-পূর্বঞ্চল মারাত্মক ক্ষতির সম্মুখীন হবে। পানি আগ্রাসনের বিরুদ্ধে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। এদেশের ভবিষ্যত প্রজন্মের কথা ভেবে পানির অধিকার নিয়ে সবাইকে কথা বলতে হবে। ভারতের বাঁধের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে। আমাদের পানির ন্যায্য হিস্যা আদায় করতে হবে।
আজ শনিবার বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবে খেলাফত মজলিস আয়োজিত ‘আন্তর্জাতিক পানিনীতি ও বাংলাদেশের নদ-নদী’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠকে প্রধান বক্তার বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। গোলটেবিল বৈঠকে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য প্রফেসর এমাজউদ্দীন আহমেদ।
নজরুল ইসলাম খান বলেন, ফারাক্কা বাধের প্রভাবে যমুনা নদীর ভাঙ্গনে হাজার হাজার পরিবার সর্বশান্ত। ফারাক্কা বাঁধ চালুর এক বছরের মাথায় পানির প্রবাহ ৬৫ হাজার কিউসেক থেকে নেমে দাঁড়ায় ২৩ হাজার কিউসেকে। আর এখনতো হারডিং ব্রিজের নিচ দিয়ে গরুর গাড়ি চলে।
বক্তব্য রাখেন ইসলামী ঐক্যজোটের চেয়াম্যান মাওলানা আবদুল লতিফ নেজামী, বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহীম বীর প্রতীক, খেলাফত মজলিসের নায়েবে আমির মাওলানা সৈয়দ মজিবুর রহমান, জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সরকার ও রাজনীতি বিভাগের অধ্যাপক ড. আবদুল লতিফ মাসুম, ডেইলি নিউ নেশনের সাবেক সম্পাদক মোস্তফা কামাল মজুমদার, খেলাফত মজলিসের যুগ্ম মহাসচিব এডভোকেট জাহাঙ্গীর হোসাইন, শেখ গোলাম আসগর, ড. মোস্তাফিজুর রহমান ফয়সল, মাওলানা আহমদ আলী কাসেমী প্রমুখ।
সভাপতির বক্তব্যে খেলাফত মজলিসের আমির মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাক বলেন, বর্তমান সরকার নতজানু সরকার। তাদের দ্বারা পানির অধিকার আদায় করা সম্ভব নয়। তাই সবাইকে সম্মিলিতভাবে প্রচেষ্টার মাধ্যমে অধিকার আদায়ের সংগ্রাম চালাতে হবে।

শুভ সমরাটজাতীয়
বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেছেন, টিপাইমুখ বাঁধ হলে সিলেটসহ উত্তর-পূর্বঞ্চল মারাত্মক ক্ষতির সম্মুখীন হবে। পানি আগ্রাসনের বিরুদ্ধে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। এদেশের ভবিষ্যত প্রজন্মের কথা ভেবে পানির অধিকার নিয়ে সবাইকে কথা বলতে হবে। ভারতের বাঁধের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে। আমাদের পানির ন্যায্য হিস্যা আদায় করতে হবে। আজ...